ঢাকা, বুধবার 12 November 2014 ২৮ কার্তিক ১৪২১, ১৮ মহররম ১৪৩৬ হিজরী
Online Edition

আল্লাহর দ্বীনের অবমাননার বিরুদ্ধে দুর্বার প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে --------ইসলামী ঐক্যজোট

ইসলামী ঐক্যজোট  নেতৃবৃন্দ বলেছেন, বাংলাদেশ আজ অন্যায়-অবিচার,দুর্নীতি ও দুর্বৃত্তিতে সমগ্র বিশ্বে ৫ বার প্রথম স্থান দখলের লজ্জাজনক অর্জন করে আল্লাহর দরবারে এবং  রোজ হাশরের বিচার দিনে মহান আল্লাহর সামনে দাঁড়ানোর সাহস কি তাদের আছে? ঈমানদার প্রতিটি মুসলমানকে উগ্র নাস্তিক্যবাদী জঙ্গি এবং দুর্নীতিবাজ জালিমের দখলদারি এবং আল্লাহর দ্বীনের এমন অবমাননার বিরুদ্ধে দুর্বার প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে। অনন্ত অসীমকাল বাঁচানোর জন্য মহান আল্লাহতায়ালার সৈনিক রূপে ঈমানদার প্রতিটি ব্যক্তিকে  মোকাবেলায় নামতে হবে। এই অবস্থা  থেকে উত্তরণে আমাদের সাহসী ভূমিকা রাখতে হবে।
গতকাল মঙ্গলবার বাদ আসর লালবাগস্থ কার্যালয়ে ইসলামী ঐক্যজোটের চেয়ারম্যান মাওলানা আবদুল লতিফ নেজামীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এক জরুরী সভায় নেতৃবৃন্দ এসব কথা বলেন। সভায় আরো বক্তব্য রাখেন জোটের মহাসচিব মুফতী ফয়জুল্লাহ, ভাইস চেয়ারম্যান মাওলানা আবুল হাসানাত আমিনী,  সহকারী মহাসচিব ও ঢাকা মহানগর সভাপতি মাওলানা আবুল কাশেম, মাওলানা আহলুল্লাহ ওয়াসেল,মাওলানা যুবায়ের আহমদ, মাওলানা জসিম উদ্দীন, মাওলানা সাখাওয়াত  হোসাইন, মাওলানা আলতাফ হোসাইন, মাওলানা আবুল ফারাহ আমিনী, মাওলানা নাছির উদ্দীন, মাওলানা আনছারুল হক ইমরান প্রমুখ।
নেতৃবৃন্দ বলেন, নাস্তিক্যবাদী জঙ্গি রাজনৈতিক দলের  নেতাকর্মীগণ মহান আল্লাহ ও ইসলামের বিরুদ্ধে দাঁড়িয়েছে । তারা সুস্পষ্ট পক্ষ নিয়েছে শয়তান ও শয়তানি বিধানের পক্ষে। মহান আল্লাহর অবমাননা চলছে দেশের যত্রতত্র। জনগণের রাজস্বে পরিচালিত বিশ্ববিদ্যালয়ে আজ ইসলাম নিষিদ্ধ। এসব অপকর্মের কারিগরদের পাহারা দেয়া হচ্ছে সরকারিভাবে।
তারা আরো বলেন, জুলুমের প্রাচীর চূর্ণ করে সত্যের বিজয় নিশান উড়াতে না পারলে মানুষের মুখে হাসি ফুটানো সম্ভব নয়।অস্বস্তিকর বর্তমান নীরবতাকে সরকার যদি স্থিতিশীলতা মনে করে তবে মারাত্মক ভুল করছে। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ