ঢাকা,বুধবার 14 November 2018, ৩০ কার্তিক ১৪২৫, ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

একাদশে ভর্তি আবেদনের সময় বাড়লো আরও ২ ঘণ্টা

অনলাইন ডেস্ক: একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির জন্য শিক্ষার্থীদের আবেদনের সময় আরও দুই ঘণ্টা বাড়ানো হয়েছে। শুক্রবার (১০ জুন) বেলা ১২টা পর্যন্ত শিক্ষার্থীরা আবেদন করতে পারবে বলে জানিয়েছে ঢাকা শিক্ষা বোর্ড।

টাকা জমা দেওয়া ও আবেদনের নির্ধারিত সময় ৯ জুন রাত ১১টা ৫৯ মিনিট ৫৯ সেকেন্ড থাকলেও প্রথমে তা ১০ ঘণ্টা বাড়ানো হয়। পরবর্তিতে আরো দুই ঘণ্টা বাড়িয়ে ১২টা পর্যন্ত করা হয়েছে।

ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের সিনিয়র সিস্টেম অ্যানালিস্ট প্রকৌশলী মো. মানজুরুল কবীর জানান, বেলা ১২টা পর্যন্ত আবেদন সাবমিট করা যাবে। ১০টা পর্যন্ত টাকা জমা নেওয়া হয়েছে।

সকাল ১০টা পর্যন্ত ১৩ লাখ ৮০৬টি আবেদন জমা পড়েছে বলে জানান মানজুরুল কবীর। তিনি বলেন, এ সময়ে আরও কিছু আবেদন জমা পড়বে বলে আশা করেন তিনি।

গত ২৬ মে থেকে অনলাইন এবং এসএমএসে ভর্তির আবেদন গ্রহণ শুরু করে আন্তঃশিক্ষা বোর্ড। শিক্ষার্থীরা টেলিটক মোবাইল ফোনে এসএমএস এবং অনলাইনে (www.xiclassadmission.gov.bd) ভর্তির জন্য আবেদন করছেন।

প্রথম দিন টেলিটকের এসএমএস পাঠানোর পর ফিরতি এসএমএস দেরিতে আসায় বিড়ম্বনায় পড়েছিলেন প্রার্থীরা। পরবর্তীতে সমস্যা কাটিয়ে উঠে কর্তৃপক্ষ।

এবার একজন প্রার্থীর একাধিক আবেদন ঠেকাতে আগেই পেমেন্ট নেওয়া হয়। গতবছর পরে টাকা নেওয়ায় অনেকে ভুয়া আবেদন করেছিল।

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ এবং ইনস্টিটিউট অব ইনফরমেশন অ্যান্ড কমিউনিকেশন টেকনোলজি (আইআইসিটি) ভর্তি প্রক্রিয়ায় ঢাকা শিক্ষা বোর্ডকে সহায়তা করছে।

অনলাইন এবং এসএমএস করে একজন শিক্ষার্থী সর্বোচ্চ ২০টি প্রতিষ্ঠানে আবেদন করতে পারবেন। তবে যেকোনো মাধ্যমে ১০টির বেশি আবেদন গ্রহণযোগ্য হবে না।
 
অনলাইনে আবেদনে মাত্র ১৫০ টাকা ফি দিয়ে ১০টি কলেজে আবেদন করা গেলেও এসএমএসে প্রতি কলেজের জন্য ফি লাগবে ১২০ টাকা।

নির্ধারিত সূচি অনুযায়ী, আগামী ১৬ জুন প্রথম মেধা তালিকা প্রকাশ করা হবে। ১৮ থেকে ২২ জুন পর্যন্ত আসনের বিপরীতে নির্বাচিত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভর্তি করা যাবে। আর অপেক্ষমাণ তালিকা থেকে ভর্তি চলবে ২৩-৩০ জুন পর্যন্ত।

২০১৫-২০১৬ শিক্ষাবর্ষে একাদশ শ্রেণির ক্লাস শুরু হবে আগামী ১০ জুলাই। বিলম্ব ফি দিয়ে আগামী ১০-২০ জুলাই পর্যন্ত ভর্তি হওয়া যাবে।

আবেদনের ক্ষেত্রে বায়োমেট্রিক ভেরিফিকেশন সম্পন্ন সিম ব্যবহার করতে হবে বলে আগেই জানিয়েছে ঢাকা শিক্ষা বোর্ড।
 
৫টি কলেজে পছন্দের সুযোগ রেখে গত বছর প্রথমবার অনলাইন ও এসএমএসের মাধ্যমে ভর্তি প্রক্রিয়া শুরু করে ঝামেলা সৃষ্টি হয়। এবার প্রথমে ১০টি ও পরবর্তীতে ২০ প্রতিষ্ঠান পছন্দের সুযোগ করে দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

গত ১১ মে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফল প্রকাশিত হয়, যাতে ১৬ লাখ ৪৫ হাজার ২০১ জন অংশ নিয়ে উত্তীর্ণ হয়েছেন ১৪ লাখ ৫২ হাজার ৬০৫ জন। পাসের হার ৮৮.২৯ শতাংশ। এবার মোট জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ লাখ ৯ হাজার ৭৬১ শিক্ষার্থী।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ