ঢাকা, মঙ্গলবার 01 November 2016 ১৭ কার্তিক ১৪২৩, ৩০ মহররম ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

কুয়েত ও বাংলাদেশের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক অর্থনৈতিক সম্পর্কোন্নয়ন বৃদ্ধির আশাবাদ

“বাংলাদেশের বিভিন্ন বাজার সুযোগ-সুবিধা অনুসন্ধানের মাধ্যমে কুয়েত ও বাংলাদেশের মধ্যে বিদ্যমান ব্যবসা-বাণিজ্য ও অর্থনৈতিক সম্পর্কোন্নয়ন আগামী দিনগুলোতে আরো বৃদ্ধি পাবে।” সম্প্রতি দি চিটাগাং চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রি’র বাণিজ্য প্রতিনিধিদলের সাথে মতবিনিময়কালে কুয়েতের শিল্প ও বাণিজ্য মন্ত্রী ইউসেফ মোহাম্মদ আল আলী উপরোক্ত মন্তব্য করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন চেম্বার সভাপতি মাহবুবুল আলম, পরিচালকবৃন্দ মাহফুজুল হক শাহ, জহিরুল ইসলাম চৌধুরী (আলমগীর), মোঃ অহীদ সিরাজ চৌধুরী (স্বপন), হাবিব মহিউদ্দিন, অঞ্জন শেখর দাস, মোঃ রকিবুর রহমান, মোহাম্মদ জাহেদুল হক, কুয়েতে নিযুক্ত বাংলাদেশ হাই কমিশনার এস এম আবুল কালাম, মন্ত্রণালয়ের আন্ডার সেক্রেটারি খালেদ জাসেম আল-শামালি এবং চেম্বার সদস্য কাজী মোঃ মিজানুর রহমান।

মতবিনিময়কালে কুয়েতের শিল্প ও বাণিজ্য মন্ত্রী সফররত বাণিজ্য প্রতিনিধিদলকে স্বাগত জানিয়ে উভয় দেশের অর্থনৈতিক বিষয়াদি নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন। আন্ডার সেক্রেটারি খালেদ জাসেম আল-শামালি বিশ্ব বাণিজ্যে বাংলাদেশের অগ্রগতিকে বিস্ময়কর উল্লেখ করে বলেন-বাংলাদেশ হতে পারে কুয়েতী ব্যবসায়ী ও উদ্যোক্তাদের বিনিয়োগের উপযুক্ত স্থান। তিনি বেসরকারি খাতের বিকাশে উভয় দেশের বেসরকারি খাতকে অধিকতর ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করার উপরও গুরুত্বারোপ করেন। দি চিটাগাং চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রি’র সভাপতি মাহবুবুল আলম কুয়েতকে বাংলাদেশের ভ্রাতৃপ্রতিম বন্ধুরাষ্ট্র উল্লেখ বলেন, চিটাগাং চেম্বার বাণিজ্য প্রতিনিধিদলের এ সফরের মাধ্যমে সরকারি ও বেসরকারি পর্যায়ে নতুন মেলবন্ধন রচিত হবে। তিনি বাংলাদেশে প্রস্তাবিত ১০০টি বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল বিশেষ করে চট্টগ্রামের মিরসরাই ও আনোয়ারার প্রসংগ উল্লেখ করে তাতে একক বা যৌথ কুয়েতী বিনিয়োগ প্রত্যাশা করেন। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ