ঢাকা, রোববার 30 October 2016 ১৫ কার্তিক ১৪২৩, ২৮ মহররম ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

খুলনায় ঐতিহ্যবাহী নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত

আব্দুর রাজ্জাক রানা : খুলনার রূপসা নদীতে প্রতিবারের ন্যায় গতকাল শনিবার নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে। নগর সামাজিক ও সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের আয়োজনে গ্রামীণফোন লিমিটেড এর সহযোগিতায় এবং খুলনা জেলা প্রশাসনের সার্বিক তত্ত্বাবধানে এই ১১ম নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়। ঐতিহ্যবাহী নৌকা বাইচ দেখার জন্য খুলনা মহানগরীসহ জেলার নয়টি উপজেলা ও আশপাশ জেলা থেকে নারী, শিশু, বৃদ্ধরা রূপসী রূপসার দু’পাড়ে ভীড় জমান। এছাড়া বিভিন্ন ভবনের ছাদে, গাছের ডালে এবং ট্রলারে করে পরিবার-পরিজন নিয়ে এ প্রতিযোগীতা উপভোগ করেন। রূপসা ব্রীজের উপর প্রচুর ভীড় পরিলক্ষিত হয়। প্রতিযোগীতায় বড় গ্রুপের প্রথম স্থান অধিকার করে এক লাখ টাকা জিতে নেয় খুলনার কয়রা উপজেলার রফিকুল ইসলামের ‘সুন্দরবন টাইগার’। প্রথম রানার আপ হয় তেরখাদার দিদারুল আলমের ‘ভাই ভাই জলপরী’ আর দ্বিতীয় রানার আপ হয় একই এলাকার মাহবুব মেম্বরের ‘আল্লাহ ভরসা’। আয়োজক কমিটি দুই দলকে ৬০ হাজার ও ৩০ হাজার টাকার চেক প্রদান করেন। ছোট গ্রুপে প্রথম পুরস্কার পান কয়রার ‘সোনার তরী’। তাদের পুরস্কার হিসেবে দেয়া হয়েছে ৫০ হাজার টাকা। প্রথম রানার আপ তালার সঞ্জয় ম-লের ‘জয় মা কালী’ ৩০ হাজার টাকা এবং দ্বিতীয় রানার আপ ‘জয় মা (ঐশর্হ্য)’ দল জিতে নিয়েছে ২০ হাজার টাকা। প্রতিযোগিতায় প্রধান বিচারক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন বটিয়াঘাটা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. বেলাল হোসেন। অন্যান্য বিচারকবৃন্দের মধ্যে ছিলেন সাবেক ক্রিকেটার মঈনুল ইসলাম শিমুল, নাগরিক ফোরামের যুগ্ম মহাসচিব মিনা আজিজুর রহমান, খুলনা উন্নয়ন কমিটির ক্রীড়া সম্পাদক শিকদার আব্দুল খালেক এবং ডা. রেজাউল করিম। সহযোগী হিসেবে ছিলেন বাংলাদেশ বেতার খুলনার আঞ্চলিক পরিচালক বশির আহম্মেদ, কেসিসি’র শিক্ষা অফিসার এস কে এম তাছাদুজ্জামান এবং এডভোকেট শফিউল আলম সুজন। এবার প্রতিযোগিতায় মোট ২৮টি  দল অংশগ্রহণ করেন। নৌকার মাপভেদে বাইচকে দু’টি গ্রুপে ভাগ করা হয়। এর মধ্যে বড় দল রয়েছে ১৯ আর ছোট দল রয়েছে নয়টি। দুপুর আড়াইটায় রূপসা নদীর ১ নম্বর কাস্টম ঘাটে অতিথিরা ফেস্টুন ও বেলুন ওড়ানোর মধ্য দিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে নৌকাবাইচের উদ্বোধন করেন। ১ নম্বর কাস্টম ঘাট থেকে প্রতিযোগিতা শুরু হয়ে খানজাহান আলী সেতুতে (রূপসা সেতু) গিয়ে শেষ হয়।খুলনা জেলা প্রশাসক নাজমুল আহসান এর সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা পরিষদ প্রশাসক শেখ হারুনুর রশীদ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ