ঢাকা, রোববার 21 July 2013, ৬ শ্রাবণ ১৪২০, ১১ রমযান ১৪৩৪ হিজরী
Online Edition

সরকারদলীয় এমপি হারুন ও উপজেলা চেয়ারম্যান বাচ্চুসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা

ঝালকাঠি সংবাদদাতা : ঝালকাঠি-১ (রাজাপুর-কাঁঠালিয়া) আসনের সরকার দলীয় সংসদ সদস্য বজলুল হক হারুন, রাজাপুর উপজেলা চেয়ারম্যান মিলন মাহমুদ বাচ্চুসহ চার জনের বিরুদ্ধে রাজাপুর ডিগ্রি কলেজের শিক্ষক নিয়োগে অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগে মামলা দায়ের করা হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার ঝালকাঠি সিনিয়র সহকারী জজ আদালতে ৪ প্রার্থী বাদী হয়ে পৃথকভাবে মামলা দায়ের করেন।

মামলায় কলেজের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ঝালকাঠি-১ আসনের সংসদ সদস্য বজলুল হক হারুন, রাজাপুর উপজেলা চেয়ারম্যান মিলন মাহমুদ বাচ্চু, অধ্যক্ষ মোঃ নুরুল আলম হাওলাদার ও এমপি’র ভাই ম্যানেজিং কমিটির সদস্য গালুয়া ইউপি চেয়ারম্যান মজিবুল হক কামালকে বিবাদী করা হয়। প্রার্থীদের আইনজীবী গোলাম সরওয়ার লিটন গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, হিসাব বিজ্ঞানের প্রার্থী আমিনুল ইমলাম, দর্শন বিষয়ের প্রার্থী মিজানুর রহমান, দীপক দেবনাথ ও গনিত বিষয়ের প্রার্থী কামরুজ্জামান বাদী হয়ে কলেজের নিয়োগ সংশ্লি¬ষ্ট ওই চার জনের বিরুদ্ধে এ মামলা করেন। মামলার অভিযোগে উল্লেখ করা হয়, নিয়ম বহির্ভূতভাবে রাজাপুরের পরীক্ষা ঢাকায় বসে নেয়া, দুর্নীতির আশ্রয় নিয়ে টাকার বিনিময়ে ম্যানেজ হয়ে প্রার্থী প্রক্সি দিয়ে এমপির মনোনিত লোককে নিয়োগ দেয়া, ০৬/৭/১৩ তারিখে প্রবেশপত্র দিয়ে ১৩ তারিখে পরীক্ষা ঢাকায় বসে নেয়া।  এ কারণে খুব অল্প সময়ে ঢাকায় পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ায় অনেক প্রার্থী পরীক্ষায় অংশ নিতে পারেনি। তা ছাড়াও অনিয়ম করে অধ্যক্ষ তার ছেলেকে নিয়োগ দিয়েছেন।

কলেজের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও ঝালকাঠি-১ আসনের সরকার দলীয় এমপি বজলুল হক হারুনের সাথে মুঠোফোনে কল দিলে তার ফোন বন্ধ পাওয়া গেছে।

এ বিষয়ে ম্যানেজিং কমিটির সদস্য গালুয়া ইউপি চেযারম্যান মজিবুল হক কামাল বলেন, নিয়োগে কেউ বঞ্চিত হলে সে তো আইনের আশ্রয় নেবেনই।

আমি ঢাকায় আছি মামলা সম্পর্কে কিছুই জানি না।

প্রসঙ্গত, ১৩ জুলাই রাজাপুর ডিগ্রি কলেজের ১২টি পদের শিক্ষক নিয়োগের পরীক্ষা কলেজ পরিচালনা কমিটির সভাপতি এমপি হারুন তার ঢাকার বনানী অফিসে বসে নেন। এতে হিসাব বিজ্ঞান, উচ্চতর গণিত, অর্থনীতি ও বানিজ্য ভূগোল ও দর্শন বিষয়ে চার জনের নিয়োগ দেয়া হয়। পিয়ন নিয়োগ পত্রে দেয়ার কথা হয়। তবে বিএম শাখার ৭ জন শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা বোর্ডের প্রতিনিধি না আসায় হয়নি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ