ঢাকা, মঙ্গলবার 25 September 2018, ১০ আশ্বিন ১৪২৫, ১৪ মহররম ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

চুয়াডাঙ্গায় জামায়াতের দুই চেয়ারম্যান কারাগারে

দামুড়হুদা (চুয়াডাঙ্গা) সংবাদদাতা: চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলা চেয়ারম্যান ও জেলা জামায়াতের সেক্রেটারী আজিজুর রহমান ও দামুড়হুদা সদর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ও জামায়াতের ইউনিয়ন আমীর প্রভাষক শরিফুল আলম মিল্টনকে কথিত রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় জেল হাজতে প্রেরণ করেছে চুয়াডাঙ্গা সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতের বিচারক মোঃ তৈয়ব আলী।
মামলা সূত্রে জানা যায়, তৎকালীন দামুড়হুদা মডেল থানার ওসি শিকদার মশিউর রহমান উর্ধতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে গত ১৮ মে জামায়াত নেতৃবৃন্দের নামে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা করে। মামলায় রাষ্ট্রপতির অনুমতি সাপেক্ষে গত ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৪ তারিখে জেলা জামায়াতের সেক্রেটারী ও দামুড়হুদা উপজেলা চেয়ারম্যান মাওলানা আজিজুর রহমান (৫৫), দামুড়হুদা উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান দর্শনা পৌর জামায়াতের আমীর আব্দুল কাদের (৫০), দামুড়হুদা উপজেলা জামায়াতের আমীর নায়েব আলী (৪৮) ও দামুড়হুদা সদর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ও জামায়াতের ইউনিয়ন আমীর শরিফুল আলম মিল্টনসহ জামায়াত শিবিরের ২১ জন নেতাকর্মীকে আসামী করা হয়।
রাষ্ট্রদ্রোহ এই মামলায় গত ২৭ অক্টোবর হাইকোর্ট থেকে উপজেলা চেয়ারম্যান আজিজুর রহমান ও ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মিল্টন ৪ সপ্তাহের আগাম জামিন নেন। সে মোতাবেক গত সোমবার উপজেলা চেয়াম্যান আজিজুর রজমান ও ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মিল্টন নিম্ন আদালত চুয়াডাঙ্গা সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে হাজির হয়ে জামিনের আবেদন করেন। বিজ্ঞ আদালত আসামী পক্ষ ও রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবিদের পক্ষে-বিপক্ষে দেওয়া যুক্তিতর্ক শুনে তাৎক্ষনিকভাবে কোন আদেশ না দিয়ে আজ মঙ্গলবার আদেশ দেওয়া হবে বলে জানান। মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১২ টার দিকে ঘোষিত আদেশে চুয়াডাঙ্গা সিনিয়র জুডিশিয়াল আদালতের বিজ্ঞ বিচারক উপজেলা চেয়াম্যান আজিজুর রজমান ও ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মিল্টনের জামিনের আবেদন না মঞ্জুর করে তাদের জেল হাজতে আটক রাখার আদেশ দেন।
উল্লেখ্য, উক্ত মামলায় দামুড়হুদা উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও দর্শনা পৌর জামায়াতের আমীর আব্দুল কাদের ও দামুড়হুদা উপজেলা জামায়াতের আমীর নায়েব আলী গত ১৮ সেপ্টেম্বর থেকে কারাগারে রয়েছেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ