ঢাকা, বৃহস্পতিবার 27 October 2016 ১২ কার্তিক ১৪২৩, ২৫ মহররম ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

নথি না থাকায় গুলশানের অবৈধ প্লটের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পারছে না রাজউক

সংসদ রিপোর্টার: নথি না থাকায় রাজধানীর অভিজাত এলাকা গুলশানের অবৈধ প্লটের মালিকদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পারছে না রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (রাজউক)।
জাতীয় সংসদ ভবনে গতকাল বুধবার অনুষ্ঠিত সরকারি প্রতিষ্ঠান সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠকে এ বিষয়ে আলোচনা হয়। তবে কোন কোন প্লটের নথি গায়েব হয়েছে তার তালিকা কমিটির কাছে আসেনি। এ দিকে মুক্তিযুদ্ধের বিরোধিতা করায় মুসলিম লীগ নেতা মোনায়েম খানের প্লট বাতিলের সুপারিশ করেছে কমিটি।
শওকত আলীর সভাপতিত্বে বৈঠকে অংশ নেন কমিটির সদস্য মুহিবুর রহমান মানিক, হাবিবর রহমান, আবদুর রউফ ও নাভানা আক্তার।
সভাপতি শওকত আলী বলেন, ‘ফাইল  যে পাওয়া যায় না সেটা রাজউকও স্বীকার করেছে। এছাড়া নকশা অনুমোদনসহ বিভিন্ন বিষয়ে রাজউকে গেলে জনগণ যে হয়রানির স্বীকার হয় সে কথাও স্বীকার করেছে রাজউক।’
তিনি বলেন, কমিটির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, রাজউকের সর্বাঙ্গীন উন্নয়ন করতে হবে। প্রতিষ্ঠানটির নতুন চেয়ারম্যানও এ বিষয়ে আগ্রহী বলে কমিটির কাছে মনে হয়েছে।
উল্লেখ্য, ২০১১ সালে সংসদে এক প্রশ্নের জবাবে তৎকালীন গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী আব্দুল মান্নান খান রাজউকের নথি গায়েবের কথা স্বীকার করেছিলেন। সে সময় তিনি বলেছিলেন, রাজউকের নথি হারানো রোধে সরকার ডিজিটাল পদ্ধতিতে সংরক্ষণের কাজ শুরু করেছে।
এরই মধ্যে গুলশান-বনানী-বারিধারার তিন হাজার ৮৪৮টি নথির ৭ লাখ ৭৭ হাজার ৭৩ পৃষ্ঠার সংরক্ষণ কাজ শেষ হয়েছে। এছাড়া উত্তরা, পূর্বাচলসহ অন্যান্য আবাসিক, বাণিজ্যিক ও শিল্প এলাকার এবং নকশা অনুমোদন ও অন্যান্য শাখার ১৮ হাজার নথির ১৮ লাখ পৃষ্ঠা ডিজিটাল করে সংরক্ষণ করার কাজ ২০২১ সালের মধ্যে শেষ হবে।
এর আগে ২০১৪ সালে দুর্নীতি দমন কমিশন রাজউকের কাছে শতাধিক বহুতল ভবনের নথি চাইলেও গায়েব হওয়ার কারণে তা সরবরাহ করতে পারেনি গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের অধীন এই সংস্থাটি।
 বৈঠক শেষে কমিটির সদস্য মো. আব্দুর রউফ সাংবাদিকদের জানান, মতিউর রহমান নিজামীর প্লট বাতিল প্রক্রিয়াধীন। মোনায়েম খানের প্লট বাতিলের জন্য রাজউককে বলেছি। এছাড়া বিএনপি নেতা মির্জা আব্বাস প্রায় ১০০টি প্লট নিয়ম বর্হিভূতভাবে বরাদ্দ দিয়েছিলেন। সেগুলো আগেই বাতিল করেছে রাজউক।
তিনি আরো বলেন, গুলশান, উত্তরা ও মানিক মিয়া অ্যাভিনিউয়ে অবাঙালিদের কিছু প্লট দখলের পাঁয়তারা চলছে। সেগুলো বন্ধে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়ার কথা বলেছি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ