ঢাকা, বৃহস্পতিবার 11 December 2014 ২৭ অগ্রহায়ন ১৪২১, ১৭ সফর ১৪৩৬ হিজরী
Online Edition

লতিফের ফাঁসির দাবিতে হরতালের হুঁশিয়ারি

স্টাফ রিপোর্টার : ধর্ম অবমাননাকারীদের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদন্ডের বিধান রেখে লতিফ সিদ্দিকীকে ফাঁসি দেয়ার দাবি জানিয়েছে সম্মিলিত ইসলামী দলসমূহ। ২৫ ডিসেম্বরের মধ্যে দাবি মানা না হলে হরতাল ও অবরোধের মত কঠোর কর্মসূচি দেয়ার হুঁশিয়ারি দেয় সংগঠনটি। এ দাবিতে ঢাকা জেলাসহ সারা দেশের জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপিও দেয়া হয়েছে।
গতকাল বুধবার বায়তুল মোকাররমের উত্তর গেটে জোহর নামাজের পর পূর্বঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী বিক্ষোভ শেষে সম্মিলিত ইসলামী দলসমূহের কেন্দ্রীয় নেতা মাওলানা আবু তাহের জেহাদীর নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল ঢাকা জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপি দিতে যান। জোহর নামাজ শেষে বায়তুল মোকাররমের উত্তর গেট থেকে সংগঠনটির নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ মিছিল বের করতে চাইলে পুলিশ তাদের বাধা দেয়। বাধার মুখে তারা মসজিদ বাউন্ডারির ভেতরেই সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করেন।
সংক্ষিপ্ত সমাবেশে সম্মিলিত ইসলামী দলসমূহের মহাসচিব মাওলানা জাফরুল্লাহ খান বলেন, দেশের সরকারপ্রধান ও বিরোধীদলের নেত্রী মুসলমান। মুসলমান হওয়া সত্ত্বেও কেন এতদিন ধর্ম অবমাননাকারীদের সর্বোচ্চ শাস্তির বিধান পাস করা হচ্ছে না? সরকারই বিষয়টি জিইয়ে রেখে রাজনীতি করছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।
তিনি আরও বলেন, ধর্ম অবমাননাকারী মুরতাদের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদন্ডের বিধান পাস করে লতিফ সিদ্দিকীকে ফাঁসি দিতে হবে। তার ফাঁসি না হওয়া পর্যন্ত তৌহিদী জনতা আন্দোলন চালিয়ে যাবে।
সম্মিলিত ইসলামী দলসমূহের কেন্দ্রীয় নেতা ড. খলিলুর রহমান মাদানী বলেন, ২৫ ডিসেম্বরের মধ্যে দাবি না মানলে হরতাল-অবরোধের মত কঠোর কর্মসূচি দিতে আমরা বাধ্য হব। লতিফ সিদ্দিকীকে বাঁচানোর কোনো ষড়যন্ত্র তৌহিদী জনতা মেনে নেবে না বলেও হুমকি দেন তিনি।
সম্মিলিত ইসলামী দলসমূহের কেন্দ্রীয় নেতাদের মধ্যে মাওলানা মহিউদ্দিন রব্বানী, শর্ষিণার ছোট পীর মাওলানা শাহ আরিফ বিল্লাহ, মাওলানা আবু তাহের জেহাদী, মুফতী ফখরুল ইসলাম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
এদিকে সারাদেশে শান্তিপূর্ণভাবে সম্মিলিত ইসলামী দলসমূহের স্মারকলিপি প্রদান কর্মসূচি পালিত হয়েছে।
চট্টগ্রাম ঃ মাওলানা আবদুর রহমান চৌধুরী, মাওলানা মিয়া হোসাইন শরীফ ও মুফতি ইসহাক-সহ প্রমুখ নেতৃবৃন্দের নেতৃত্বে বিক্ষোভ মিছিল সহকারে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর নিকট স্মারক লিপি প্রদান করা হয়।
খুলনা ঃ খুলানা সিটি করপোরশনের সামনে থেকে মাওলানা সাখাওয়াত হোসাইন, মুফতি আব্দুল কুদ্দুস, প্রিন্সিপাল মাওলানা রহমাতুল্লাহ, প্রিন্সিপাল মাওলানা নাজমুস সউদ, মুফতি নাসিরুদ্দীন প্রমুখের নেতৃত্বে বিক্ষোভ মিছিলটি নগরীর গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে জেলা প্রশাসকের নিকট ৫ জনের একটি প্রতিনিধি দল স্মারক লিপি পেশ করেন।
রাজশাহী ঃ নগরীর কাশফুল একাডেমির সামনে থেকে অধ্যক্ষ মাওলানা শহীদুল ইসলাম, হাফেজ আব্দুস সামাদের নেতৃত্বে বিক্ষোভ মিছিলটি পুলিশি বাধার মুখে সংক্ষিপ্ত সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়। পুলিশ প্রহরায় ৪ সদ্যসের একটি প্রতিনিধি দল স্মারকলিপি জেলা প্রশাসকের নিকট হস্তান্তর করেন।
সিলেট ঃ মুফতি ফয়জুল হক, খেলাফত আন্দোলনের সভাপতি মাওলানা শেখ নাছির উদ্দীন, ইসলামী ঐক্যজোটের জেলা সভাপতি মাওলানা জহুরুল হক, জমিয়তে ইসলামের সভাপতি মাওলানা নওফেল আহমাদ, নেজামে ইসলাম সভাপতি মাওলানা আবু বকর, খেলাফতে ইসলাম সভাপতি মাওলানা ইউসুফ, মাওলানা রফিক বিন সেকেন্দার, মাওলানা কুদরত উদ্দীন প্রমুখের নেতৃত্বে  সিটি করপোরেশনের সামনে থেকে বিক্ষোভ মিছিলসহকারে সিলেট জেলা প্রশাসকের নিকট স্মারকলিপি প্রদান করেন।
রংপুর ঃ ড. মাওলানা আজিজুল ইসলামের সভাপতিত্বে টাউন হল চত্বরে বিক্ষোভ মিছিল শেষে  একটি প্রতিনিধি দল জেলা প্রশাসকের নিকট স্মারক লিপি প্রদান করেন।
বরিশাল ঃ ইস্টিমার ঘাট মসজিদ থেকে মাওলানা আবু ইউসুফ গাজী, মুফতি শহীদুল ইসলাম, মাওলানা সোহরাব হোসাইন, মাওলানা আবদুল কাইয়ুম, মাওলানা জহির উদ্দীন, মাওলানা মোহাম্মাদ বাবরের নেতৃত্বে এক প্রতিনিধি দল জেলা প্রশাসকের নিকট স্মারক লিপি প্রদান করেন।
গাইবান্ধা ঃ প্রিন্সিপাল মাওলানা সাইদুর রহমানের নেতৃত্বে বাস স্ট্যান্ড মসজিদ থেকে একটি প্রতিনিধি দল জেলা প্রশাসকের নিকট স্মারক লিপি প্রদান করেন।
সাতক্ষীরা ঃ অধ্যক্ষ মাওলানা আবদুল বারীর নেতৃত্বে পলাশপুর মোড় থেকে মিছিল সহকারে একটি প্রতিনিধি দল জেলা প্রশাসকের নিকট স্মারক লিপি প্রদান করেন।
লালমনিরহাট ঃ মুফতি আব্দুল্লাহ ইবনে শমসের ও মুহাদ্দিস আবুল বাশারের নেতৃত্বে ১টি প্রতিনিধি দল জেলা প্রশাসকের নিকট স্মারক লিপি প্রদান করেন।
যশোর ঃ সংক্ষিপ্ত সমাবেশ শেষে মুহাদ্দিস আবু সাইদ ও মুফতি নাসির উদ্দীনের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল জেলা প্রশাসকের নিকট স্মারক লিপি প্রদান করেন।
বাগেরহাট ঃ মাওলানা ক্বারী রুহুল আমীনের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারক লিপি প্রদান করেন।
গোপালগঞ্জ ঃ প্রিন্সিপাল আব্দুল হামিদের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল গোপালগঞ্জ জেলা প্রশাসকের নিকট প্রধানমন্ত্রীর কাছে পৌঁছে দেয়ার জন্য স্মারকলিপি হস্তান্তর করেন।
রাঙ্গামাটি ঃ অধ্যক্ষ নুরুল আলমের নেতৃত্বে বনরূপা থেকে বিক্ষোভ মিছিল সহকারে একটি প্রতিনিধি দল জেলা প্রশাসকের নিকট স্মারক লিপি প্রদান করেন।
কক্সবাজার ঃ মাওলানা আলমগীর হোসাইন ও হাফেজ সালামাত উল্লাহর নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল জেলা প্রশাসকের নিকট স্মারক লিপি প্রদান করেন।
মানিকগঞ্জ ঃ মুফতি জাকিরুল ইসলামের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল জেলা প্রশাসকের নিকট স্মারক লিপি প্রদান করেন।
নারায়ণগঞ্জ ঃ পীর মাওলানা শরীফ হোসাইনের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল জেলা প্রশাসকের নিকট স্মারক লিপি প্রদান করেন।
এছাড়া দেশের অন্যান্য জেলা থেকেও জেলা প্রতিনিধিদের নেতৃত্বে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর একই স্মারক লিপি প্রদান করা হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ