ঢাকা, শুক্রবার 14 November 2014 ৩০ কার্তিক ১৪২১, ২০ মহররম ১৪৩৬ হিজরী
Online Edition

আগৈলঝাড়ায় লেপ-তোষক তৈরিতে ব্যস্ত কারিগররা

আগৈলঝাড়া (বরিশাল) সংবাদদাতা : বরিশালের আগৈলঝাড়ায় আগাম শীত উপলক্ষে লেপ-তোষক তৈরিতে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন এর কারিগর ও ব্যবসায়ীরা। দিনে গরম, রাতে ঠান্ডা আর সাতসকালে ঘাস, লতাপাতার ওপর জমে থাকা শিশিরবিন্দু জানান দেয় ‘শীত এসে গেছে। তৈরি হও শীতবস্ত্র নিয়ে শীত মোকাবিলায়’।
জানা গেছে, আগৈলঝাড়া উপজেলায় আগাম শীত জেঁকেবসার কারণে লেপ-তোষক বিক্রি বেড়ে যাওয়ায় খোশ মেজাজে দিন কাটাচ্ছেন কারিগর ও ব্যবসায়ীরা। মধ্যবিত্ত-নিম্নবিত্ত মানুষের কম্বল খোঁজাখুঁজি শুরু না হলেও শীত মোকাবিলায় বিভিন্ন শ্রেণীর মানুষের লেপ-তোষকের দোকানগুলোয় ভিড় করতে শুরু করেছেন। কয়েকদিন ধরে উপজেলার বিভিন্ন স্থানে ঘুরে দেখা গেছে, উপজেলা সদর, গৈলাবাজার, ছয়গ্রাম বন্দর, সাহেবেরহাট, রাজিহারবাজার, বাশাইলবাজার, পয়সারহাট বন্দর, তালেরবাজার, মিশ্রিপাড়া, বাকালহাট, বাটরাবাজার, বারপাইকাবাজারে লেপ-তোষক কারিগরদের ব্যস্ততা দিন দিন বেড়েই চলছে। দিনরাত সমানে ব্যস্ত অর্ডার নেয়া, আর তৈরি করা লেপ-তোষক সরবরাহ করা নিয়ে। বর্তমানে একটি লেপ বানাতে খরচ নেয়া হচ্ছে ৯০০ থেকে ১৩০০ টাকা পর্যন্ত। কারিগররা জানান, কাপড়, সুতা এবং তুলার দাম বেশি হওয়ায় খরচ আগের তুলনায় এখন অনেক বেশি। গৈলাবাজারের লেপ-তোষক ব্যবসায়ী ফরিদ খলিফা জানান, গতবছর ৯০০ টাকায় যে লেপ বানানো হয়েছে এবছর সেটা ১১০০ টাকা খরচ পড়ছে। একই কথা জানান সাহেবেরহাট বাজারের লেপ-তোষক কারিগর বাবুল বেপারী। তিনি জানান, প্রকারভেদে গত বছরের চেয়ে এবছর ১০০ থেকে ৩০০ টাকা খরচ বেশি হচ্ছে একটি লেপ বানাতে। ফুল্লশ্রী গ্রামের কালাম খলিফা জানান, গতবছর ৯০০ টাকা দিয়ে একটি লেপ তৈরি করেছি, কিন্তু এবার সেই লেপ বানাতে খরচ হয়েছে ১১০০ টাকা। লেপ-তোষক ব্যবসায়ীরা জানান, এবছর জিনিসপত্রের দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় স্বাভাবিকভাবেই লেপ-তোষক তৈরিতে খরচ বেড়ে গেছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ