ঢাকা, শুক্রবার 16 November 2018, ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

সার্কে চরম সমন্বয়হীনতা; ঝুলে গেল বিদ্যুৎ চুক্তিও

আজ সকালে কিছুটা আশার বানী শোনা গেলেও সন্ধ্যা নাগাদ তা আবার হতাশায় পর্যবশিত হলো। বহুল আলোচিত তিন চুক্তি হচ্ছে না এবারের সার্ক শীর্ষ সম্মেলনে এমন তথ্য জানা যায় গতকাল রোববার। সার্কভূক্ত ৮ দেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রীদের অংশগ্রহণে স্ট্যান্ডিং কমিটির দুই দিনের বৈঠকের প্রথম দিন শেষে এমন তথ্যই জানিয়েছিলেন বাংলাদেশের পররাষ্ট্র সচিব মো: শহীদুল হক।
তবে আজ সোমবার সকালে পররাষ্ট্র সচিবদের দ্বিতীয় ও শেষ দিনের বৈঠক শুরুর পর পররাষ্ট্র সচিব জানান শীর্ষ সম্মেলনে বিদ্যুৎ সহযোগিতা বিষয়ক চুক্তি সম্পন্ন হওয়ার সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে।
পাশাপাশি পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ের মহাপরিচালক (দক্ষিণ এশিয়া ও সার্ক) নাফিস জাকারিয়াও বলেন, বিদ্যুত সহযোগিতা চুক্তি বিষয়ে তার দেশের সামান্য আপত্তি থাকলেও তার সমাধান হতে চলেছে। তাই এ চুক্তি হতে পারে।
কিন্তু স্ট্যান্ডিং কমিটির দুই দিনের বৈঠক শেষে পররাষ্ট্র সচিব আবারও সদস্যভূক্ত দেশগুলোর সমন্বয়হীনতার প্রতি ইঙ্গিত করে জানালেন, বিদ্যুৎ সহযোগিতা বিষয়ক চুক্তিটিও না হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে।
নেপালের রাজধানী কাঠমন্ডুর হোটেল সল্টেতে দুই দিনের বৈঠক শেষে সোমবার রাতে এক সংবাদ সম্মেলনে পররাষ্ট্র সচিব শহীদুল হক অবশ্য বলেন, বিষয়টি আগামীকাল মঙ্গলবার সার্ক পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের বৈঠকে আলোচনা করা হবে।
তবে, কোন আশার বাণী আছে কীনা এমন এক প্রশ্নের জবাবে পররাষ্ট্র সচিব বলেন তারা আশাবাদী পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের বৈঠকে এ বিষয়ে ইতিবাচক আলোচনা হবে। কিন্তু সত্যিকার অর্থে এই চুক্তি হওয়ার সম্ভাবনা যে খুবই ক্ষীণ তা খোলামেলাভাবেই স্বীকার করেছেন পররাষ্ট্র সচিব।
অর্থাৎ সব মিলিয়ে দক্ষিণ এশীয় আঞ্চলিক সহযোগিতা সংস্থা (সার্ক)-এর শীর্ষ সম্মেলনে যেই বহুল আলোচিত তিন চুক্তি নিয়ে সদস্য দেশগুলো খুব উৎফুল্ল ছিল সেগুলোর কেনটিই হচ্ছে না।
বাকী যেই দুটি চুক্তি না হওয়ার সম্ভাবনা প্রায় শতভাগ তার মধ্যে রয়েছে সার্ক সদস্য দেশগুলোর মধ্যে যাত্রী ও পণ্য পরিবহনের জন্য আঞ্চলিক রেল সহযোগিতা চুক্তি এবং সার্ক পণ্য ও যাত্রীবাহী মোটরযান চলাচল বিষয়ক চুক্তি ।
এই পরিস্থিতিতে এবারের ১৮তম সার্ক শীর্ষ সম্মেলনের অর্জন তাহলে কী? আর দক্ষিণ এশিয়ার এই সর্বোচ্চ ফোরামের সাফল্যই বা কতটুকু? সাংবাদিকদের এ ধরণের একাধিক প্রশ্নের জবাবে পররাষ্ট্র সচিব শহীদুল হক বলেন, অনেকগুলো দেশই তিনটি চুক্তির ব্যাপারেই আগ্রহী ছিল, কিন্তু দু’একটি দেশের কারণে এটা সম্ভব হলো না।
তবে, এরপর থেকে সার্ক ডেভেলপমেন্ট বা সার্কের উন্নয়ন বিষয়ক প্রতিবেদন প্রকাশ করা হবে নিয়মিত ভিত্তিতে। ২০১৫ সাল নাগাদ এ প্রতিবেদন প্রকাশ শুরু হতে পারে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ