ঢাকা, বুধবার 5 October 2016 ২০ আশ্বিন ১৪২৩, ৩ মহররম ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

হঠাৎ করেই ক্ষমতাসীন আ’লীগের পতন ঘটবে -গয়েশ্বর চন্দ্র রায়

গতকাল মঙ্গলবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে অল কমিউনিটি ফোরামের উদ্যোগে মরহুম হান্নান শাহ স্মরণে আয়োজিত শোক সভায় বক্তব্য পেশ করেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য বাবু গয়েশ্বর চন্দ্র রায় -সংগ্রাম

স্টাফ রিপোর্টার : হঠাৎ করেই ক্ষমতাসীন আ’লীগের পতন ঘটবে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়। তিনি বলেন, ৯০-এর আন্দোলন তেমন শক্তিশালী ছিল না। কিন্তু ওই আন্দোলনে স্বৈরাচার এরশাদ সরকারের পতন হয়েছে। সুতরাং বর্তমান সরকারও যেকোন সময় হঠাৎ করে পড়ে যাবে। কারণ বর্তমান সরকারের ভিত্তি শক্ত নয়। এছাড়া সরকার ব্যর্থ হয় কিন্তু আন্দোলন কখনো ব্যর্থ হয় না।
গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাবে অল কমিউনিটি ফোরাম আয়োজিত হান্নান শাহ’ স্মরণে এক শোক সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন। আয়োজক কমিটির সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার আশরাফ উদ্দীন বকুলের সভাপতিত্বে শোকসভায় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আহমেদ আজম খান, চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা হাবিবুর রহমান হাবিব, মরহুম হান্নান শাহর পুত্র রিয়াজুল হান্নান, জাতীয়তাবাদী দেশ বাঁচাও মানুষ বাঁচাও আন্দোলনের সভাপতি কে এম রকিবুল ইসলাম রিপন, ওলামা দলের নেতা শাহ মো. মাসুম বিল্লাহ প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।
সংস্কারপন্থীদের সমালোচনা করে গয়েশ্বর বলেন, বিএনপি চেয়ারপার্সনের পাশে এখন যারা আছেন তারা কি সবাই সঠিক? তারা কি সবাই ভালো? তিনি বলেন, বেগম জিয়া যদি সঠিক মানুষ চিনতে ভুল করেন তাহলে বিএনপির সামনে আরও বড় বিপদ আছে।
১/১১’র ষড়যন্ত্রকারীরা আবারও খালেদা জিয়াকে ছোবল দেওয়ার চেষ্টা করছে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করে তিনি বলেন, ১/১১ বেগম জিয়ার অভিজ্ঞতা সঞ্চয়ের সময়। এটার মধ্যে দিয়ে তিনি বুঝতে পেরেছেন কে প্রকৃত বন্ধু ও শত্রু। তবে এই অভিজ্ঞতা অর্জন করতে তাকে অনেক মাসুল দিতে হয়েছে। এখন হান্নান শাহ’র মত আমার মনেও প্রশ্ন, বিএনপি চেয়ারপার্সন আসল ও নকল চিনতে পেরেছেন। এখন যারা আছেন সবাই কি সৎ মানসিকতা নিয়ে রাজনীতিতে এসেছেন। নাকি আরেকটা ছোবলের জন্য অপেক্ষা করছে। ১/১১’র ষড়যন্ত্রকারীদের প্রতি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে তিনি বলেন, যারা  বিএনপির সাবেক মহাসচিব মান্নান ভূঁইয়ার নেতৃত্বে ছিলেন তাদের সবাইকে চিনি। তবে এখন আর চিনতে চাই না।
নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্য করে বিএনপির এ নেতা বলেন, ১/১১’র মঈনউদ্দিন-ফখরুদ্দিন  সরকার নেই। তবে সেই ষড়যন্ত্র চলমান আছে। তাদের কার্যক্রম বর্তমান সরকার পরিচালনা করছে। আর এটা বাস্তবায়ন করার দায়িত্ব পড়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপর। গয়েশ্বর চন্দ্র বলেন, গুম-খুুন করে বর্তমান অবৈধ সরকার যে রাজত্ব করছে আমার মনে হয় কখন যেন হঠাৎ পড়ে যায়। কারণ এই সরকারের কোনো মৌলিক ফাউন্ডেশন নেই।
হান্নান শাহর স্মৃতিচারণ করে তিনি বলেন, বিএনপির পক্ষে ঝুঁকি নিয়ে প্রতিপক্ষকে আক্রমণাত্মক কথা বলতে কখনও কার্পণ্য বোধ করতেন না হান্নান শাহ। জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত তিনি বিএনপির জন্য কাজ করেছেন। যারা কিছু পাওয়ার আশায় আন্দোলন করে তাদের দ্বারা কখনও আন্দোলন সম্ভব নয়। হান্নান শাহ কখনও কিছু পাওয়ার জন্য আন্দোলন করেননি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ