ঢাকা, বৃহস্পতিবার 20 September 2018, ৫ আশ্বিন ১৪২৫, ৯ মহররম ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

যৌন নিপীড়নের ঘটনায় জাবির ৮ শিক্ষার্থী বহিষ্কার

অনলাইন ডেস্ক : পহেলা বৈশাখে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের এক আদিবাসী শিক্ষার্থীকে যৌন নিপীড়ন করায় ৮ শিক্ষার্থীকে সাময়িক বহিষ্কার করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম।

উপাচার্য নিজ ক্ষমতার বলে এই সাময়িক বহিষ্কারাদেশ দিয়েছেন বলে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ডেপুটি রেজিস্ট্রার (শিক্ষা) মোহাম্মদ আলী বাংলানিউজকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, যৌন নিপীড়নের ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ৮ শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার করা হয়েছে। বিষয়টি যৌন নিপীড়ন বিরোধী সেলে তদন্তধীন থাকায় নীতিমালা অনুযায়ী বহিষ্কৃতদের নাম গোপন রাখা হয়েছে।

পহেলা বৈশাখে বিভাগের অনুষ্ঠান শেষে রাত ৮টার দিকে বিভাগের এক বন্ধুকে সঙ্গে নিয়ে প্রীতিলতা হলে ফিরছিলেন আদিবাসী এক ছাত্রী। ক্যাম্পাসের পরিবহন চত্বর সংলগ্ন চৌরঙ্গীতে আসার পর শহীদ সালাম বরকত হলের পাঁচ ছাত্রলীগ নেতাকর্মী কথা বলার অজুহাতে তাদের পথ রোধ করে।

এক পর্যায়ে তাদের একজন ওই ছাত্রীর ব্যাগ ছিনিয়ে নিয়ে পার্শ্ববর্তী জঙ্গলে ঢুকে যায়। পরে ব্যাগ উদ্ধারে গেলে যৌন হয়রানির শিকার হন। এ সময় তার মোবাইল ফোন ও ৫০০ টাকা ছিনিয়ে নেয় এবং সঙ্গে থাকা বন্ধুকেও মারধর করে।

পরদিন রাতে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা ওই ছাত্রীর হলে গিয়ে সমঝোতা চেষ্টা চালায়। সমঝোতা ব্যর্থ হলে ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীরা ওই ছাত্রীর এক বন্ধুর কাছে জোর করে মোবাইল ফোন ফেরত দিয়ে চলে আসে।

পরে বৃহস্পতিবার ওই ছাত্রী প্রক্টর এবং উপাচার্য বরাবর লিখিত অভিযোগ দিয়ে ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের শাস্তি দাবি করেন। অভিযোগটি যৌন নিপীড়নের হওয়ায় প্রক্টর এবং উপাচার্য উভয়েই অভিযোগটি বিশ্ববিদ্যালয়ের যৌন নিপীড়ন বিরোধী সেলে পাঠানো হয়।

উপাচার্য বরাবর অভিযোগ দিতে যাওয়া অর্থনীতি বিভাগের ৩৮তম ব্যাচের শিক্ষার্থী আতিয়া ফেরদৌসী চৈতি বলেন, আমরা উপাচার্য বরাবর লিখিত অভিযোগ দিয়েছি। তিনি অভিযোগটি যৌন নিপীড়ন বিরোধী সেলের সদস্য-সচিবের কাছে পাঠিয়েছেন। উপাচার্য দ্রুত এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত করে বিচার করার আশ্বাস দেন।

যৌন নিপীড়ন বিরোধী সেলের প্রধান অধ্যাপক রাশেদা আখতার বাংলানিউজকে বলেন, যৌন নিপীড়নের একটি অভিযোগ পেয়েছি। অভিযোগটি সেলের সদস্য সচিব রহিমা কানিজের কাছে পাঠানো হয়েছে। শনিবার ফাইল প্রস্তুত করে কাজ শুরু করা হবে।

যৌন নিপীড়নের ঘটনায় সম্পৃক্ততার অভিযোগে নিশাত ইমতিয়াজ বিজয়, নাফিজ ইমতিয়াজ, আবদুর রহমান ইফতি, রাকিব হাসান, নুরুল কবীরকে সাময়িক বহিষ্কার করেছেন বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগ।

এছাড়া বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় সংসদ এ ঘটনার যথাযথ বিচার ও দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেছেন।

এদিকে যৌন নিপীড়নের ঘটনার বিচারের দাবিতে প্রতিবাদী হয়ে উঠেছে ‘নিপীড়নের বিরুদ্ধে জাহাঙ্গীরনগর’ ব্যানারে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

নিপীড়কদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে ২০ এপ্রিল পর্যন্ত প্রশাসনকে আল্টিমেটাম দিয়েছে তারা। বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন জাবি সংসদ, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট জাবি শাখা, জাহাঙ্গীরনগর সাংস্কৃতিক জোটসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতারা এই আন্দোলনের সঙ্গে সম্পৃক্ত রয়েছেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ