ঢাকা, বুধবার 12 November 2014 ২৮ কার্তিক ১৪২১, ১৮ মহররম ১৪৩৬ হিজরী
Online Edition

ঐতিহ্যবাহী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আওয়ামী জঙ্গি ও ধর্মদ্রোহী ভারতীয় দালালদের ঠিকানা হতে পারে না -শফিউল আলম প্রধান

সাবেক ছাত্রনেতা ও জাগপা সভাপতি শফিউল আলম প্রধান বলেছেন, সকল মহৎ আন্দোলনের সুতিকাগার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এখন দখলদার-হানাদার কবলিত। ভাষা আন্দোলন থেকে ’৭১-এর স্বাধীনতা সংগ্রাম, বাকশাল থেকে স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনের প্রাণকেন্দ্রকে জাতি আওয়ামী জঙ্গি ও বিপথগামী বামদের চারণভূমি হিসেবে দেখতে চায় না। হাসিনা প্রশাসনের ছত্রছায়ায় ওরা প্রতিবাদী ছাত্রদের উপর বেপরোয়া হামলা চালাচ্ছে। খান সেনাদের মতো নারীদের ইজ্জত-আব্রুর উপর হাত দিচ্ছে। হিজাব, দাড়ি ও ধর্মপ্রাণ ছাত্র-ছাত্রীদের হল থেকে বহিষ্কার করা হচ্ছে। এমনকি ‘এখন তোদের আল্লাহ কোথায়’ এ ধরনের জঘন্য উক্তি করার স্পর্ধা দেখাচ্ছে। ভিন্ন মতাবলম্বী ছাত্র সংগঠনের জন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো এখন নিষিদ্ধ এলাকা। জ্ঞান চর্চার পরিবর্তে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এখন ধর্মদ্রোহী ও আওয়ামী জঙ্গি তৈরির কারখানায় পরিণত করা হয়েছে। ডাকসু নির্বাচন ও হানাদারমুক্ত শিক্ষাঙ্গন গড়ে তোলার লক্ষ্যে তিনি অবিলম্বে ছাত্র সংগ্রাম পরিষদ গড়ে তোলার আহ্বান জানান। ঐতিহ্যবাহী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আওয়ামী জঙ্গি, ধর্মদ্রোহী ভারতীয় দালালদের ঠিকানা হতে পারে না।
দখলদারমুক্ত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও ডাকসু নির্বাচনের দাবিতে গতকাল মঙ্গলবার সকাল ১১টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে জাগপা ছাত্রলীগ আয়োজিত প্রতিবাদী ছাত্র সমাবেশে তিনি প্রধান অতিথির বক্তব্য দিচ্ছিলেন। জাগপা ছত্রলীগ সভাপতি সাইফুল আলমের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক সাব্বির আলম চৌধুরী রজিবের পরিচালনায় বিশেষ অতিথি ছিলেন ৯০-এর ছাত্র আন্দোলনের অন্যতম নেতা জাগপা সাধারণ সম্পাদক খন্দকার লুৎফর রহমান ও যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আসাদুর রহমান খান। বক্তব্য রাখেন ইসলামী ছাত্র সমাজের সভাপতি ইলিয়াস আতাহারী, জাগপা ছাত্রলীগের রাকিবুল ইসলাম রুবেল, নাহিদ হাসান, মিনহাজ প্রধান রাব্বি, আবু নাঈম, ঢাকা মহানগর জাগপা ছাত্রলীগ নেতা আবদুর রহমান ফারুকী, সালাউদ্দিন আহমেদ, জীবন প্রমুখ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ