ঢাকা, শনিবার 22 October 2016 ৭ কার্তিক ১৪২৩, ২০ মহররম ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

ফিলীস্তিনী কিশোরকে হত্যা করলো ইসরাইলী বাহিনী

২১ অক্টোবর, আলজাজিরা : দখলকৃত পশ্চিমতীরে আবারও ইসরাইলী বাহিনীর গুলীতে এক ফিলিস্তিনী কিশোর নিহত হয়েছে। টহলরত সেনা সদস্যদের ওপর পাথর নিক্ষেপ করায় তাকে গুলী করে হত্যা করা হয় বলে দাবি করেছে ইসরাইলী সেনাবাহিনী। নিহতের নাম খালেদ বাহার বলে নিশ্চিত করেছে ফিলিস্তিনী স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। তার বয়স ১৫ বছর বলেও জানানো হয়েছে।কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরার প্রতিবেদনে বলা হয়, হেবরন শহরের বেইত উম্মার এলাকার কাছে ঘটনাটি ঘটে। ইসরাইলী বাহিনীর এক মুখপাত্র ফরাসি বার্তা সংস্থা এএফপিকে বলেন, ‘সেনা সদস্যদের দিকে পাথর ছুড়ে মারা হয়েছিল, তাতে এক সেনা হালকা আহত হন।’ সেনা সদস্যরা প্রথমে ওই সতর্কতা গুলী ছুড়েছিল এবং পরে সন্দেহভাজন সে কিশোরকে গুলী করে আর তাতে তার মৃত্যু হয় বলেও দাবি করেন তিনি।১৯৯০ এর দশকের শুরু থেকে ইসরাইল ও ফিলিস্তিনের মধ্যে বেশ কয়েক দফায় শান্তি আলোচনা হয়েছে। ফিলিস্তিনীরা চায় পশ্চিম তীরে একটি স্বাধীন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করতে এবং পূর্ব জেরুসালেমকে এর রাজধানী বানাতে। ১৯৬৭ সালের আরব যুদ্ধের পর থেকে ইসরাইল পূর্ব জেরুসালেম দখল করে রেখেছে। পূর্ব জেরুসালেমকে নিজেদের অবিভাজ্য রাজধানী বলে দাবি করে থাকে ইসরাইল। অবশ্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় পূর্ব জেরুসালেমকে ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দেয়নি। ১৯৬৭ সালের পরপশ্চিম তীর ও পূর্ব জেরুসালেমে ১শরও বেশি বসতি স্থাপন করেছে ইসরাইল। আন্তর্জাতিক আইনের আওতায় এ বসতি স্থাপনকে অবৈধ বলে বিবেচনা করা হলেও ইসরাইল তা মানতে চায় না। এএফপির হিসেব অনুযায়ী, গত বছরের অক্টোবর থেকে ফিলিস্তিন ও ইসরাইলের মধ্যে নতুন করে শুরু হওয়া সংঘাতে এ পর্যন্ত ২৩৫ ফিলিস্তিনী ও ৩৬ ইসরাইলী, ২ মার্কিন, এক ইরিত্রিয়ান, এক সুদানি এবং এক জর্ডানির প্রাণহানি হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ