ঢাকা, বুধবার 12 November 2014 ২৮ কার্তিক ১৪২১, ১৮ মহররম ১৪৩৬ হিজরী
Online Edition

কবি ফররুখ আহমদের ৪০তম মৃত্যুবার্ষিকী উদযাপন

মহিউদ্দিন আকবর : জাতীয় মননের কবি ফররুখ আহমদকে নিয়ে এযাবত যত হীন ষড়যন্ত্র এবং বিমাতাসুলভ আচরণই করা হোক না কেন মৌলিক প্রতিভার অবিস্মরণীয় মহিমায় তিনি আজ বিশ্ব কাব্যসাহিত্যে এক অনন্য কবি হিসাবে স্বীকৃত। কবি ফররুখ আহমদের প্রতি সুধীমহলের দৃষ্টি নিবন্ধ হয়েছে এবং তার উপর চলছে প্রচুর আলোচনা ও গবেষণা। এক্ষেত্রে নতুন নতুন গবেষকদের মনোনিবেশ আমাদেরকে উৎসাহিত করছে। এভাবে কবি ফররুখ আহমদ আমাদের জাতীয় মননের অনিবার্য কবি হিসাবে সমাদৃত হচ্ছেন। ইতোমধ্যেই তার কাব্য-কবিতা বিভিন্ন ভাষায় অনূদিত ও প্রকাশিত হচ্ছে। এ জন্য ফররুখ গবেষণা ফাউন্ডেশন নিরন্তর প্রয়াস চালিয়ে যাচ্ছে, এটা খুবই আশাব্যঞ্জক বিষয়।
বাংলা কাব্য সাহিত্যের অন্যতম মৌলিক প্রতিভাধর কবি ফররুখ আহমদের ৪০তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে ফররুখ গবেষণা ফাউন্ডেশন কর্তৃক গত ১৮ অক্টোবর বিকাল ৪-৩০টায় ঢাকার নজরুল একাডেমি মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত স্মরণসভা, আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে দেশের প্রথিতযশা প্রবীণ সাংবাদিক দৈনিক নয়াদিগন্তের সম্পাদক জনাব আলমগীর মহিউদ্দিন উপর্যুক্ত মন্তব্য করেন।
ফররুখ গবেষণা ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি অধ্যাপক মুহাম্মদ মতিউর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সহ-সভাপতি বিশিষ্ট শিশুসাহিত্যিক মাহবুবুল হক। সাহিত্যিক-সাংবাদিক কবি মহিউদ্দিন আকবরের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ পাঠ করেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী অধ্যাপক গবেষক ড. ফজলুল হক সৈকত। আলোচনায় অংশ নেন কবি হাসান আলীম, ইতিহাসবিদ মোহাম্মদ আশরাফুল ইসলাম, কবি লিলি হক ও কবিপুত্র সৈয়দ ওয়াহিদুজ্জামান বাচ্চু।
সভাপতির ভাষণে অধ্যাপক মতিউর রহমান বলেন, ফররুখ আহমদ জাতীয় ঐতিহ্য ও মননকে ধারণ করে কাব্য-চর্চায় ব্রতী হন। তিনি একান্তভাবে স্বদেশ, স্বজাতি ও সমকালীনতাকে ধারণ করে স্বতন্ত্র ভাষা ও অসাধারণ শিল্প-নৈপুণ্যে বাংলা সাহিত্যে স্বাতন্ত্র্যিক উজ্জ্বল ধারা সৃষ্টি করেছেন। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পটভূমিতে সৃষ্ট মনান্তরে লাখ লাখ মানুষের দুর্দশাগ্রস্ত জীবন ও করুণ মৃত্যুর বিষয় নিয়ে তিনি অসাধারণ কবিতা লিখেছেন। তিনি বহুমুখী প্রতিভার অধিকারী ছিলেন। একাধারে রোমান্টিক কাব্য, মহাকাব্য, সনেট, ব্যঙ্গকবিতা, শিশুসাহিত্য, কাব্যনাট্য, গীতিনাট্য, ব্যঙ্গনাট্য, ছোটগল্প, উপন্যাস ও প্রবন্ধ রচনা করেছেন। বিচিত্র ভাব-বিষয়, বৈশিষ্ট্যপূর্ণ ভাষা, আধুনিক শিল্প-কৌশল এবং সর্বশ্রেণির মানুষের উপযোগী কাব্য-কর্মের বিশাল ভান্ডার তিনি উপহার দিয়েছেন। ফররুখ গবেষণা ফাউন্ডেশন এ মহান কবির সাহিত্যকর্মের উপর নিরন্তর চর্চা ও গবেষণা করে যাচ্ছে। ইতোমধ্যেই ফররুখের উপর বিশিষ্ট কয়েকজন লেখকের গ্রন্থ প্রকাশনার সাথে সাথে নিয়মিতভাবে ‘ফররুখ একাডেমি পত্রিকা’ প্রকাশ চলেছে। সম্প্রতি মুহম্মদ মতিউর রহমানের সম্পাদনায় প্রায় সাতশ’ পৃষ্ঠার একটি বৃহদাকার সংকলন প্রকাশের কাজ চলছে।
বিশিষ্ট আবৃত্তিশিল্পী শরীফ বায়েজিদ মাহমুদের নেতৃত্বে কবি ফররুখ আহমদ রচিত শ্রুতিনাটক ‘চোরাই যাত্রা’ পরিবেশন এবং আবৃত্তি পরিবেশন করেন অভিনেতা আহসান হাবিব খান, ফারাহ বিনতে দোলন ও অভিনয় নাট্য সংসদের শিল্পীবৃন্দ। ফররুখ সঙ্গীত পরিবেশন করে সবাইকে মাতিয়ে তোলেন নতুন  প্রজন্মের সেনসেশান টিভি ব্যক্তিত্ব শিল্পী আমিরুল মোমেনীন মানিক।
কবি ফররুখ আহমেদকে নিবেদিত স্বরচিত কবিতা পাঠে অংশ নেন ওয়াহিদ আল হাসান, জুলফিকার স্বপন, ইবনে আব্দুর রহমান, মোহাম্মদ হোসেন আদর, সাঈদ জোবায়ের, একেএম মুজিবুর রহমান, রেজা কারিম ও আমিনুল ইসলাম মামুনসহ নবীন-প্রবীণ কবি-ছড়াকারবৃন্দ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ