ঢাকা, শনিবার 15 November 2014 ১ অগ্রহায়ন ১৪২১, ২১ মহররম ১৪৩৬ হিজরী
Online Edition

দেখা হলো দুজনার

বিডিনিউজ : পৃথিবীর সব মানুষ উঠে দাঁড়ালে তাদের একজনের মাথা থাকবে সবার উঁচুতে, অন্যজনকে খুঁজতে হবে সবার নিচে। সেই দূরত্ব ‘ঘুচে গেল’ লন্ডনে; দেখা হলো বিশ্বের সবচেয়ে লম্বা ও খর্বাকৃতির মানুষটির। সিএনএন এর খবর, দশম বার্ষিক গিনেজ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডস ডে উপলক্ষে ৮ ফুট ৩ ইঞ্চি উচ্চতার তুর্কি তরুণ সুলতান কোসেন এবং সাড়ে ২১ ইঞ্চি উচ্চতার নেপালি বৃদ্ধ চন্দ্র বাহাদুর দাঙ্গি বৃহস্পতিবার এসেছিলেন লন্ডনে।
ব্রিটিশ পার্লামেন্টের উল্টো দিকে দাঁড়িয়ে প্রথমবারের মতো তারা পরস্পরের সঙ্গে হাত মেলালেন, হাসি ছুড়লেন ক্যামেরার দিকে তাকিয়ে।
৩১ বছর বয়সী কোসেন করেন কৃষিকাজ; লাফ না দিয়েই তিনি বাস্কেটবলের ‘রিং’ ছুঁতে পারেন। কেবল উচ্চতায় তিনি বিশ্বের এক নম্বর নন, সবচেয়ে লম্বা হাতের (১১.২ ইঞ্চি) রেকর্ডটিও তার দখলে।
আর ৭৪ বছর বয়সী চন্দ্র বাহাদুর এই বয়সেও নেপালের প্রত্যন্ত রিমখোলি গ্রামের পাহাড়ে গরু চরাতে যান।  তার ওজন মাত্র ৩২ পাউন্ড। বিপরীত রেকর্ডধারী এ দুটি মানুষ পাশাপাশি এসে আবিস্কার করলেন, এতো পার্থক্যের পরও একটি জায়গায় তাদের অনেক মিল।  সেই উপলব্ধির প্রকাশ ঘটল কোসেনের কথায়। শেষ পর্যন্ত চন্দ্রের দেখা পেয়ে দারুণ লাগছে। সে খাটো, আর আমি লম্বা, কিন্তু আমাদের দুজনকেই সারা জীবন একই রকম সংগ্রাম করতে হয়েছে। চন্দ্রের চোখের দিকে তাকালে আমি একজন সত্যিকারের ভাল মানুষকেই দেখতে পাই।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ