ঢাকা, বুধবার 19 September 2018, ৪ আশ্বিন ১৪২৫, ৮ মহররম ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

রাবিতে ৩ শিবির কর্মীকে রাতভর নির্যাতন করল ছাত্রলীগ

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শহীদ জিয়াউর রহমান আবাসিক হলে পরিকল্পিতভাবে ছাত্রশিবিরের নেতা-কর্মীদের উপর হামলা করেছে ছাত্রলীগ।

শনিবার গভীর রাত থেকে ভোর পর্যন্ত ছাত্রলীগের ক্যাডাররা পুলিশের সামনেই সশস্ত্রভাবে বিভিন্ন কক্ষে গিয়ে শিবির সন্দেহে মারধর ও ভাঙচুর চালায়। এসময় হলের সাধারণ শিক্ষার্থীদের মধ্যে শ্বাসরুদ্ধকর অবস্থার সৃষ্টি হয়। পরে ভোরে হল প্রশাসনের সহায়তায় পরিবেশ কিছুটা শান্ত হয়। তবে ছাত্রলীগের দাবি, শিবির ক্যাম্পাসে অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টির পাঁয়তারা করছে, তাই আমরা তাদেরকে আটক করে পুলিশে সোর্পদ করেছি।

এদিকে ছাত্রলীগের হাতে নির্যাতনের শিকার অর্থনীতি বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী তানজীল আহমেদ ও পরিসখ্যান বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের রাতুল আহমেদ আপনকে পুলিশ আটক করে। এছাড়া পুলিশ শিবির সন্দেহে আরবি বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী এনায়েতকেও আটক করে।

হল সূত্রে জানা যায়, শনিবার রাত ২টার দিকে ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা পরিকল্পিতভাবে শিবির ধরতে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি আতিকুর রহমান সুমনের নেতৃত্বে¡ পুলিশের সামনেই লেহার-রড ও দেশীয় অস্ত্র-সস্ত্র নিয়ে মহড়া দেয়। এসময় সুমনের নেতৃত্বে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের গণযোগাযোগ বিষয়ক সম্পাদক আজহারুল ইসলাম শাওন, হল ছাত্রলীগের সভাপতি প্রার্থী ও রসায়ন বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী ইমাম মেহেদীসহ ৫-৭ জন ২২৪ নম্বর কক্ষে গিয়ে অর্থনীতি বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ও শিবির কর্মী তানজীল আহমেদকে জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে তাকে লোহার রড, লাঠি-সোঠা দিয়ে পিটিয়ে আহত করে। পরে রাত ৩টার দিকে ভূ-তত্ত্ব ও খনিবিদ্যা বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী আশিককে ২১০ নম্বর কক্ষ থেকে ও পরিসখ্যান বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী আপনকে ২২৪ নম্বর কক্ষে নিয়ে আটকে রাখা হয়। তাদের তিনজনকে প্রায় দুই ঘণ্টা যাবৎ আটকে রেখে লোহার রড দিয়ে আঘাতসহ ব্যাপকভাবে নির্যাতন করে।

এছাড়া হলে শিবির খুঁজতে পুলিশের সামনেই ছাত্রলীগের ক্যাডাররা লেহার রড, লাঠি ও অস্ত্র নিয়ে মহড়া দিতে থাকে। তারা ৪১৯, ৪২৮ ও ৪২৯ নম্বরসহ বিভিন্ন কক্ষের দরজা-জানালায় ভাঙচুর করে। এদিকে রাত ২টা থেকে ভোর পর্যন্ত হলের সাধারণ শিক্ষার্থীদের মধ্যে শাসরুদ্ধকার অবস্থার সৃষ্টি হয়। পরে ভোর বেলা হল প্রশাসনের সহায়তায় হলের পরিবেশ শান্ত হয়। এসময় ছাত্রলীগের হাতে নির্যাতনের শিকার শিবিরের তিন কর্মীকে পুলিশ আটক করে। 

এ ব্যাপারে রাবি শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি মিজানুর রহমান রানা বলেন, অনেক আগে থেকেই জিয়াউর রহমান হলের শিবির ছাত্রলীগ কর্মীদের হুমকি দিয়ে আসছিল। এমনকি নবীন শিক্ষার্থীদের দলে আনার জন্য বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন করছিল। বিশ^বিদ্যালয়ে যাতে কোন জঙ্গি সংগঠন গড়ে উঠতে না পারে সে ব্যাপারে ছাত্রলীগ সর্বদা তৎপর রয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয় শাখা শিবিরের প্রচার সম্পাদক আব্দুল্লা হিল কাফি বলেন, ছাত্রলীগ ক্যাডাররা রাতের আধারে হঠাৎ শহীদ জিয়াউর রহমান হলের বিভিন্ন কক্ষে গিয়ে হামলা চালায়। পুলিশের সহায়তায় কয়েক জন শিক্ষার্থীকে রুমে আটকে রেখে রাতভর নির্যাতন করে ছাত্রলীগ। বিশ^বিদ্যালয়ের প্রশাসনের কাছে কর্মীদের নির্যাতনের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানায় ছাত্রশিবির।

এ ব্যাপারে হল প্রভোস্ট প্রফেসর নারায়ন রায় বলেন, রাতে শিবির-ছাত্রলীগের মধ্যে একটু ঝামেলা হয়েছিল। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে শিবিরের কয়েকজনকে আটক করে থানায় নিয়ে গেছে বলে জানান তিনি।

আটকের বিষয়টি স্বীকার করে মতিহার থানার (ওসির) দায়িত্বে থাকা অশোক চৌহান বলেন, শহীদ জিয়াউর রহমান হল থেকে তিন জনকে আটক করা হয়েছে। তারা তিনজনই শিবিরের সঙ্গে জড়িত। জিজ্ঞাসাবাদের ভিত্তিতে তাদের ব্যাপারে পরে ব্যবস্থা নেয়া হবে।-শীর্ষনিউজ ডট কম

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ