ঢাকা, সোমবার 24 September 2018, ৯ আশ্বিন ১৪২৫, ১৩ মহররম ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

ঢাকায় ফিরেছেন লতিফ সিদ্দিকী, গ্রেপ্তার হতে পারেন

স্টাফ রিপোর্টার ঃ মন্ত্রিসভা ও দল থেকে বরখাস্ত হওয়া আবদুল লতিফ সিদ্দিকী দেশে ফিরেছেন। গতকাল রোববার রাতে তিনি হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে নেমে সেখানেই অপেক্ষা করছেন।
আবদুল লতিফ সিদ্দিকী তাবলিগ জামাত, পবিত্র হজসহ নানা বিষয়ে কটাক্ষ করায় তাঁর নামে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি হয়। এই পরোয়ানা মাথায় নিয়েই তিনি দেশে ফিরলেন। সরকারের একটি দায়িত্বশীল সূত্র থেকে জানা গেছে, আবদুল লতিফ সিদ্দিকীকে গ্রেপ্তার করা হতে পারে।
আওয়ামী লীগের সদস্য পদ থেকেও বহিষ্কৃত এই নেতা কোন দেশ থেকে ফিরলেন তা বিস্তারিত জানা যায়নি। এ ব্যাপারে তাঁর ব্যক্তিগত ফোনে গতরাতে যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন ধরলেও পরিচয় জানার পর সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেন।
আবদুল লতিফ সিদ্দিকী নিউইয়র্কে তাবলিগ জামাত, পবিত্র হজ নিয়ে বিরূপ মন্তব্য করে সমালোচনার মুখে পড়েন। তাঁর বক্তব্য নিয়ে তোলপাড় শুরু হলে তাঁকে মন্ত্রিসভা এবং আওয়ামী লীগের সদস্য পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়। তিনি নিউইয়র্ক থেকে সরাসরি কলকাতা গিয়েছিলেন।
ধারনা করা হচ্ছে,ভারত থেকেই ঢাকায় ফিরেছেন আওয়ামী লীগ ও মন্ত্রিসভা থেকে বহিষ্কৃত আব্দুল লতিফ সিদ্দিকী রাত ৮টা ৫০ মিনিটে ইন্ডিয়ান এয়ার লাইন্সের একটি বিমানে। ইসলাম নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করায় দেশের বিভিন্ন আদালতে দায়ের করা মামলায় তার বিরুদ্ধে একাধিক গ্রেফতারি পরোয়ানা আছে।
এছাড়া প্রধানমন্ত্রীর ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয়কে নিয়ে কটূক্তি করায় ১২ অক্টোবর আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সংসদের বৈঠকে লতিফ সিদ্দিকীকে আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্যপদ থেকে বহিষ্কার করা হয়। ২৪ অক্টোবর আওয়ামী লীগের প্রাথমিক সদস্য পদ থেকেও তাকে বহিষ্কার করা হয়। তিনি  ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী ছিলেন ।
একাধিক মামলায় গ্রেপ্তারি পরোয়ানা মাথায় নিয়ে মন্ত্রিসভা থেকে বরখাস্তকৃত এই মন্ত্রী ঢাকায় ফিরলেও এখনই তাকে গ্রেপ্তার করা হচ্ছে না বলে জানা গেছে। এব্যাপারে উত্তরা জোনের ডিসি ইকবাল হোসেন  লতিফ সিদ্দিকীর ঢাকা আসার কথা স্বীকার করে বলেন. তাকে গ্রেপ্তারের কোনো কাগজ আমাদের কাছে নেই। তাই তাকে গ্রেপ্তার করার কোনো সুযোগ নেই।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ