ঢাকা, বৃহস্পতিবার 11 December 2014 ২৭ অগ্রহায়ন ১৪২১, ১৭ সফর ১৪৩৬ হিজরী
Online Edition

এমদাদ আলী খান ছিলেন মানব সেবার উজ্জ্বল প্রতীক

ঐতিহ্যবাহী সাংস্কৃতিক সংস্থা তমদ্দুন মজলিসের উদ্যোগে বিশিষ্ট ভাষা সৈনিক ও সমাজসেবী মরহুম এমদাদ আলী খানের ২৯তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় বক্তাগণ বলেছেন, মরহুম এমদাদ আলী খান ছিলেন সাম্প্রদায়িকতাসহ সকল প্রকার সংকীর্ণতার ঊর্দ্বে মানবতার সেবায় নিবেদিত এক অসাধারণ ত্যাগী পুরুষ। তিনি প্রমাণ করে গেছেন, দারিদ্র্য মানব সেবার কাজে বাধা হতে পারে না। তিনি ছিলেন মহানবীর (সা.) সাহাবীদের আদর্শে উদ্বুদ্ধ এক মহান সমাজসেবী। যেখানেই কোন মানুষ বিপণ্ন হয়েছে বলে তিনি শুনতেন, তিনি ছুটে যেতেন সেখানেই এবং দেহমন উজাড় করে দিয়ে তার সেবায় লেগে পড়তেন। তার সেবা থেকে বঞ্চিত হতো না বিপন্ন পশুপাখিরাও। বক্তাদের অনেকেই এ ব্যাপারে তাদের নিজেদের অভিজ্ঞতা বর্ণনা করতে গিয়ে আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন এবং মন্তব্য করেন, এমদাদ আলী খান ছিলেন মানবতার আকাশে এক উজ্জ্বল নক্ষত্র। যেই তার ঘনিষ্ঠ সান্নিধ্যে আসতো সেই তার গুণমুগ্ধ হয়ে পড়তো। এমদাদ আলী খান ইসলাম আর মানবতাকে অভিন্ন স্বত্বা বলে বিশ্বাস করতেন।
তমদ্দুন মজলিসের শান্তিনগরস্থ মহানগর কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এ আলোচনা সভায় বিশিষ্ট ইসলামী চিন্তাবিদ ও কলামিস্ট অধ্যাপক হাসান আবদুল কাইয়ুমের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রবীণ সাংবাদিক ও বিশিষ্ট ভাষা সৈনিক অধ্যাপক আবদুল গফুর। আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন ড. একরামুল ইসলাম, এডভোকেট আবদুল মোবিন, কবি আবদুল মুকীত চৌধুরী, শাহাবুদ্দীন খান, মরহুমের সহধর্মিনী বেগম মাজেদা খানম, এরতাজ আলম, ইবরাহীম রহমান, অধ্যাপক মাসউদুর রহমান প্রমুখ। সভায় মরহুমের উপর লিখিত শেখ তোফাজ্জল হোসেনের একটি কবিতা আবৃত্তি করে শোনানো হয়। সভা শেষে মরহুমের রূহের মাগফিরাত কামনা করে দোয়া ও মোনাজাত পরিচালনা করেন অধ্যাপক হাসান আবদুল কাইয়ুম। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ