ঢাকা, রোববার 18 November 2018, ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

ছাত্রলীগের সংঘর্ষে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ বন্ধ ঘোষণা

অনলাইন ডেস্ক : আধিপত্য বিস্তার নিয়ে বুধবার ভোরে রংপুর মেডিকেল কলেজের ডা. মুক্তা ছাত্রাবাসে ছাত্রলীগের দুই পক্ষের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে ১০ জন আহত হয়েছে। এ ঘটনায় রংপুর মেডিক্যাল কলেজ অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করেছে কর্তৃপক্ষ। নতুন বার্তা ডটকম।
বুধবার দুপুরে কলেজ বন্ধ ঘোষণার কথা জানান কলেজের অধ্যক্ষ ডা. জাকির হোসেন। 
পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে মঙ্গলবার রাতে ছাত্রলীগের দুই পক্ষের মধ্যে কথা-কাটাকাটি ও হাতাহাতি হয়। এরই জের ধরে ভোর সাড়ে পাঁচটার দিকে বহিষ্কৃত ছাত্রলীগ নেতা সরোয়ারের নেতৃত্বে একদল ছাত্রলীগ কর্মী আগ্নেয়াস্ত্র ও লাঠিসোঁটা নিয়ে ডা. মুক্তা ছাত্রাবাসে হামলা চালায়। এ সময় দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষে ১০ জন আহত হন।

আহতদের মধ্যে ছাত্রলীগ সভাপতি শহীদুজ্জামান শহীদ, তার ছোট ভাই আসাদ ও ছাত্রলীগ নেতা আসিক ফেরদৌসকে গুরুতর আহত অবস্থায় রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
 
সংঘর্ষের সময় ওই ছাত্রাবাসের ৩৭, ৩৮, ৩৯ ও ৪০ নম্বর কক্ষ ব্যাপক ভাঙচুর করে ল্যাপটপসহ অন্যান্য মালামাল লুট করা হয় বলে জানিয়েছে ছাত্রলীগ।

খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। পরে সেখানে বিপুলসংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করা হয়।

সংঘর্ষের ঘটনায় কলেজের একাডেমিক কমিটির বৈঠক হয়। সেখানে  রংপুর মেডিক্যাল কলেজ বুধবার থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা ও শিক্ষার্থীদের বেলা তিনটার মধ্যে হল ছেড়ে যাওয়ার নির্দেশ দেয়া হয়।

রংপুর মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ডা. জাকির হোসেন জানান, উদ্ভূত পরিস্থিতিতে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। শিক্ষার্থীদের বুধবার বেলা তিনটার মধ্যে হল ছেড়ে দেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল কাদের জিলানী জানান, উদ্ভূত পরিস্থিতিতে ক্যাম্পাসে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ