ঢাকা, বুধবার 21 November 2018, ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ১২ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

এশিয়ায় ছড়িয়ে পড়ছে জিকা ভাইরাস: ডব্লিউএইচও

অনলাইন ডেস্ক: এশিয়ায় মশাবাহিত ভয়ংকর জিকা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ছে বলে জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ওয়ার্ল্ড হেলথ অর্গানাইজেশন (ডব্লিউএইচও)।

ব্রাজিল থেকে শুরু করে লাতিন আমেরিকার অধিকাংশ দেশে ত্রাস সৃষ্টির পর এখন এশিয়ায় এই ভয়ংকর ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার আশংকা করছে বিশ্বের সর্বোচ্চ স্বাস্থ্য বিষয়ক সংস্থাটি

গতকাল সোমবার বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এরই মধ‌্যে সিঙ্গাপুরে কয়েকশ মানুষের দেহে জিকা ভাইরাস সংক্রমণের তথ‌্য‌ এসেছে। থাইল‌্যান্ডে জিকা সংক্রমণের কারণে অপুষ্ট মাথা নিয়ে শিশু জন্মের অন্তত দুটি ঘটনা ঘটেছে।

গত বছর ব্রাজিল ও আশেপাশের দেশগুলোতে জিকার প্রাদুর্ভাব দেখা দেওয়ার পর এ বছর ফেব্রুয়ারিতে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জিকার কারণে বিশ্বজুড়ে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করে।

গত মার্চে বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হয়, চট্টগ্রামের এক ব্যক্তির রক্তের পুরনো নমুনায় জিকা ভাইরাসের অস্তিত্ব পেয়েছে জাতীয় রোগ পর্যবেক্ষণকারী সংস্থা আইইডিসিআর। তবে জিকার বিষয়টি জানার আগেই তিনি সুস্থ‌ হয়ে ওঠেন।

এ পর্যন্ত বিশ্বের ৭০টি দেশে জিকা ভাইরাস সংক্রমণের বিষয়ে নিশ্চিত হওয়া গেছে। এর মধ‌্যে ১৯টি দেশ এশিয়া-প্রশান্তমহাসাগরীয় অঞ্চলের।

ফিলিপিন্সের ম‌্যানিলায় বিশ্ব স্বাস্থ‌্য সংস্থার বার্ষিক সভায় এর মহাপরিচালক মার্গারেট চান বলেছেন, বিজ্ঞানীরা এখনও এই ভাইরাসকে ঠেকানোর পথ খুঁজছেন। দুর্ভাগ‌্যজনক বিষয় হল, তারা এখনও অনেক জটিল প্রশ্নের উত্তর জানতে পারেননি।

এমনিতে জিকা ভাইরাস প্রাণঘাতী না হলেও গর্ভবতী নারীদের ক্ষেত্রে এর ফল হতে পারে মারাত্মক। তার শিশুর জন্ম হতে পারে অপুষ্ট মস্তিষ্ক বা বড় ধরনের ত্রুটি নিয়ে।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এ ভাইরাস ঠেকাতে হলে মশা নিয়ন্ত্রণে জোর দিতে হবে। আর এ কাজটি করতে হবে প্রতিটি বাড়িতে বাড়িতে; কারণ এডিস মশা ঘরের মধ্যে ফুলদানি বা পাত্রে জমানো পরিষ্কার পানিতে বংশবিস্তার করে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ