ঢাকা, রোববার 23 September 2018, ৮ আশ্বিন ১৪২৫, ১২ মহররম ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

২৭ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীতে ইসরাইলকে হামাসের হুশিয়ারী

ফিলিস্তিনের প্রতিরোধ আন্দোলন হামাস গত রোববার গাজা উপত্যকায় বিশাল সামরিক মহড়া চালিয়েছে। হামাসের ২৭তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে এ মহড়ার আয়োজন করা হয়।
ইহুদিবাদী ইসরাইলকে ধ্বংস করার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেছে ফিলিস্তিনের ইসলামি প্রতিরোধ আন্দোলন হামাস।
প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর ঐ আয়োজনে গাজা উপত্যকায় হামাসের অন্তত দুই হাজার যোদ্ধা সামরিক কুচকাওয়াজে অংশ নেন। এতে হামাসের ব্যবহার করা কিছু ক্ষেপণাস্ত্র ও লাঞ্চার প্যাড প্রদর্শন করা হয়।
ফিলিস্তিনের ‘আর-রিসালা’অনলাইন লিখেছে- রোববার হামাসের রাজনৈতিক শাখার উপ-প্রধান ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইসমাইল হানিয়ার উপস্থিতিতে এ মহড়া চলে। গাজার হাজার হাজার অধিবাসী সরাসরি মহড়া দেখেছে। এ সময় হামাসের যোদ্ধাদের রণ-কৌশল ও সামরিক অস্ত্র প্রদর্শন করা হয়। হামাসের প্রদর্শিত অস্ত্রের মধ্যে ‘আবাবিল’ড্রোন এবং ‘কাস্সাম’ক্ষেপণাস্ত্রের নাম বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য।
‘কাস্সাম’ক্ষেপণাস্ত্র প্রদর্শন করা হলেও এর পাল্লা সম্পর্কে সেখানে কোনো তথ্য উল্লেখ ছিল না। এর মাধ্যমে ইহুদিবাদী ইসরাইলকে অন্ধকারে রাখা হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, কাস্সাম ক্ষেপণাস্ত্রের পাল্লা বাড়ানো হয়েছে। এর আগেই হামাসের পদস্থ কর্মকর্তা সালাহ আল-বোরদুইল ঘোষণা করেছিলেন- তাদের কাছে ইসরাইলকে অবাক করার মতো নতুন কিছু রয়েছে।
সমাবেশে হামাসের সামরিক শাখা কাসসাম ব্রিগেডের কথা উল্লেখ করে হামাস নেতা খলিল আল-হাইয়্যা বলেন, “এই ব্রিগেডের হাতেই ইহুদিবাদী ইসরাইল ধ্বংস হবে।”
কাসসাম ব্রিগেডের মুখপাত্র আবু উবাইদা বলেন, “মধ্যপ্রাচ্য অঞ্চলের ইতিহাসে এবারের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর এ অনুষ্ঠান একটি গুরুত্বপূর্ণ টার্নিং পয়েন্ট।”
তিনি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেন, “ইহুদিবাদী ইসরাইল যদি গাজার বিধ্বস্ত ঘর-বাড়ি নির্মাণ করে না দেয় তাহলে তার জন্য মারাত্মক পরিণতি ভোগ করতে হবে। ইসরাইলের বিরুদ্ধে এমন বিস্ফোরণ ঘটবে যা ইসরাইলের দখলদারিত্বের পক্ষে যাবে না।”
এছাড়া, ইসরাইলের কারাগারগুলোতে বন্দি ফিলিস্তিনিরা শিগগিরি মুক্তি পাবেন বলেও তিনি উল্লেখ করেছেন। কাসসাম ব্রিগেডের মুখপাত্র বন্দিদের উদ্দেশ করে আরো বলেন, “অতীতের যেকোনো সময়ের চেয়ে আপনারা স্বাধীনতার আলোর কাছাকাছি অবস্থান করছেন। সে কারণে সংখ্যা, ব্যক্তি, জীবন, মৃত্যু, কিভাবে এবং কখন এসব ভেবে বিরক্ত হওয়ার দরকার নেই।”
গাজায় ইহুদিবাদী ইসরাইলের আগ্রাসনের বিরুদ্ধে ভয়াবহ লড়াইয়ের চার মাসের মাথায় হামাস তাদের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন করল।-ওয়েবসাইট



অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ