ঢাকা, সোমবার 31 October 2016 ১৬ কার্তিক ১৪২৩, ২৯ মহররম ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

রক্তাক্ত ২৮শে অক্টোবর : বিচারের দাবিতে সভা-সমাবেশ ও দোয়া

নারায়ণগঞ্জ : নারায়ণগঞ্জ জামায়াতে ইসলামী মহানগরীর আমীর মাওলানা মঈনুদ্দিন আহমাদ বলেছেন, ২৮শে অক্টোবরের খুনিদের মদদ ও পুরস্কৃত করার কুফল দেখছে জাতি। সেই খুনের ধারাবাহিকতায় দেশে একের পর এক ভয়াবহ হত্যাযজ্ঞ চালিয়েছে এই অপশক্তি।
গত শুক্রবার বিকালে নারায়ণগঞ্জ মহানগরীর আয়োজিত ২০০৬ সালের ২৮ অক্টোবর পল্টন ট্রাজেডি দিবস উপলক্ষে শহীদদের রূহের মাগফিরাত কামনা আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।
আমীর মাওলানা মঈনুদ্দিন তার বক্তব্যে আরো বলেন, সন্ত্রাসীরা জনতাকে যেভাবে প্রকাশ্যে রাজপথে লগী-বৈঠা দিয়ে পিটিয়ে, গুলী করে হত্যা করেছে তা গোটা বিশ্ববাসীকে কাঁদিয়েছিল। ২৮শে অক্টোবরের আত্মস্বীকৃত খুনী বাপ্পাদিত্য বসু’রা বিচারের মুখোমুখি হওয়ার পরিবর্তে রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতা পাচ্ছে। ফলে তারা আরো উৎসাহের সাথে অপরাধ করে যাচ্ছে। বর্তমানে বাংলাদেশে গুপ্ত হত্যাসহ সকল অপরাধ প্রবণতা সেই বিচার হীনতার সংস্কৃতিরই ফসল বলে দেশের জনগণ মনে করে।
তিনি বলেন, যুগে যুগে ইসলামী আন্দোলনের কর্মীরা জালিম শাসকদের মুকাবিলায় শহীদ হয়ে, বুকের রক্ত ঢেলে দিয়ে শান্তিপূর্ণ সমাজের ভিত্তি গড়ে গেছেন। ২৮ অক্টোবরের শহীদ ফয়সাল, মুজাহিদ, মাসুম, শিপনের শাহাদাত বাংলাদেশের জমীনকে আরো উর্বর করেছে। ইসলামী সমাজ বিনির্মাণের যে স্বপ্ন আমরা দেখি, শহীদ মুজাহিদদের শাহাদাতের ধারাবাহিকতায় তা বাংলাদেশের মাটিতে সত্য হয়ে উঠবে ইনশাআল্লাহ।
মাওলানা মঈনুদ্দিন আহমাদ ২৮ অক্টোবরের শহীদদের জীবন থেকে প্রেরণা নিয়ে চলমান আন্দোলনকে আরো দৃঢ়ভাবে সামনের দিকে এগিয়ে নিতে নেতাকর্মীদের আহবান জানান।
সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন, এডভোকেট মাঈনুদ্দিন, আলহাজ্ব শাহাদাত হোসেন, জিন্নাহ, জাকির হোসেন প্রমুখ।
এছাড়াও মহানগরীর ৯০টি স্থানে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।
সৈয়দপুর (নীলফামারী সংবাদদাতা : কেন্দ্রীয় কর্মসূচির ন্যায় নীলফামারীর সৈয়দপুরে গত বৃহস্পতিবার বিকেলে শহর জামায়াত ও উপজেলা জামায়াতের উদ্যোগে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।
২০০৬ সালে ২৮ অক্টোবর বায়তুল মোকাররম মসজিদে উত্তর গেটে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী কর্তৃক আয়োজিত জনসভায় আওয়ামী লীগ সন্ত্রাসী বাহিনীর হামলায় শহীদ জামায়াত ও শিবিরের নেতাকর্মীদের হত্যাকান্ডের বিচারের দাবিতে এবং সরকারের গুম, খুন, হত্যা, সন্ত্রাস ও জুলুম নির্যাতনের প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে সৈয়দপুর শহর জামায়াতে ইসলাম। বিক্ষোভ মিছিল শেষে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বক্তব্য পেশ করেন উপজেলা জামায়াতের আমির মাওলানা মাহমুদুল হাসান, উপজেলা সেক্রেটারী গাওহার আলী, শহর আমির হাফেজ আব্দুল মুনতাকিম ও শহর সেক্রেটারী সরফুদ্দিন খান প্রমুখ।
জৈন্তাপুর (সিলেট)
সংবাদদাতা : আজ সকাল ১১ টায় সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলায় বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবিরের সিলেট জেলা পূর্বের শিক্ষা ও পাঠাগার বিষয়ক সম্পাদক আব্দুর রশিদ  বলেন, ২৮ অক্টোবর ২০০৬ বাংলাদেশের ইতিহাসে এক কলংকজনক অধ্যায়। এ দিনে আওয়ামীলীগসহ ১৪ দলীয় জোটের নেতা-কর্মীরা প্রকাশ্য দিবালোকে মানুষ হত্যায় নেমেছিল। এ হত্যাযজ্ঞে শুধু বাংলাদেশে নয় গোটা বিশ্ব বিবেক পাশবিকতায় কেঁদেছে। কেঁদেছে বিশ্বমানবতা। মৃত লাশের উপর নৃত্য করার দৃশ্য পৃথিবীর ইতিহাসে বিরল। পৃথিবীর ইতিহাসে যে কয়টি মানবতাবিরোধী অপরাধ সংঘটিত হয়েছে তার মধ্যে এই পাশবিক হত্যাযজ্ঞ অন্যতম। রাজধানীর পল্টনের পাশাপাশি সারাদেশেও রক্তের পিপাসায় মাতাল হয়ে গিয়েছিল লগি- বৈঠাধারী আওয়ামী জঙ্গীরা। সিলেটবাসীও তাদের তান্ডবের সাক্ষী। ইতিহাসের নিকৃষ্ট এই মানবতাবিরোধী অপরাধের বিচার বাংলার মাটিতে একদিন হবে ইনশাআল্লাহ। শুক্রবার সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলা  শিবিরের উদ্যোগে রক্তাক্ত ২৮ অক্টোবর পল্টন ট্রাজেডি দিবস উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা শিবিরের সভাপতি গোলাম কিবরিয়া সুহেল, গোয়াইনঘাট শিবিরের সেক্রেটারী মিজানুর রহমান, উপজেলা শিবির সেক্রেটারী আব্দুল খালিক, কাউসার আহমদ, মামুন, নূর উদ্দিন প্রমুখ

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ