ঢাকা, বুধবার 5 October 2016 ২০ আশ্বিন ১৪২৩, ৩ মহররম ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

ঝুঁকিপূর্ণ ভবনে ক্লাস করছে শিক্ষার্থীরা

মোরেলগঞ্জ (বাগেরহাট) সংবাদদাতা : মোরেলগঞ্জ উপজেলার পশ্চিম জিউধরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ঝুঁকিপূর্ণ ভবনে ক্লাশ করছে। সংস্কারের অভাবে দীর্ঘদিন যাবৎ দৈন্যদশায় পড়ে আছে ভবনটি। রয়েছে আসবাবপত্রের সমস্যা। 
১৯৯০ সালে এ বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠিত। ১৯৯৮-৯৯ অর্থবছরে ৫ লক্ষ ৯ হাজার টাকা বিদ্যালয়টি নির্মিত হয়। ত্রুটিপূর্ণ নির্মাণের কারণে কয়েক বছর যেতে না যেতেই পলেস্তরা খসে খসে পড়তে থাকে। লেট্রিন বাথরুম অনেক আগেই ব্যবহারের অনুপযোগী হয়ে পড়ে আছে। অত্র বিদ্যালয়ে রয়েছে ২৭৬ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে উপবৃত্তি প্রাপ্ত শিক্ষার্থী রয়েছে ২৪২ জন। একদিকে  যেমন বিদ্যালয়টি ঝুঁকিপূর্ণ অপরদিকে রয়েছে বেঞ্চ আসবাবপত্র সহ পয়ঃনিষ্কাশনের সমস্যা। এ ভবনে ১ম,৩য় ও ৫ম শ্রেণীর শিক্ষার্থীরা এ ভবনে ক্লাশ করে। একটি রুম ব্যবহারের অনুপযোগী। সে রুমটিতে বসবাস করেন বিদ্যালয়ের অস্থায়ীভাবে নিয়োগকৃত একজন শিক্ষক।
এ বিদ্যালয়ে প্রাঙ্গণে অপর একটি ভবন রয়েছে। যা সাইক্লোন সেল্টার কাম বিদ্যালয় হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে। যেখানে বিদ্যালয়ের অফিসরুম সহ প্রাক-প্রাথমিক ,২য় ও ৪র্থ শ্রেণীর শিক্ষার্থীরা ক্লাশ করে। এটি ২০০৭-২০০৮ অর্থ বছরে এলজিআরডি’র বাস্তবায়নে ৩১ লক্ষ ৫৫ হাজার লক্ষ টাকা ব্যয়ে নির্মিত হয়।
প্রধান শিক্ষিকা খাজিন্তা আকতার জানান, এ ভবনের ফ্লোরের প্লাষ্টার উঠে গেছে। স্লিপের ৪০ হাজার টাকা দিয়ে ফ্লোরের কাজ করানো হয়েছে। তাছাড়াও বিদ্যালয়টি বাজার সংলগ্ন হওয়ায় বাউন্ডারি ওয়াল প্রয়োজন। শিক্ষিকা শাহনাজ সুলতানা, আকলিমা খানম জানান, নতুন ভবনে শিক্ষার্থীদের স্থান সংকুলান না হওয়ায় পুরাতন ভবনে শিক্ষার্থীদের ক্লাশ করাতে হচ্ছে।
উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ আনিছুর রহমান বলেন, ঝুঁকিপূর্ণ সকল প্রতিষ্ঠানের তালিকা দেয়া হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ