ঢাকা, বুধবার 19 October 2016 ৪ কার্তিক ১৪২৩, ১৭ মহররম ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

ঢামেক হাসপাতালে জোড়া লাগানো দুই শিশুর চিকিৎসায় বোর্ড গঠন

স্টাফ রিপোর্টার: ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ছয় দিনের ব্যবধানে দুটি জোড়া লাগানো শিশু ভর্তি হয়, যার একজনের বয়স বিশ দিন। অপরজনের বয়স চার দিন। গাইবান্ধা জেলার সুন্দরগঞ্জ থেকে আসা শিশুটি জন্ম নেয় গত ২৯শে সেপ্টেম্বর। মা শাহিদা বেগম এই জোড়া মেয়ে শিশুর জন্ম দেন। অবস্থা খারাপ হলে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে। পরে সবার সহযোগিতায় ৮ই অক্টোবরে ঢামেক হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। এরপর ১৪ অক্টোবর রাত তিনটার দিকে কেরাণীগঞ্জ থেকে জোড়া লাগানো একটি ছেলে শিশুকে ভর্তি করেন এক চিকিৎসক। বর্তমানে শিশুগুলো নবজাতক আইসিইউতে ভর্তি আছে।
এ বিষয়ে দায়িত্বপ্রাপ্ত অধ্যাপক ডা. মনীষা ব্যানার্জী বলেন, দুটি শিশুই প্রথমে শিশু সর্জারির ২০৫ নং ওয়ার্ডে ভর্তি হয়। পরে ইনফেকশন দেখা দেওয়ায় বর্তমানে এনআইসিইউতে ভর্তি করা হয়েছে। গাইবান্ধা থেকে আসা শিশুর অবস্থা ভালো হলেও কেরাণীগঞ্জ থেকে আসা শিশুর অবস্থা ভাল না।
জানা গেছে, কেরাণীগঞ্জের একটি হাসপাতালে কুলসুমা নামের এক নারী জোড়া লাগানো শিশুসহ আরও একটি শিশুর জন্ম দেন। পরের শিশুটি সুস্থ থাকায় জোড়া লাগানো শিশুকে রেখে পালিয়ে যায়। পরে সেখানকার একজন ডাক্তার শিশুটিকে ঢামেক হাসপাতালে ভর্তি করেন। শিশু সার্জারি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. সাহনুর ইসলাম বলেন, তাকে প্রধান করে সোমবার ১২ সদস্যের একটি মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়েছে। বোর্ডের সদ্ধান্ত অনুযায়ী তাদের চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। মেয়ে শিশু দুটির পেছন দিকে জোড়া লাগানো এবং দুজনেরই দুই হাত দুই পা আছে। ইনফেকশন কম আছে, পরীক্ষা নিরীক্ষা চলছে। উন্নতি হলেই তার অপারেশন করা হবে। কিন্তু ছেলে শিশুটির কাঁধ থেকে পুরো শরীর জোড়া লাগানো। তার শরীরে ইনফেকশন বেশি। তার অবস্থা ভাল না। তারও পরীক্ষা-নিরীক্ষা চলছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ