ঢাকা, সোমবার 31 October 2016 ১৬ কার্তিক ১৪২৩, ২৯ মহররম ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

ইয়েমেনের গৃহযুদ্ধে পুষ্টিহীনতার প্রতীক সাঈদা

৩০ অক্টোবর, রয়টার্স/ডয়চে ভেলে : ইয়েমেনে শিশুসহ অনেকেই অপুষ্টিতে ভুগছে। দেড় বছরেরও বেশি সময় ধরে চলা গৃহযুদ্ধের কারণে পরিস্থিতি আরও খারাপ হয়েছে।
নাম তাঁর সাঈদা আহমেদ বাঘিলি।  বয়স ১৮।  পাঁচ বছর আগে প্রথম তাঁর মধ্যে পুষ্টিহীনতার লক্ষণ দেখা দেয়।  পরিস্থিতি এখন এমন যে কিছুই খেতে পারেন না।  কারণ গলায় ব্যথা।  ফলে শুধু জুস, দুধ আর চা খেতে হচ্ছে তাঁকে। ইয়েমেনে গত প্রায় ১৯ মাস ধরে গৃহযুদ্ধ চলছে। এমন পরিস্থিতিতে বাঘিলির অভিভাবকরা পর্যাপ্ত অর্থ আয় করতে পারেননি বলে গত দেড় বছরে তাঁর চিকিৎসা করা সম্ভব হয়নি। বাঘিলির খালা বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে জানিয়েছেন, কয়েকজন দানশীল ব্যক্তি অর্থ সহায়তা দেয়ায় বাঘিলিকে ২২ অক্টোবর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।  হোডাইডা শহরের আল থাওরা হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন তিনি। অসুস্থ হওয়ার আগে ভেড়া পালতো বাঘিলি।  হোডাইডা থেকে ১০০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে অবস্থিত একটি গ্রামে তাঁরা বাস করে। জাতিসংঘ বলছে, গৃহযুদ্ধের কারণে ইয়েমেনে দুর্ভিক্ষ শুরু হতে পারে।  বর্তমানে দেশটির অর্ধেকেরও (১৪ মিলিয়ন) বেশি নাগরিক খাদ্য সংকটে রয়েছেন বলে জানিয়েছে সংস্থাটি।  এর মধ্যে তিন মিলিয়ন মানুষের এখনই খাদ্য সাহায্য প্রয়োজন।
ইউনিসেফের হিসেবে সে দেশের প্রায় ১৫ লক্ষ শিশু এখন অপুষ্টিতে ভুগছে।  এর মধ্যে তিন লক্ষ ৭০ হাজার শিশুর মধ্যে অপুষ্টির মাত্রা এত বেশি, যা তাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা দূর্বল করে দিচ্ছে।
গৃহযুদ্ধের কারণে ইয়েমেনে এখন পর্যন্ত কমপক্ষে ১০ হাজার মানুষ নিহত হয়েছেন বলে জানা গেছে। অবশ্য জাতিসংঘের হিসেবে সংখ্যাটি সাত হাজারের কাছাকাছি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ