ঢাকা, শুক্রবার 16 November 2018, ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

এবার ছাত্রের বিরুদ্ধে শিক্ষিকার ধর্ষণ মামলা

স্টাফ রিপোর্টার: সম্পর্কটা মাত্র ৩ মাসের। এর মধ্যে একাধিকবার মেসসহ বিভিন্ন জায়গায় শারিরীক সম্পর্কেও মিলিত হয়েছেন একই প্রতিষ্ঠানের ছাত্র ও শিক্ষিকা। এভাবেই এগিয়ে যাচ্ছিল ছাত্র-শিক্ষিকার প্রেমের সম্পর্ক। কিন্তু শনিবার রাতে রাজধানীর মিরপুর মডেল থানায় রিয়াজ হোসেন বাবু (২৬) নামের ওই ছাত্রের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ এনে মামলা করেন শিক্ষিকা ফারজানা আক্তার (৩২)।
ফারজানা রাজধানীর শ্যামলীতে অবস্থিত বিআইএসডিটি ফ্যাশন টেকনোলোজি কলেজে অধ্যাপনা করেন। মামলার আসামী বাবুও একই প্রতিষ্ঠানে পড়াশুনা করেন। বর্তমানে বাবু পলাতক।
গতকাল রোববার মিরপুর মডেল থানার প্রবেশন সাব-ইন্সপেক্টর (পিএসআই) সবুজ এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, বিআইএসডিটি ফ্যাশন টেকনোলোজির রিয়াজ হোসেন বাবু নামের এক ছাত্রের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা করেছেন ওই প্রতিষ্ঠানের শিক্ষিকা ফারজানা আক্তার। মামলা নম্বর ৪৯।
এজাহারে ফারজানা উল্লেখ করেন, গত ৯ সেপ্টেম্বর থেকে ১৭ ডিসেম্বর পর্যন্ত বাবু বিভিন্নভাবে তাকে মিথ্যা প্রলোভন দেখিয়ে, প্রেম করার কথা বলে তার মেসে নিয়ে ধর্ষণ করে। অভিযুক্ত রিয়াজ হোসেন বাবু বিআইএসডিটি’র মার্চেন্ডাইজিং বিভাগের ছাত্র। তিনি মিরপুরের ডি ব্লকের ৪ নম্বর রোডের ৭ নম্বর বাসায় থাকেন।
এদিকে আমাদের ঢামেক প্রতিনিধি জানান, বর্তমানে ওই শিক্ষিকাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে নিয়ে শারীরিক পরীক্ষা করানো হচ্ছে।
মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই আসাদ বলেন, বাবু বিভিন্নভাবে তাকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে মেসে নিয়ে ধর্ষণ করে। এরপর বাবুকে বিয়ের কথা বললে সে অস্বীকার করে।
এ বিষয়ে মিরপুর মডেল থানার ওসি (তদন্ত) মাঈনুল ইসলাম জানান, অভিযুক্ত রিয়াজ হোসেন বাবু বি আই এস ডি টি’র মার্চেন্ডাইজিং বিভাগের ছাত্র। তারই শিক্ষিকার সাথে প্রেম করার নাম করে মিথ্যা প্রলোভন দেখিয়ে বিভিন্ন সময় তার ম্যাচে নিয়ে তাকে ধর্ষণ করতো। তিনি জানান, বর্তমানে ওই শিক্ষিকাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে।



অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ