ঢাকা, শনিবার 29 October 2016 ১৪ কার্তিক ১৪২৩, ২৭ মহররম ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

শালিখায় যৌতুকের দাবিতে গৃহবধূর উপর নির্যাতন

মাগুরা সংবাদদাতা ঃ মাগুরার শালিখা যৌতুকের টাকা দিতে না পারায় নির্যাতনের শিকার হয়ে  নাছিমা খাতুন (৩০) নামের এক গৃহবধূ মাগুরা আদালতে চার জনকে আসামী করে যৌতুক নিরোধ আইনের একটি  মামলা দায়ের করেছে। চার মাস আগে মামলা করা হলেও এ পর্যন্ত  আসামীরা আদালতে হাজির হয়নি বলে জানা গেছে। নাছিমা খাতুন উপজেলা সদর আড়পাড়া পূর্ব পাড়া গ্রামের মৃত ওয়াহেদ মোল্লার মেয়ে।  গত ২০০৭ সালের ৮ মার্চ  মাগুরার সদর উপজেলার ঘোড়া নাচ গ্রামের মৃত সবুর শিকদারের ছেলে মোঃ  আমিনুর রহমানের সাথে বিয়ে  হয়।  বিয়ের পরে তাদের কোলে একটি প্রতিবন্ধী কন্যা সন্তানের জন্ম হয়। এর পর থেকেই  ওই গৃহবধূকে ভরণ পোষণ না দিয়ে ৫০হাজার টাকা যৌতুক চেয়ে  একের পর এক  বিভিন্ন তালবাহানা করে তার স্বামী নির্যাতন  করতে  থাকে। তার নির্যাতনের হার দিন দিন বাড়তে থাকায় নিরুপায় হয়ে শালিখা উপজেলার আড়পাড়া ব্র্যাক মানবাধিকার ও আইন সহায়তা কেন্দ্র ভরণ-পোষণের দাবিতে একটি অভিযোগ করে। তাতেও কোন ফল না পেয়ে মাগুরা আদালতে স্বামী মোঃ আমিনুর রহমান,শাশুড়ি রোকেয়া বেগম, নুন্দায় মোঃ টুকু মিয়া, নোনদ  সাহিদা খাতুনকে আসামী করে যৌতুক নিরোধ আইনের ৪  ধারা মোতাবেক একটি  মামলা দায়ের করা হয়। কিন্তু আদালতে একের পর এক হাজিরার তারিখ পড়লেও আসামীরা আইনের তোয়াক্কা না করে  কোর্ট  অমান্য করে চলেছে বলে মামলার বাদি নাছিমা খাতুন জানান। তিনি আরো বলেন স্বামী আমিনুর রহমান গত দুই বছর যাবৎ তার প্রতিবন্ধী সন্তানের ভোরণ  পোষণ এমনকি কোন খোঁজ রাখে না।
্ মৃত বাবার বাড়িতে সন্তানটি কে নিয়ে খেয়ে না খায়ে জীবন যাপন করছে এ গৃহবধূ।  এখন  সে প্রতিবন্ধী সন্তান নিয়ে কি করবে ভেবে পাচ্ছে না। এব্যাপারে অসহায় গৃহবধূ নাছিমা খাতুন সরকারের ঊর্র্ধ্বতন কর্তৃপক্ষসহ সমাজের সকল স্তরের মানুষের কাছে সহযোগিতা কামনা করেছেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ