ঢাকা, শুক্রবার 16 November 2018, ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

উড়ন্ত বিমানে এক বাংলাদেশি নারীর সন্তান প্রসব

এয়ার এরাবিয়ার একটি বিমান শুক্রবার সকালে যখন ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে তখন অতিরিক্তি একজন যাত্রী বের হয়ে আসে। বিমানটি যখন মধ্যাকাশে তখন একটি কন্যা সন্তানের জন্মদেন এক বাংলাদেশি নারী। আজ শুক্রবার লেবানন থেকে ঢাকায় আসার পথে ইয়াসমীন আক্তার নামে ওই নারী এয়ার এরাবিয়া এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইট আকাশে থাকাকালীন সন্তানের জন্ম দেন। ইয়াসমীনের বাড়ি ব্রাক্ষ্মণবাড়িয়ার শ্রীপুরে। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন ঢাকা কাস্টমসের যুগ্ম কমিশনার কাজী জিয়াউদ্দিন। হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ জানায়, এয়ার এরাবিয়া এয়ারলাইন্সের জি৯ ফ্লাইটে করে লেবানন থেকে ঢাকায় আসছিলেন অন্তঃসত্তা ইয়াসমীন। বিমানবন্দরে পৌঁছনোর বেশ কিছুক্ষণ আগে ফ্লাইটটি আকাশে থাকাকালীন হঠাৎ প্রসব বেদনা অনুভব করেন তিনি। এসময় ফ্লাইট কর্তৃপক্ষ জরুরি ভিত্তিতে বিমানের ককপিটের পেছনে কাপড়ের ঘের দিয়ে একটি জায়গা বের করেন। সেখানেই একটি মেয়ে সন্তানের জন্ম দেন ইয়াসমীন। পরে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে শাহজালাল বিমানবন্দরে ফ্লাইটটি অবতরণের পর বিমানবন্দর ও সিভিল অ্যাভিয়েশন কর্তৃপক্ষ জরুরি ভিত্তিতে মা ও মেয়েকে উত্তরার জাহানারা ক্লিনিকে ভর্তি করেন। ক্লিনিকের ব্যবস্থাপক বাদশা মিয়া জানান, মা ও নবজাতক সুস্থ আছেন। ক্লিনিকের চিকিৎসক ডা. আকিল আহমেদের তত্ত্বাবধানে আছেন তারা। কাস্টমসের যুগ্ম কমিশনার কাজী জিয়াউদ্দিন বলেন, যাত্রী ইয়াসমীন খুব ভাগ্যবান। ইয়াসমীনের ভাই দিদার বলেন, তিন বছর আগে ইয়াসমীন লেবাননে যান। দুই বছর আগে লেবানন প্রবাসী নাসিমের সঙ্গে ইয়াসমীনের বিয়ে হয়। আজ সন্ধ্যায় তার দেশে ফেরার কথা। কিন্তু সে আগেই পৌঁছে গিয়েছে। দিদার জানান, ইয়াসমীন চেয়েছিলেন দেশে এসে সন্তানের জন্ম দিতে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ