ঢাকা, বৃহস্পতিবার 03 November 2016 ১৯ কার্তিক ১৪২৩, ২ সফর ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

খুলনায় গণপূর্তের সাড়ে ৫ কোটি টাকার কাজ ভাগবাটোয়ারা

খুলনা অফিস : খুলনা গণপূর্ত বিভাগ-২ এ পুলিশ লাইনের আরআরএফের ব্যারাক ভবন ঊর্ধ্বমুখী সম্প্রসারণ কাজের প্রায় সাড়ে ৫ কোটি টাকার কাজ ভাগবাটোয়ারা করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। সোমবার ওই অফিসের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সহায়তায় বিশেষ দলের প্রভাবশালীদের মাধ্যমে এ সমঝোতা হয়। ফলে এ নিয়ে সাধারণ ঠিকাদারদের মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে।
গণপূর্ত বিভাগ-২ সূত্রে জানা গেছে, সম্প্রতি সাড়ে ৫ কোটি টাকা ব্যয়ে পুলিশ লাইনের আরআরএফের ব্যারাক ভবন উর্ধ্বমুখী সম্প্রতি সারণের উদ্যোগ নেয়া হয়। গত ২৯ সেপ্টেম্বর বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে খুলনা স্থানীয় খুলনা গণপূর্ত বিভাগ-২ ভবনে ওই কাজের দরপত্রের আহ্বান করা হয়। ৩০ অক্টোবর ছিল দরপত্র বিক্রির শেষ দিন। শেষ দিন পর্যন্ত অন্তত ২০টির অধিক দরপত্র বিক্রি হয়। সোমবার দুপুর ১২টায় ওই দরপত্র জমার শেষ সময় ধার্য করা হয়। দরপত্র উন্মুক্ত করার সময় ছিল দুপুর ২টা। তবে শেষ সময় পর্যন্ত টেন্ডার বাক্সে ২০টির বিপরীতে দরপত্র পড়ে মাত্র তিনটি।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধিক ঠিকাদার অভিযোগ করেন, সকাল থেকে গণপূর্ত বিভাগে বিশেষ রাজনৈতিক দলের সমর্থক প্রভাবশালী ঠিকাদাররা ওই টেন্ডার কাজের সমঝোতার চেষ্টা করেন। তারা দরপত্র জমা দিতে বাধা দিলে সাধারণ ঠিকাদাররা পিছু হটেন। বিশেষ দলের সমর্থকদের সাথে যুক্ত হন ওই অফিসের প্রভাবশালী কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। যার কারণে তারা সমঝোতা করতে সক্ষম হন।
গণপূর্ত বিভাগ-২ এর এ্যাস্টিমেটর ফিমা খাতুন বলেন, কে বা কোন প্রতিষ্ঠান সর্বনিম্ন দরদাতা হিসেবে কাজ পেয়েছেন তা তার জানা নেই। তবে তিনটি দরপত্র জমা পড়েছে। এর বেশি কিছু তিনি বলতে রাজি হননি।
গণপূর্ত বিভাগ-২ এর নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আব্দুল্লাহ আল মাসুমও একই ধরনের বক্তব্য দিয়েছেন। কিন্তু তিনি বলেছেন, তিনটি দরপত্র জমা পড়েছে। এখন টিইসি কমিটি এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেবে। তবে এর সাথে তার অফিসের কোন কর্মকর্তা বা কোন কর্মচারী জড়িত না বলে দাবি করেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ