ঢাকা, সোমবার 31 October 2016 ১৬ কার্তিক ১৪২৩, ২৯ মহররম ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

হিলারির তোপের মুখে এফবিআই

মার্কিন তদন্ত সংস্থা ফেডারেল ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (এফবিআই) দেশটির প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডেমোক্র্যাটিক পার্টির প্রার্থী হিলারি ক্লিনটনের ব্যক্তিগত ইমেইল ব্যবহারের বিষয়ে নতুন করে তদন্ত শুরু করার সিদ্ধান্তকে তীব্র সমালোচনা করেছেন হিলারি।

২০১৫ সালে প্রথম এই অভিযোগটি উঠলেও, তখন তদন্তের পর গুরুতর কিছু পাওয়া যায়নি বলে এফবিআই জানিয়েছিল। এ কারণে তার বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ না আনার সিদ্ধান্ত নেয় সংস্থাটি।

নির্বাচনের যখন মাত্র ১১ দিন বাকি, তখন এ বিষয়ে নতুন করে তদন্তের সিদ্ধান্তের কথা চিঠি দিয়ে মার্কিন কংগ্রেসকে জানায় এফবিআই। এতে নির্বাচনে নিজেদের দৃঢ় অবস্থান নষ্ট হওয়ার আশঙ্কা করছে হিলারি শিবির। তাই এফবিআই-এর সিদ্ধান্তের তীব্র সমালোচনা করছে তারা। 

ফ্লোরিডায় এক নির্বাচনি প্রচারণায় হিলারি বলেছেন, নির্বাচনের দুই সপ্তাহের কম সময় আগে এফবিআই-এর এই তদন্তের ঘোষণা ‘নজিরবিহীন’ ও ‘গভীর সমস্যাপূর্ণ’।

হিলারি বলেন, ‘বিষয়টি খুবই অদ্ভুত, তা একইসঙ্গে নজিরবিহীনও। আর তাতে ভোটাররা বিভ্রান্ত হতে পারেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘এটা গভীর সমস্যাপূর্ণ, কারণ ভোটাররা সবটুকু জানার অধিকার রাখে। তাই আমরা দাবি করছি, তিনি (কোমি) জনগণকে পুরো বিষয়টা জানান।’

তবে এফবিআই পরিচালক জেমস কোমির দাবি, নতুন এই তদন্তের বিষয়ে জানানোটা তিনি নৈতিকতা বোধ থেকে করছেন। তিনি আরও বলেছেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রের জনগণকে আমি ভুল পথে পরিচালিত করতে চাই না।’

এর আগে জেমস কোমি জানিয়েছিলেন, ‘তদন্তকারীরা হিলারির মেইলগুলোতে কোনও বিশেষ তথ্য আছে বা কোনও বিশেষ বার্তা বহন করে কিনা, তারা তা খতিয়ে দেখছেন। এফবিআই ইতোমধ্যে ডেমোক্রাট প্রার্থীর ব্যক্তিগত ইমেইল সার্ভারে বেশ কিছু স্পর্শকাতর তথ্য পেয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আবেদিন ও ওয়েনারের কাছ থেকে এফবিআই একটি ডিভাইস আটক করেছে। যেখানে দেখা যাচ্ছে ওয়েনার নর্থ ক্যারোলিনার এক ১৫ বছর বয়সী কিশোরীর কাছে যৌন হয়রানিমূলক বার্তা পাঠিয়েছেন।’

তবে জুলাইয়ে কোমি জানিয়েছিলেন, ‘২০০৯-১৩ মেয়াদে পররাষ্ট্রমন্ত্রী থাকাকালীন হিলারি ক্লিনটন অসতর্কভাবে বেশ কিছু গোপন তথ্য আদান প্রদান করেন। যা অপরাধমূলক কাজ। মূলত ফেডারেলের আইন ভঙ্গ করে নিজের ইমেইল সার্ভার ব্যবহার করে হিলারি এসব কাজ করেছিলেন।’

এদিকে, এই নতুন তদন্তকে কেন্দ্র করে গড়ে উঠা নতুন পরিস্থিতিকে পুরোপুরি কাজে লাগানোর চেষ্টা করছে রিপাবলিকান ডোনাল্ড ট্রাম্প শিবির।

প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রচারণা শুরুর পর থেকেই এই বিষযটিকে হিলারির বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ বা অস্ত্র হিসাবে ব্যবহার করছেন তার নির্বাচনী প্রতিদ্বন্দ¦ীরা। প্রেসিডেন্ট পদের জন্য এটি ‘দাযত্বিহীন আচরণ’ বলেও দাবি করেছেন রিপাবলিকান প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প।

শনিবার কলোরাডোতে এক নির্বাচনি সমাবেশে ট্রাম্প বলেন, ‘মার্কিন রাজনীতির ইতিহাসের ওয়াটারগেট কেলেঙ্কারির পরেই হিলারির ইমেইলের বিষযটি সবচেয়ে বড রাজনৈতিক কেলেঙ্কারি।’

তিনি আরও বলেন, ‘হিলারির ব্যক্তিগত ইমেইল সার্ভার ব্যবহার করাটা ইচ্ছাকৃত, উদ্দেশ্যপ্রণোদিত।’ বিবিসি, দ্য গার্ডিয়ান।

ধরা খেলেন ট্রাম্প সমর্থক

পরাগ মাঝি: আমেরিকার প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগাম ভোটে আইওয়া অঙ্গরাজ্যে জালভোট দেওয়ার অভিযোগে রিপাবলিকান প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্পের এক নারী সমর্থককে অভিযুক্ত করা হয়েছে। দ্বিতীয়বার ভোট দেওয়ার কারণ হিসেবে তিনি উল্লেখ করেছেন, তার আগের ভোটটি ট্রাম্পকে দিলেও সেটি জালিয়াতি করে হিলারির ভোট হিসেবে গণ্য হয়েছে।

৫৫ বছর বয়সী ট্যারি লিন রোট একজন নথিভুক্ত রিপাবলিকান নারী। শুক্রবার তাকে আইওয়ার দেস মনিস কাউন্টি’র পুলিশ গ্রেফতার করে। ট্যারি আইওয়ার পোক কাউন্টি ইলেকশন অফিসে আগাম ভোট দিয়ে পুনরায় দেস মোনিস কেন্দ্রে দ্বিতীয় ভোট দিতে গিয়েছিলেন। আটকের পর অবশ্য শনিবার তাকে ৫ হাজার ডলারের বন্ড সই নিয়ে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়।

আইওয়া পাবলিক রেডিওতে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ট্যারি অভিযোগ করেন, তার প্রথম ভোটটি ট্রাম্পকে দিয়েছিলেন বটে, তবে এটি হিলারির খাতায়ই যোগ হয়েছে বলে তার স্থির ধারণা। তিনি এবারের নির্বাচনকে ‘কারচুপির নির্বাচন’ বলেও আখ্যায়িত করেছেন।

ট্যারি ডোনাল্ড ট্রাম্পের একজন দারুণ ভক্ত। সম্প্রতি তিনি তার ফেসবুক ওয়ালে বিভিন্ন পোস্টে হিলারিকে ‘শয়তান’ হিসেবে আখ্যায়িত করছিলেন। পাশাপাশি তিনি নিগ্রো এবং মুসলিমদের নিয়েও মানহানিকর বিবৃতি দিচ্ছিলেন।

গত ২৯ সেপ্টেম্বর থেকে আইওয়াতে আগাম ভোট দেওয়া শুরু হয়।

জেনিফা লোপেজের কনসার্টে হিলারি ক্লিনটন

৩০ অক্টোবর, যুক্তরাষ্ট্রের আসন্ন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডেমোক্রেট প্রার্থী হিলারি ক্লিনটন স্থানীয় সময় শনিবার রাতে আকস্মিকভাবে মিয়ামিতে জনপ্রিয় মার্কিন সঙ্গীত শিল্পী জেনিফার লোপেজের গানের মঞ্চে আসেন। এ সময় লোপেজ ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্যে আগাম ভোটে বাসিন্দাদের উৎসাহিত করতে বৃষ্টির মধ্যে বিনা পারিশ্রমিকে একটি কনসার্টে অংশ নিচ্ছিলেন।

অভিনেত্রী ও গায়িকা জেনিফার লোপেজ (৪৭) মঞ্চে তার জনপ্রিয় কয়েকটি গান পরিবেশন করেন। এ সময় উৎফুল্ল দর্শকরা বৃষ্টির মধ্যে আনন্দে নাচতে থাকে। লোপেজের সাবেক স্বামী মার্ক অ্যান্থনিও মঞ্চে গান পরিবেশন করে।

এরপর লোপেজ গান পরিবেশন করেন। কনসার্টের শেষ দিকে হিলারি মঞ্চে আসেন। তিনি লোপেজকে জড়িয়ে ধরেন এবং তাকে সমর্থনের জন্য সাবেক এ দম্পতিকে ধন্যবাদ জানান।

সাবেক পররাষ্ট্র মন্ত্রী হিলারি বলেন, ‘আমি কেবলই লোপেজের লেটস গেটস লাউড গানটি শুনলাম। ভাল, আমি বলি, আপনারা সরবে ভোট কেন্দ্রে আসুন।’ তিনি বলেন, ‘অন্য আরেকটি দিনের জন্য বসে থাকবেন না।’ তিনি বলেন, ‘আপনারা যদি ভোট দেন, আমরা জয়ী হবো।’

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ