ঢাকা, রোববার 6 January 2013, ২৩ পৌষ ১৪১৯, ২৩ সফর ১৪৩৪ হিজরী
Online Edition

নারী অধিকার আন্দোলনের সভাপতি অধ্যাপক চেমন আরাসহ আটক ১২

স্টাফ রিপোর্টার : নারী অধিকার আন্দোলনের সভাপতি অধ্যাপক চেমন আরা, সহসভাপতি মমতাজ মান্নান, যুগ্ম-সম্পাদক নুরজাহান বেগম, অধ্যাপক জোসনা ইদ্রিসসহ ১২ জন নেতাকর্মীকে আটক করেছে আইন-শৃক্মখলা বাহিনী।

গতকাল শনিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে নারী অধিকার আন্দোলন এক গোলটেবিল বৈঠকের আয়োজন করে। গত ১৭ ডিসেম্বর ইসলামী ছাত্রী সংস্থার কার্যালয় থেকে ২০ জনকে গ্রেফতারের পর অমানবিক নির্যাতনের প্রতিবাদ ও মুক্তির দাবিতে বেলা আড়াইটায় এ বৈঠকের আয়োজন করা হয়। এ বৈঠককে কেন্দ্র করে দুপুর থেকেই বিপুল সংখ্যক র‌্যাব, পুলিশ, মহিলা র‌্যাব ও পুলিশ প্রেস ক্লাবের প্রবেশের পথে অবস্থান নেয়। বৈঠকের নির্ধারিত সময়ের কিছু আগে বেশ কিছু নারী অধিকার কর্মী প্রবেশ করতে পারলেও সংগঠনের সভাপতি অধ্যাপক চেমন আরা, সহসভাপতি মমতাজ মান্নান, যুগ্ম-সম্পাদক নুরজাহান বেগম, অধ্যাপক জোসনা ইদ্রিসসহ ৭ জনকে আটক করে। পরে বৈঠক শেষে সন্ধ্যায় নেতাকর্মীরা বের হওয়ার পথে আরও ৫ নারী কর্মীকে টেনেহেঁচড়ে আটক করে পুলিশ। এ সময় এক কোলের শিশুকেও তার মায়ের সাথে নিয়ে যাওয়া হয়। তাদেরকে ঢাকা মেট্রো-চ ৫৩-২০৯১ নম্বর মাইক্রো বাসে করে প্রেস ক্লাবের সামনে থেকে নিয়ে যায় পুলিশ। আটককৃতদের মধ্যে আরও রয়েছেন, আমেনা খাতুন, ফাতেমা বেগম, সাদিয়া আক্তার। এরপরও প্রেস ক্লাবের প্রধান গেটসহ অন্যান্য গেটগুলোতে পুলিশ ও র‌্যাবের কড়া প্রহরা ছিল। তার সাথে ছিল গোয়েন্দা নজরদারী। এ কারণে বেশকিছু নারী অবরুদ্ধ হয়ে পড়েন। রাত সাড়ে ৮টার দিকে র‌্যাব ও পুলিশের উপস্থিতি ধীরে ধীরে কমে আসলে তারা ক্রমান্বয়ে বের হয়ে আসেন।

গতকাল রাত সাড়ে ৭টায় যোগাযোগ করা হলে শাহবাগ থানার ডিউটি অফিসার এএসআই নুরুল আমিন জানান, প্রেসক্লাব থেকে ৭ জন নারীকে থানায় নিযে আসা হয়েছে। এখন পর্যন্তও তাদেরকে আটক বা গ্রেফতার দেখানো হয়নি। কোন অভিযোগও তোলা হয়নি। নিয়ে আসা নারীদের নিযে খোঁজ-খবর নেয়া হচ্ছে। এরপর থানার সিনিয়র অফিসাররা বসে সিদ্ধান্ত নিয়ে পরবর্তী আইনী পদক্ষেপ নেবেন বলে জানান ডিউটি অফিসার। তিনি জানান, তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগের সঠিক তথ্য পাওয়া সাপেক্ষে আইনী পদক্ষেপ নেয়ার পরই নাম-ঠিকানা পরিচয় জানানো হবে।

শাহবাগ থানা পুলিশ জানায়, যে নারীদের থানায় আনা হয়েছে তাদেরকে শিবিরের কর্মী সন্দেহে নিয়ে যাওয়া হয়। প্রেসক্লাবের পশ্চিম গেট সংলগ্ন এলাকা থেকে তাদের ধরা হয়। তাদের মধ্যে দুই নারীকে র‌্যাব, বাকীদেরকে পুলিশ আটক করে।

তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ :

গতকাল দুপুরে ২০ জন ছাত্রী নির্যাতন ও মুক্তির দাবিতে গোলটেবিল বৈঠকে উপস্থিত হওয়ার জন্য প্রেস ক্লাবে আসার সময় প্রেস ক্লাবের সামনে থেকে র‌্যাব ও পুলিশ বোরকা পরিহিতা মহিলাদেরকে গ্রেফতার করার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছে বাংলাদেশ জাতীয় মানবাধিকার সমিতির চেয়ারম্যান মোঃ মঞ্জুর হোসেন ইসা ও সংগঠনের মহাসচিব সাংবাদিক মিলন মল্লিক।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ