ঢাকা,মঙ্গলবার 13 November 2018, ২৯ কার্তিক ১৪২৫, ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

৬৪ সেনা নিহতের জেরে ব্রাদারহুডের ৯ নেতাকে হত্যা

মিশরে ২০১৩ সালের সেনা অভ্যুত্থানের পর বুধবার দেশটি আবার রক্তের বন্যায় ভেসেছে। গতকাল এক দিনেই দেশটিতে নিহত হয়েছে ৬৪ সেনাসহ প্রায় পৌনে দুশ’ লোক।
এদিকে গত কয়েক দশকের মধ্যে বুধবার ইসলামী জঙ্গিদের সবচেয়ে ভয়াবহ হামলার পর স্বৈরশাসক আবদেল ফাত্তাহ আল-সিসির সরকার কার্যত উন্মাদের আচরণ শুরু করেছে।
উত্তরাঞ্চলীয় সিনাই উপত্যকায় ইসলামিক স্টেটের ওই হামলায় অন্তত ৬৪ মিশরীয় সেনা নিহত হওয়ার কথা নিশ্চিত করেছে মিশর সরকার।
১৯৭৩ সালে আরব-ইসরাইল যুদ্ধের পর কোনো লড়াইয়ে মিশরের এতো বেশি সৈন্য আর মারা যায়নি। খবর এপির।
তবে সরকারের দাবি পাল্টা আক্রমণে সিনাইয়ে ১০০ ইসলামী জঙ্গি নিহত হয়েছেন।
এদিকে বুধবারের ওই ঘটনার পর  মিশরের বিশেষ বাহিনী কায়রোর একটি ভবনে অভিযান চালিয়ে সেখানে অবস্থানরত মুসলিম ব্রাদারহুডের ৯ নেতাকে হত্যা করেছে। এর মধ্যে ব্রাদারহুডের একজন সাবেক এমপিও রয়েছেন।
মিশরের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে এ খুনের কথা স্বীকার করেছে। তবে মুসলিম ব্রাদারহুড একে ‘ঠাণ্ডা মাথার খুন’ আখ্যা দিয়ে তাদের ভাষায় ‘কসাই’ সিসির বিরুদ্ধে বিদ্রোহের জন্য মিশরীয় জনগণের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে।
এক বিবৃতিতে ব্রাদারহুড বলেছে, যে নয়জনকে হত্যা করা হয়েছে তারা মিশরের রাজনৈতিক বন্দি ও শহীদদের পরিবারকে সহায়তার কাজে নিয়োজিত ছিলেন। বুধবার তাদের বাসায় অভিযান চালিয়ে কোনো তদন্ত বা অভিযোগ ছাড়াই ঠাণ্ডা মাথায় পরিবারের সদস্যদের সামনেই তাদের হত্যা করা হয়।
মিশরের নিপীড়ক ও জালিম শাসকদের আস্তানা ভেঙে ফেলার জন্য জনগণের  প্রতি আহ্বান জানিয়েছে মিশরের বৃহত্তম এই  রাজনৈতিক দলটি।-আরটিএনএন



অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ