ঢাকা,বৃহস্পতিবার 15 November 2018, ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

চাঁদার জন্য বাস আটকালো ছাত্রলীগ

অনলাইন ডেস্ক: গাবতলী-আবদুল্লাপুর রুটে চলাচলকারী নউি পল্লবী এক্সপ্রসেরে আটটি বাস রাস্তা থকেে কলজেে নিয়ে আটকে রেখেছিল মিরপুররে বাংলা কলজে ছাত্রলীগরে নেতারা। পরে পুলশি গিয়ে বাসগুলো ছাড়িয়ে আনে। বাস মালকিরে অভযিোগ, চাঁদা দিতে রাজি না হওয়ায় ছাত্রলীগ বাসগুলো কলজেে নযি়ে আটকে রখেছেলিো।

নউি পল্লবী এক্সপ্রসেরে পরচিালক (র্অথ) সরিাজুল হক জানান, অক্টোবর মাসে তারা গাবতলী-আবদুল্লাপুর রুটে ৩০টি বাস নামায়। বাস চলাচল শুরুর কয়কেদনি পরইে বাংলা কলজে ছাত্রলীগরে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক বলনে, এই রুটে বাস চলতে হলে কলজে ছাত্রলীগরে নতোদরে প্রতবিাসরে জন্য ২০০ টাকা করে দতিে হব।ে যহেতেু তারা ৩০টি বাস নামযি়ছেে কাজইে তাদরে প্রতদিনি ছয় হাজার টাকা করে মাসে ১ লাখ ৮০ হাজার টাকা দতিে হব।ে অন্যরা সবাই এভাবে দযে়। নয়তো বাস চলতে দওেয়া হবে না। অনকে বাদানুবাদরে পর তারা প্রতবিাসরে জন্য ১০০ টাকা করে নতিে রাজি হয়। এই হসিবেে প্রতদিনি ৩০টি বাসরে জন্য তনি হাজার করে মাসে ৯০ হাজার টাকা দতিে হতো। গত দুই মাস ধরে এভাবইে চলছ।ে

কন্তিু এখন তারা প্রতবিাসরে জন্য ৩০০ টাকা করে চাইছে উল্লখে করে সরিাজুল হক বলনে, এই টাকা দতিে রাজি না হলে কলজে ছাত্রলীগরে নতোরা হুমকি দযি়ে বল,ে তারা বাস চলতে দবেে না। কন্তিু এরপরওে আমরা বাস চালালে গতকাল বুধবার দুপুরে তারা কলজেরে সামনরে রাস্তা থকেে একে একে আটটি বাস থামযি়ে সগেুলো কলজেরে মাঠে ঢুকযি়ে রাখ।ে এরপর আমরা মরিপুররে সহকারী পুলশি সুপার সাখাওয়াত হোসনেরে সঙ্গে যোগাযোগ কর।ি তনিি বাসগুলো কলজে থকেে বরে করে আনার নর্দিশে দনে। এরপর দারুস সালাম থানার দ্বতিীয় র্কমর্কতা এমরানুল কবরি বপিুল সংখ্যক পুলশি নযি়ে বাসগুলো কলজে থানা থকেে ছাড়যি়ে আননে।

এই ঘটনায় সন্ধ্যায় থানায় জডিি করতে গলেওে পুলশি কোন অভযিোগ না নযি়ে ছাত্রলীগরে সঙ্গে সমঝোতা করার নর্দিশে দযে় বলে দাবি করনে সরিাজুল। তনিি বলনে, ‘তারা (পুলশি) বল,ে ছাত্রলীগরে সঙ্গে ঝামলো করে পারবনে না। আমরা এখন কী করবো বুঝতে পারছি না।’

সপ্টেম্বের মাসে এইচ এম জাহদি মাহমুদকে সভাপতি ও মজবিুর রহমান ওরফে অনকিকে সাধারণ সম্পাদক করে ছাত্রলীগরে বাংলা কলজেরে কমটিি গঠন করা হয়। চাঁদাবাজরি এই অভযিোগরে বষিয়ে জানতে যোগাযোগ করা হলে জাহদি মাহমুদ অভযিোগ অস্বীকার করনে।  তনিি  বলনে, ‘আমরা তখন ক্যাম্পাসে ছলিাম না। খবর পযে়ে আমরা ঘটনাস্থলে যাই। পরে আমরা জানতে পারি এই কোম্পানরি কোন বাস নাকি কলজেরে এক ছাত্ররে মোটরসাইকলে ভঙেে দযি়ছেলিো। তাই ছাত্ররা ওই বাসগুলো কলজেে ঢুকযি়ছেলিো। কন্তিু আমরা ঘটনাস্থলে গযি়ে বাসগুলো ছাড়ানোর ব্যবস্থা কর’ি। কোন ছাত্ররে মোটরাসাইকলে ভঙেছেলিো জানতে চাইলে তনিি সুনর্দিস্টি করে কোনো নাম বলতে পারনেন।ি

এ বষিয়ে জানতে চাইলে দারুস সালাম থানার ভারপ্রাপ্ত র্কমর্কতা (ওস)ি রফকিুল ইসলাম বলনে, ‘আমরা খবর পযে়ছেলিাম কলজেরে ছাত্ররা কয়কেটি বাস আটকে রখেছে।ে পরে পুলশি গযি়ে বাসগুলো ছাড়যি়ে এনছে।ে বাসরে মালকিপক্ষ মামলা করতে চাইলওে মামলা নওেয়া হয়নি এমন অভযিোগ সর্ম্পকে জানতে চাইলে তনিি বলনে, ‘না কউে তো মামলা করতে আসনে’ি।

পুলশিরে মরিপুর অঞ্চলরে উপ-কমশিনার নশিারুল আরফি বলনে, ‘আমি থানাকে বলছেি চাঁদার মামলা নতি।ে মামলা না নলিে কনে নওেয়া হলো না সটেি আমি দখেবো’।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ