ঢাকা, বুধবার 02 November 2016 ১৮ কার্তিক ১৪২৩, ১ সফর ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

শেখ জামালকে হারিয়ে দ্বিতীয় পর্ব শুরু আরামবাগের

স্পোর্টস রিপোর্টার: জেবি বাংলাদেশ প্রিমিয়ার ফুটবল লিগের (বিপিএল) দ্বিতীয় পর্বে দারুণ সূচনা করেছে আরামবাগ ক্রীড়া চক্র। শিরোপা প্রত্যাশী শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবকে হারিয়েছে মতিঝিল পাড়ার দলটি। গতকাল মঙ্গলবার ১১ দিন বিরতির পর শুরু হওয়া লিগে প্রথম ম্যাচে আরামবাগ ২-০ গোলে শেখ জামালকে হারিয়ে দ্বিতীয় পর্বের শুরুটা বেশ ভালো করেছে আরামবাগ। এই জয়ে ১২ ম্যাচে ১৮ পয়েন্ট নিয়ে পূর্বের ষষ্ঠতম অবস্থানেই থাকলো আরামবাগ। শেখ জামাল পয়েন্ট খোয়ালেও ১৯ পয়েন্ট নিয়ে নিজেদের পূর্বের (চতুর্থ) অবস্থানই ধরে রেখেছে।পেশাদার লিগের দ্বিতীয়পর্ব মাঠে গড়ায় মঙ্গলবার থেকে। মাঠে দর্শক টানতে বিভিন্ন রকম উদ্যোগ নিয়েছে পেশাদার লিগের স্পন্সররা। ফ্রি টিকিটে দর্শকদের ম্যাচ দেখার সুযোগ করে দেয়া হয়। শুধু তাই নয় ফ্রি টিকিটের নম্বর থেকে র‌্যাফেল ড্রয়ের মাধ্যমে মটর সাইকেল,এলইডি টিভির মতো অসংখ্য আকর্ষণীয় পুরস্কারও দেয়ার ব্যবস্থা করা হয়। তবে তারপরও গ্যালারীতে ছিলো না আশানুরূপ দর্শক উপস্থিতি। কেননা প্রচার প্রচারণা যে  সীমাবদ্ধ ছিলো স্টেডিয়ামের গেইটগুলোতেই। ম্যাচ দেখতে আসা দর্শকদের অনেকেই বলেছেন স্টেডিয়ামে ঘুরতে এসে অনেকটা হুট করেই ম্যাচ দেখতে ঢুকে পড়েছেন তারা। তাদের নিজেদের এলাকায় এমন কোন প্রচার প্রচারণা তারা শোনেননি যে এমন আকর্ষণীয় ব্যবস্থা করা হয়েছে পেশাদার লিগ উপভোগের।
প্রথম লেগে পিছিয়ে পড়া শেখ জামালের প্রত্যাশা ছিলো দ্বিতীয় লেগে ঘুরে দাঁড়ানোর। কিন্তু ওয়েডসন ফিরে যাওয়ায় আর এমেকা ডালিংটনের কার্ড সমস্যায় বিদেশী নির্ভর শেখ জামালে এদিন বলতে গেলে একমাত্র ভরসা ছিলেন ল্যান্ডিং ডার্বোয়ে। নতুন যোগ হওয়া গাম্বিয়ান মালিক ম্যান্ডি এবং নাইজেরিয়ান মাইক অতোজারেরি মেলে ধরতে ব্যর্থ হন নিজেদের। আর এ কারণেই মাঠে আধিপত্যটা  ছিলো আরামবাগ ক্রীড়া সংঘের।
তবে এগিয়ে যাবার প্রথম সুযোগটা কিন্তু পেয়েছিলো শেখ জামালই। ১৯ মিনিটে বক্সের প্রায় পনের গজ দূর থেকে ফ্রি কিক নিয়েছিলেন জামালের গামবিয়ান মিডফিল্ডার ল্যান্ডিং ডার্বোয়ে। কিন্তু তার শট অল্পের জন্য জড়ায়নি জালে। পরের মিনিটেই সব থেকে সহজতম সুযোগটা হাতছাড়া করেছে আরামবাগ ক্রীড়া সংঘ। ফরোয়ার্ড সাজিদের বাড়িয়ে দেয়া বলটা জালে ঠেলে দিতে পারলেই প্রথম গোলের দেখা পেতে পারতো অফিস পাড়ার ক্লাবটি। কিন্তু ব্রাজিলিয়ান থিয়াগু টাইসন বলে পায়ের সংযোগ ঘটাতে ব্যর্থ হয়েছেন। ২৬ মিনিটে বক্সে বল পেয়েও সুযোগ হাতছাড়া করেছেন জামালের অভিজ্ঞ মিডফিল্ডার এনামুল হক। ৪১ মিনিটে এগিয়ে যায় আরামবাগ। মিডফিল্ডার রবিউল হাসানের কর্ণার থেকে বক্সে বল ক্লিয়ার করেন জামালের গোলরক্ষক সুজন হোসেন।কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি। থিয়াগু টাইসনের শট বক্সে ক্লিয়ার করতে যান জামালের ডিফেন্ডার দিদারুল আলম বল টাইসনের বুকে লেগে আশ্রয় নেয় শেখ জামালের জালে (আত্মঘাতি) (১-০)। প্রথমার্ধের ইনজুরি টাইমে সমতায় ফেরার একটা সুযোগ এসেছিলো জামালের। বক্সের প্রায় দশ গজ দূর থেকে ল্যান্ডিংয়ের ফ্রি কিক অল্পের জন্য জড়ায়নি জালে।৫৭ মিনিটে মাঝ মাঠ থেকে ইয়োকো স্যামনিকের লম্বা থ্রো পাস ধরে বল নিয়ে মিডফিল্ডার মোঃ আব্দুল্লাহ ঢুকে পড়েন জামালের বক্সে। বিপদ বুঝে গোলরক্ষক এগিয়ে আসলেও শেষ রক্ষা হয়নি। ডান প্রান্ত দিয়ে গড়ানো প্লেসিং শটে বল জালে পাঠান আব্দুল্লাহ (২-০)। ৭২ মিনিটে আরো এক গোলের সুযোগ হাতছাড়া হয়েছে আরামবাগের। ফরোয়ার্ড জাফর ইকবালের দূরপাল্লার শট বারে লেগে ফেরত আসায় গোলবঞ্চিত হয় আরামবাগ। ইনজুরি টাইমে (৯০+২) বক্সে ল্যান্ডিংকে ফাউল করেন বাদশা। পেনাল্টি পায় জামাল। কিন্তু একটু আগে মাথায় আঘাত পাওয়া মাইক শট নিলেও বল ফিস্ট করেন মিতুল হাসান। শেষ পর্যন্ত ২-০ গোলের হারেই মাঠ ছাড়ে ধানমন্ডির ক্লাবটি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ