ঢাকা, শনিবার 29 October 2016 ১৪ কার্তিক ১৪২৩, ২৭ মহররম ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

আরও ১০০ রান যোগ করতে পারলে ভালো হতো -তামিম

স্পোর্টস রিপোর্টার : ঢাকা টেস্টে ২২০ রানে থেমে গেছে বাংলাদেশের ইনিংস। অবশ্য ব্যাট করতে নেমে ইংল্যান্ড হারিয়েছে ৫০ রানে তিন উইকেট। ফলে দিন শেষে সেঞ্চুরি করা তামিম ইকবাল জানালেন, যদি বাংলাদেশ আরো ১০০ রান বেশি করতে পারত তবে ভালো হতো। দিন শেষে সংবাদ সম্মেলনে তামিম বলেন,‘ দলের ব্যাটিং বিপর্যয়কে যতই আমি ব্যাখ্যা দিতে চাই না কেন কোনোভাবেই ব্যাখ্যা দিতে পারব না। আমরা কিছু ভুল শট খেলেছি। এখান থেকে ১০০ রান বেশি করতাম তাহলে খেলা আমাদের ফেভারে থাকত। কারণ আজকে শেষ দিকে কিন্তু বল স্পিন করা শুরু করছে। ৪৫ ওভারের পর বল স্পিন করা শুরু করছে। সবাই মিলে যদি ১০০ রান বেশি করতাম আমার থেকে শুরু করে রাব্বী পর্যন্ত তাহলে দলের অবস্থান ভালো থাকত।’ বাংলাদেশের ইনিংস নিয়ে বলেন,‘প্রথম ১০ ওভার ছাড়া ৩০-৩৫ ওভার ব্যাটিং হয়তোবা কঠিন ছিল। ২০-২৫ ওভার একটু সহজ ছিল। এটার কারণ হতে পারে ওই সমটায় আমরা অ্যাটাকিং ছিলাম। বাউন্ডারি বলসও পেয়েছি। যখন আপনি রানের মধ্যে থাকেন  যেকোনো উইকেটেই ব্যাটিং করা সহজ মনে হবে। এছাড়া মুমিনুল যেভাবে ব্যাটিং করছিল।’ দলের ব্যাটিং বিপর্যয়ের দিনে নিজের সেঞ্চুরি নিয়ে তামিম বলেন,‘হঠ্যাৎ করে যে ভাবে উইকেট পড়েছে তাতে আমার সেঞ্চুরি স্পেশাল মনে হচ্ছে। আমাদের ১৭০ রানের একটা জুটি ছিল। ওই জুটিটা যদি ৫০ রান আরও বেশি করে দিয়ে আসতাম তাহলে হয়তোবা ওই রিভার্স পাচ্ছিল সেটা আর ১০-১২ ওভার পরে পেত। তাহলে টিমের জন্য ভালো হত। এটা আমার থেকে নিয়ে রাব্বী পর্যন্ত সবার দাষ যে আমরা বিপর্যয়ের জন্য দায়ী। ব্যক্তিগতভাবে কারো দোষ আমি দিচ্ছি না। জিতলে আমরা যেমন দলীয়ভাবে জিতি ঠিক তেমনি ব্যাটিংয়ে আমরা দলীয়ভাবে ভালো করতে পারিনি। তারপরও ক্রুসাল ৩টি উইকেট পেয়েছি। কাল সকালটা যদি ভালো হয় এ রানের মধ্যেই একটা ভালো খেলা হওয়া সম্ভব।’ নিজের আউট নিয়ে তামিম বলেন,‘এটা তিন নম্বর যে আমি এরকম বল ছেড়ে দিচ্ছিলাম। আমি ইচ্ছা করছিলাম না.,, আসলে হয়ে যাচ্ছিল। আমার ভুল ছিল। আমি যদি সোজা খেলতাম, যদি শট খেলতাম যদি প্যাডেও লাগত তাহলেও কিন্তু আউট হতাম। কি বলব কোনো কিছু বলার নেই। মুমিনুলের আউট নিয়ে তামিম বলেন,‘মুমিনুলের আউটটা যদি দেখেন। একই জায়গায় পড়ে একটা ভিতরে ঢুকেছে আরেকটা টার্ন করছে। তারপরও যখন আমরা ৩০ ওভার ব্যাটিং করেছি ওই বলগুলোকে আমাদের আরও ভালোভাবে হ্যান্ডেল করতে পারতাম।’ নিজের ব্যাটিং নিয়ে তামিম বলেন,‘আমি সব সময় অ্যাটাকিং খেলতে পছন্দ করি। আমি এটাকেও হাইলি রেট করব। আমি যেভাবে ব্যাটিং করতে পছন্দ করি আজকে সেভাবে ব্যাটিং করেছি। আর প্রথম একটা রান করতে ১৮ বল লাগছে।ওটা সুন্দরভাবে হ্যান্ডেল করে আমার ১০০ রান হল। আমি সব সময় বলি প্রতিটি সেঞ্চুরি আমার জন্য স্পেশাল। এটা তো সব সময় হয় না। হলে কখনোই আমি রেট করি না। এটা ভালো ওটা খারাপ।’ দ্বিতীয় দিনের পরিকল্পনা নিয়ে তামিম বলেন,‘আমি যেটা মনে করি এটা প্রতিদিনই একটু কঠিন হতে থাকবে। নাও হতে পারে। এ কারণেই আমি ১০০ রান বারবার বলেছি। আমরা যদি ৩০০-৩৫০ রান করে ফেলতাম তাহলে সেকেন্ড টিমের জন্য এ উইকেটে এ রান করা কঠিন। চার নম্বর ইনিংসে ওরা আবার ব্যাটিং করবে। এটাই আশা করতে পারি আমরা যেভাবে বোলিং স্টার্ট করেছি,,হয়ত রান বেশি দিয়েছি।কাল রান কম দিয়ে যদি দ্রুত ২-৩টি উইকেট নিতে পারি। ওদেরকে তাড়াতাড়ি অলআউট করা সম্ভব হয়। ২২০ রান নিয়ে যে আফসোস করার কিছু নেই। যা হয়েছে ব্যাটিং উইকেট ভুল করেছি বলে হয়েছে। এখন ২২০ রান নিয়ে আমাদেরকে ফাইট করতে হবে।’ ইংল্যান্ডের বোলার মঈন আলীকে নিয়ে তামিম বলেন,‘সে খুব ভালো বোলিং করেছে। সে চিটাগংয়ে ভালো ব্যিাটিংও করেছে। গুরুত্বপূর্ণ ৬৮ রান করেছিল। সাথে উইকেটও পেয়েছি। ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলের গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড় ও। আমাদের ব্যাটসম্যানদের ওকে আরেকটু দেখে-শুনে খেলা উচিত ছিল। আমি তার কয়েকটি ওভার খেলেছি। আপনি প্রথম পাঁচ-ছয় ওভার খেলে একজন বোলারকে মূল্যায়ন করতে পারবেন না। তাকে দুই-তিনটি ম্যাচ খেলাতে হবে। আমি তার সম্পর্কে ভালো কিছু শুনেছি, শুনেছি সে ব্যাটসম্যানও।’

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ