ঢাকা, সোমবার 24 September 2018, ৯ আশ্বিন ১৪২৫, ১৩ মহররম ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

ব্রিটেন নির্বাচনে টিউলিপ, রূপা হক ও রুশনারা জিতেছেন

যুক্তরাজ্যের পার্লামেন্ট নির্বাচনে চমক দেখিয়ে প্রথমবার নির্বাচনে দাঁড়িয়েই এমপি নির্বাচিত হয়েছেন ৩২ বছর বয়সী টিউলিপ সিদ্দিক, যিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নাতনি, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভাগ্নি। লেবার পার্টির টিউলিপ ব্রিটিশ পার্লামেন্টে লন্ডনের হ্যাম্পস্টেড অ্যান্ড কিলবার্ন আসন থেকে জিতেছেন টিউলিপ।

অন্যদিকে লন্ডনের ইলিং সেন্ট্রাল ও একটনের লেবার দলীয় এমপি রূপা হক এমপি নির্বাচিত হয়েছেন। টানা দ্বিতীয়বারের মতো ব্রিটেনের এমপি নির্বাচিত হলেন রুশনারা আলি।

এই তিন বাংলাদেশি এমপি পদের জন্য লেবার দলের হয়ে পার্লামেন্ট নির্বাচনে অংশ নেন।

টিউলিপ রেজওয়ানা সিদ্দিক হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ে জয় পেয়েছেন। বিরোধী লেবার পার্টি থেকে লন্ডনের হ্যামস্টেড অ্যান্ড কিলবার্ন আসনে তার প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন কনজারভেটিভ দলের প্রার্থী সাইমন মার্কাস। টিউলিপ ভোট পেয়েছেন ২৩ হাজার ৯৭৭টি (৪৪ শতাংশ), সাইমন মার্কাস পেয়েছেন ২২ হাজার ৮৩৯টি (৪২ শতাংশ) ভোট।

অন্যদিকে লন্ডনের হ্যাম্পস্টেড অ্যান্ড কিলবার্ন আসন থেকে আরেক বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ব্রিটিশ লেবার পার্টির প্রার্থী রূপা হক পেয়েছেন ২২ হাজার ২ ভোট। আর ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভ পার্টির প্রার্থী এনজি ব্রে পেয়েছেন ২১ হাজার ৭০১ ভোট। রূপা তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী টোরি দলীয় প্রার্থীর চেয়ে প্রায় এক হাজার ভোট বেশি পেয়েছেন। এর মধ্য দিয়ে গতবার কনজারভেটিভ পার্টির কাছে হারানো ইলিং সেন্ট্রাল অ্যান্ড অ্যাকটন আসনটি পুনরুদ্ধার করল লেবার পার্টি।

আসনটি এবার লেবার পার্টির অন্যতম ‘টার্গেট সিট’ ছিল। এবারের সাধারণ নির্বাচনে লন্ডনে তুমুল প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ১০টি আসনের মধ্যে দ্বিতীয় অবস্থানে ছিল রুপার আসনটি। এ কারণে এই আসনের প্রতি গণমাধ্যমসহ সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের দৃষ্টি ছিল ভিন্ন, সংশ্লিষ্ট প্রার্থীদের চ্যালেঞ্জও ছিল অন্য রকম।

ব্রিটেনের পার্লামেন্ট সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হওয়া রূপা হক দ্বিতীয় বাংলাদেশি। গতবারের নির্বাচনে (২০১০ সাল) জয়ী হয়ে ব্রিটিশ পার্লামেন্টে এমপি হন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত রুশনারা আলী। দ্বিতীয়বারের মতো নির্বাচিত হয়েছেন তিনি। পূর্ব লন্ডনের বেথনাল গ্রিন অ্যান্ড বো আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করা রুশনারা লেবার পার্টির পক্ষে ৩২ হাজার ৮শ’ ৮৭ ভোট পেয়েছেন। তার পক্ষে ভোট পড়েছে ৬১ শতাংশ। রুশনারার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী কনজারভেটিভ পার্টির ম্যাথিউ স্মিথ পেয়েছেন ৮ হাজার ৭০ ভোট। সূত্র: বাংলাট্রিবিউন

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ