ঢাকা, সোমবার 24 September 2018, ৯ আশ্বিন ১৪২৫, ১৩ মহররম ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

ব্যয়বহুল শহর লুয়ান্ডা, ঢাকার অবস্থান ৬৩

দক্ষিণ আফ্রিকার দেশ অ্যাঙ্গোলার রাজধানী লুয়ান্ডা বিশ্বের মধ্যে সবচেয়ে ব্যয়বহুল শহর প্রবাসীদের জন্য। প্রবাসীদের জন্য বিশ্বের ব্যয়বহুল শহরের তালিকায় ঢাকার অবস্থান উঠে এসেছে ৬৩-তে।
যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক পরামর্শক প্রতিষ্ঠান মার্সার বলছে, লুয়ান্ডার উচ্চ বাড়ি ভাড়া, আমদানি করা পণ্য এবং নিরাপত্তার জন্য তেলসমৃদ্ধ শহরটি গত তিন বছর ধরে ব্যয়বহুল শহরের তালিকায় প্রথম স্থানে রয়েছে।
হংকং এই তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে এবং সিঙ্গাপুর রয়েছে চতুর্থ অবস্থানে। মার্সার এই জরিপ গত দুই দশকের বেশি সময় ধরে করে আসছে।
অন্যদিকে গত বছর ঢাকার অবস্থান ছিল ১১৭তম। অর্থাৎ এক বছরে ব্যয়ের দিক থেকে ঢাকা এগিয়েছে ৫৪ ধাপ যার অর্থ দাঁড়ায়, গত এক বছরে ঢাকায় জীবনযাত্রার ব্যয় বেড়েছে অনেক বেশি।
এক সময় এই জরিপের তথ্য বিভিন্ন দেশের সরকার ও বহুজাতিক কোম্পানিগুলো ব্যবহার করতো। কারণ যারা দেশের বাইরে কাজ করে তাদের বেতন নির্ধারণ করার ক্ষেত্রে এই জরিপের ফলাফল তারা কাজে লাগাতো।
মার্কার নামের গবেষণা প্রতিষ্ঠান গত মঙ্গলবার তাদের গবেষণার ফল প্রকাশ করেছে। বিশ্বের ২০৭টি শহরের ওপর দুইশটি আইটেমকে ভিত্তি ধরে ওই গবেষণা পরিচালনা করা হয়। আদর্শ শহর হিসেবে ধরা হয় যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ককে।
কস্ট অব লিভিং সার্ভে শিরোনামের ওই বাৎসরিক প্রতিবেদন অনুযায়ী ১০টি ব্যয়বহুল শহরের তালিকায় হংকং ছাড়া এশিয়ার অন্য যে চারটি শহর রয়েছে সেগুলো হলো—সিঙ্গাপুর, শাংহাই, বেইজিং ও সিউল।
চীনে ডলারের বিপরীতে দেশটির মুদ্রা ইউয়ানের মান বেড়ে যাওয়ায় জীবনযাত্রার ব্যয় বেড়ে গেছে বলে এক বিবৃতিতে উল্লেখ করেছেন মার্কারের নির্বাহী নাথালি কনস্ট্যান্টিন মেটারাল। অন্যদিকে, জাপানে মুদ্রার মান পড়ে যাওয়ায় দেশটির রাজধানী টোকিওর অবস্থান চলে গেছে ১১ নম্বরে। যার অবস্থান গত বছর ছিল ৭ নম্বরে এবং ২০১২ সালে ছিল এক নম্বরে।
পশ্চিম ইউরোপের শহরগুলোর র‌্যাঙ্কিং পড়ে যাওয়ার কারণ হলো ইউরোর মান কমে যাওয়া। প্রথম ১০টি শহরের তালিকায় পশ্চিম ইউরোপের জুরিখ, জেনেভা ও বার্নের নাম রয়েছে।-ওয়েবসাইট


অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ