ঢাকা, বৃহস্পতিবার 20 September 2018, ৫ আশ্বিন ১৪২৫, ৯ মহররম ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

এসএসসি ও সমমানের ১২ ফেব্রুয়ারির স্থগিত করা পরীক্ষা ১৩ মার্চ, ১ মার্চের পরীক্ষা ১৪ মার্চ

অনলাইন ডেস্ক : বিএনপি-জামায়াত নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের ডাকা হরতালের কারণে স্থগিত ঘোষিত ১২ ফেব্রুয়ারির এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা আগামী ১৩ মার্চ, শুক্রবার সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হবে।

আগামীকাল থেকে বিএনপি জোট আবার ৭২ ঘন্টার হরতাল ডাকায় কাল ১ মার্চের পরীক্ষা নতুন সূচী অনুযায়ী ১৪ মার্চ শনিবার সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত গ্রহণ করা হবে। আর ৩ মার্চের পরীক্ষা আপাতত স্থগিত ঘোষণা করা হয়েছে। পরে সুবিধাজনক সময়ে এ পরীক্ষার নতুন সূচী জানানো হবে।

আজ শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ তার হেয়ার রোডের বাসায় এক জরুরী সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দেন। এ সময় তার সঙ্গে শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সৃজনশীল মেধা অন্বেষণ ২০১৫ প্রতিযোগিতার ঘোষিত দেশব্যাপী সব কর্মসূচী ঠিক থাকবে উল্লেখ করে শিক্ষামন্ত্রী সংবাদ সম্মেলনে বলেন, শুধু রাজধানী ঢাকার আগামীকাল সকালের র‌্যালিটি হবে না।

তিনি বলেন, র‌্যালিটি আপাতত স্থগিত রাখা হয়েছে। পরে সুবিধাজনক সময়ে র‌্যালির কর্মসূচী পালন করা হবে।

নাহিদ বলেন, প্রায় ১৫ লাখ পরীক্ষার্থীর শিক্ষা জীবন যাতে ধ্বংস না হয়, এ জন্য বিএনপি-জামায়াত নেতৃত্বধীন ২০ দলীয় জোটের কাছে হরতাল না দেয়ার মানবিক আবেদন রেখেছিলাম। কিন্তু তারা সে আবেদনে কর্ণপাত করেনি।

তিনি বলেন, তাদের কাছে এমনও আবেদন করেছি, পরীক্ষার আগে ও পরে ২ ঘন্টা করে সময় দিয়ে পরীক্ষাকালীন সময়টুকু যেন হরতাল সিথিল করা হয়। এ আবেদনেও তারা সারা দেয়নি।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, এতে পরীক্ষার্থীদের পাশাপাশি তাদের অভিভাবকসহ পুরো দেশবাসী উদ্বেগ ও উৎকণ্ঠার মধ্যে রয়েছে। এর চেয়ে বড় উদ্বিগ্নের বিষয় হলো যে, কেউ নিরাপদ নয়। হরতাল ও অবরোধের নামে বিএনপি-জামায়াত জোটের এ সহিংসতায় সাধারণ মানুষ মৃত্যু ও পঙ্গুত্ববরণের আশঙ্কা নিয়ে চলাচল করছে।

তিনি বলেন, প্রাইমারী থেকে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যন্ত সর্বত্র লেখাপড়া প্রায় বন্ধ। নতুন বই নিয়েও ছেলেমেয়েরা পড়ালেখা শুরু করতে পারছে না। সহিংসতা তাদের ভীতি ও অনিশ্চয়তার মধ্যে ফেলে দিয়েছে। যা ভবিষ্যতে তাদের আত্মবিশ্বাসে ঘাটতি দেখা দেবে। তখন এর খেসারত দিতে হবে পুরো জাতিকে। হরতাল আহবানকারীরা এটা জেনেও বুঝতে চাচ্ছেন না।

শিক্ষামন্ত্রী আবারো ২০ দলীয় নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে হরতাল বন্ধের আহবান জানিয়ে বলেন, আজকের এ শিক্ষার্থীরাই আগামী ৩০/৪০ বছর বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দেবে। হরতাল ও নাশকতার কারণে তাদের আত্মবিশ্বাসে ঘাটতি দেখা দিলে তারা যোগ্য নেতৃত্বগুণ নিয়ে বড় হতে পারবে না। আশা করি দেশ ও জাতির স্বার্থে বিষয়টি উপলদ্ধির মাধ্যমে হরতাল প্রত্যাহার করে নেবেন।
- বাসস

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ