ঢাকা, মঙ্গলবার 25 October 2016 ১০ কার্তিক ১৪২৩, ২৩ মহররম ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

সন্ধান চায় মুক্তিযোদ্ধা বাবা ॥ প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা

লক্ষ্মীপুর সংবাদদাতা : অপহরণের ১১দিন পার হলেও এখনো উদ্ধার হয়নি অপহৃত ডা. ইকবাল মাহমুদ। র‌্যাব পুলিশসহ প্রশাসনের বিভিন্ন দফতরে খোঁজ করে তার কোনো হদিস পায়নি পরিবার। তার সন্ধান ও উদ্ধারে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করছেন অপহৃত ডা. ইকবাল মাহমুদের বাবা মুক্তিযোদ্ধা একেএম নুরুল আলম। গতকাল সোমবার সকালে লক্ষ্মীপুর শহরে নিজ বাসভবনে এক সাংবাদিক সম্মেলনে এ দাবি জানান তিনি।

তিনি আরো বলেন, আমার ছেলের কোনো শক্র নেই। সে কোনো রাজনৈতিক দলের সাথে জড়িত নয়। সে তাবলিক জামায়াতের সাথে জড়িত রয়েছে। কেন তাকে অপহরণ করা হলো। কি দোষ ছিল তার। কি অপরাধ ছিল তার। এরপরও যদি তার কোনো অপরাধ থাকে। তাহলে প্রচলিত আইনে তার বিচার হবে। এ বিষয়ে পরিবারের কোনো আপত্তি নেই। কিন্তু ১১ দিন পার হলেও কেন তার কোনো সন্ধান পাওয়া যায়নি বলে ক্ষোভ প্রকাশ করেন তিনি। এতে করে পরিবারের মাঝে দেখা দিয়েছে উদ্বেগ উৎকন্ঠা। গত ১৪ অক্টোবর শুক্রবার রাত তিনটার দিকে ঢাকার সাইন্স ল্যাবরেটরির সামনে থেকে সাদাপোশাকধারী লোকজন মাথায় হেলমেট পরিয়ে ডা. ইকবাল মাহমুদকে একটি সাদা মাইক্রোবাসে তুলে নিয়ে যায়। যাহা সিসি ক্যামরায় দেখলে বুঝা যায়। এরপর ধানমন্ডি থানায় একটি অপহরণ মামলা দায়ের করি। কিন্তু মামলার তেমন কোনো অগ্রগতি নেই। ডা. ইকবাল মাহমুদ দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ থেকে এমবিবিএস পাসের পর ২৮তম বিসিএস এ উত্তীর্ণ হয়ে লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে যোগদান করে। এরপর বিভিন্ন স্থানে সুনামের সাথে চাকরি করে আসছে। বর্তমানে মহাখালী স্বাস্থ্য অধিদফতরে কর্মরত অবস্থায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রশিক্ষণরত ছিল। সে প্রশিক্ষণের উদ্দেশ্যে বাড়ি থেকে ঢাকায় গিয়ে অপহরণের শিকার হয়। এ সময় সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, অপহৃতের মা শামীম আরা আলম, তার স্ত্রী ডা. সুয়াইদা ইয়াছমিন ও তার দুই শিশু সন্তান।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ