ঢাকা,বৃহস্পতিবার 15 November 2018, ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

বিধ্বস্ত বিমানের কো-পাইলটের মানসিক সমস্যা ছিল

অনলাইন নিউজ ডেস্ক : ফ্রান্সের আল্পস এলাকায় মঙ্গলবার বিধ্বস্ত জার্মানউইংসের বিমানটির কো-পাইলট নিজেই এ-৩২০ বিমানটি পর্বতের মধ্যে আছড়ে ফেলে তিনি নিজে সহ ১৫০ জন আরোহীর সবার মৃত্যু ঘটান।

তিনি কেন এ কাজ করেছেন তা এখনো জানা যায় নি। পুলিশ বলছে, তারা কিছু ক্লু পেয়েছেন ।

বলা হচ্ছে এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ আবিষ্কার, কিন্তু তা ঠিক কি সে সম্পর্কে বিস্তারিত কিছু জানানো হয় নি।

ফ্লাইট রেকর্ডারে পাওয়া তথ্য থেকে মনে হচ্ছে, বার্সেলোনা থেকে ডুসেলডর্ফগামী বিমানটির প্রধান পাইলট একবার ককপিট থেকে বেরিয়ে যাবার পরই মি. লুবিৎস ভেতর থেকে দরজা বন্ধ করে দেন এবং বিমানটি দ্রুতগতিতে নিচে মামিয়ে এনে পর্বতের ওপর আছড়ে ফেলেন।

এ নিয়ে এখন তদন্ত চলছে, এবং জানা যাচ্ছে যে ২০০৮ সালে মি. লুবিৎস মানসিক চিকিৎসার জন্য তার বিমান চালনার প্রশিক্ষণ মাঝপথে বন্ধ রাখতে বাধ্য হয়েছিলেন।
মি. লুবিৎস বিষণ্ণতায় ভুগছিলেন বলে মনে করা হচ্ছে।

বিমানের ধ্বংসাবশেষ
জার্মান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী টমাস জে মেইৎসিয়ার বলেছেন, নিরাপত্তা পরীক্ষায় পাইলটের ব্যাপারে অস্বাভাবিক কিছু পাওয়া যায় নি।

লুফৎহানসা বিমান সংস্থাও বলেছে, মি. লুবিৎস বিমান চালানার জন্য 'শতভাগ ফিট' ছিলেন।

এই ঘটনার পর বিমান সংস্থাগুলো উড়োজাহাজের ভেতরে নতুন নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা নিতে শুরু করেছে।

এর একটি হলো, বিমানের ককপিটে এখন থেকে সব সময়েই দু'জন লোক থাকতে হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ