ঢাকা, শুক্রবার 04 November 2016 ২০ কার্তিক ১৪২৩, ৩ সফর ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

আয়কর মেলার চতুর্থ দিন আজ স্মার্ট করদাতাদের উপচে পড়া ভিড় ই-ফাইলিং বুথে

স্টাফ রিপোর্টার:বিপুল উৎসাহ ও করদাতাদের সরব উপস্থিতিতে জমে উঠেছে এবারের আয়কর মেলা। সপ্তমবারের মতো আয়োজিত আয়কর মেলায় তৃতীয় দিনে করদাতাদের সরব উপস্থিতি লক্ষ্য করা যাচ্ছে। আজ শুক্রবার মেলার চতুর্থ দিন চলছে। স্মার্ট করদাতাদের আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হয়েছে ই-ফাইলিং বুথ । এবারে প্রথমবারের মতো চালু হওয়া অনলাইনে আয়কর রিটার্ন বা ই-ফাইল বুথে সবচেয়ে বেশি ভিড় লক্ষ্য করা যাচ্ছে।

পুরান ঢাকার গেন্ডারিয়া থেকে আসা ব্যবসায়ী আমিনুল হক বলেন, অনলাইনে কীভাবে আয়কর রিটার্ন দাখিল করতে হয় সে বিষয় বোঝার জন্য আজ (বৃহস্পতিবার) আয়কর মেলায় আসা। এখানে এসে সহজেই ই-ফাইল খুললাম। ভিড়ের কারণে একটু সময় লাগলেও বেশ ভালোই লাগছে।

আয়কর মেলার আহ্বায়ক ও সদস্য (কর প্রশাসন ও মানবসম্পদ ব্যবস্থাপনা) আবদুর রাজ্জাক বলেন, সকাল থেকে করদাতারা উৎসবমুখর পরিবেশে রিটার্ন জমা দিচ্ছেন। পাশাপাশি করদাতা মেলায় না এসে অনেকে যেকোনো জায়গা থেকে অনলাইনে তাদের আয়কর রির্টান জমা দিচ্ছেন। মেলা থেকে আয়করের বিভিন্ন বিষয়ে তথ্যও নিচ্ছেন উপস্থিত করদাতারা।

কর দিতে ব্যক্তি শ্রেণির করদাতাদের উৎসাহিত করতে প্রতি বছর আয়কর মেলার আয়োজন করে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। মেলায় ই-টিআইএন রেজিস্ট্রেশন, ই-পেমেন্ট ও অনলাইনে আয়কর বিবরণী দাখিলসহ কর সংক্রান্ত সব সেবা পাওয়া যায়।

৬২ হাজার বর্গফুটের এনবিআরের নিজস্ব ভবনের বিশাল চত্বরে আয়কর মেলায় এবারে মোট বুথের সংখ্যা ১০৯টি। মেলায় অধিক সংখ্যক সেবা বুথ ছাড়াও থাকছে মুক্তিযোদ্ধা, সিনিয়র সিটিজেন, মহিলা ও প্রতিবন্ধী করদাতাদের পৃথক বুথ, কর একাডেমি, শুল্ক একাডেমি, কর ও মূসক ট্রাইব্যুনালের জন্য বুথ ও বাচ্চাদের জন্য পৃথক কিডস জোন।

রয়েছে প্রথমবারের মতো অনলাইনে আয়কর রিটার্ন দাখিলের সুবিধা। আয়োজকদের প্রত্যাশা-এবারের মেলা হয়ে উঠবে কর শিক্ষণ ফোরাম। মেলায় এসে শিক্ষার্থীরাও জানতে পারবে কর সম্পর্কিত নানা তথ্য।

মেলার দুই দিনে এ পর্যন্ত মোট আয়কর আদায় হয়েছে ৭২৫ কোটি ১১ লাখ ৫৪ হাজার ১২৪ টাকা। আর দ্বিতীয় দিনে কর আদায় হয়েছে ৫৩৩ কোটি ৬৯ লাখ ৮৭ হাজার ৩১২ টাকা। আর প্রথম দিনে ১৯১ কোটি ২১ লাখ ৬৬ হাজার ৮১২ টাকা আয়কর আদায় হয়েছিল।

এবারের আয়কর মেলা রাজধানীর আগারগাঁওয়ের জাতীয় রাজস্ব ভবনে অনুষ্ঠিত হচ্ছে। মেলার পরিধি গত বছরের মেলার চেয়ে কয়েকগুণ বাড়ানো হয়েছে। প্রতিদিন মেলা সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত চলবে। মেলায় করদাতাদের আসার সুবিধার জন্য রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে বাস দেওয়া হয়েছে।

‘সবাই মিলে দেব কর, দেশ হবে স্বনির্ভর’ স্লোগানে শুরু হওয়া এই মেলা শেষ হবে ৭ নবেম্বর। আয়কর মেলা অধিক জনপ্রিয় ও কার্যকর করতে এবারে করদাতাদের আনা-নেওয়ার জন্য বিনা ভাড়ায় আটটি সাটল সার্ভিস চালু করেছে এনবিআর।

রাজধানীসহ সব বিভাগীয় শহরে সাত দিনব্যাপী এ মেলা চলছে। জেলা শহরগুলোতে চার দিন, ২৯টি উপজেলায় দুই দিনব্যাপী স্থায়ী আয়কর মেলা ও ৫৭টি উপজেলায় এক দিন ভ্রাম্যমাণ আয়কর মেলা অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

 কোনো রকম ঝামেলা ছাড়াই এখানে করদাতারা রিটার্ন দাখিল করতে পারছেন। আর এ কারণেই করদাতারা ভিড় করছেন এই ই-ফাইলিং বুথে। আর যারা একটু প্রযুক্তি জ্ঞান রাখেন মূলত তারাই অনলাইনে আয়কর রিটার্ন দাখিল সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এ বুথে আসছেন।

অনেকে মেলায় বসেই ই-ফাইল খুলে ইউজার আইডি ও পাসওয়ার্ড নিচ্ছেন। গতকাল একটি বুথে সেবা দিতে সমস্যা হওয়ার কারণে গতকাল বৃহস্পতিবার ই-ফাইলিং বুথ সংখ্যা বাড়িয়ে দুটি করা হয়েছে।

মেলার তৃতীয় দিন বৃহস্পতিবার অন্যান্য বুথের তুলনায় এই ই-ফাইলিং বুথে মানুষের ভিড় বেশি লক্ষ্য করা গেছে। এ বুথের স্লোগান- অনলাইনে আয়কর রিটার্ন দাখিল করুন, ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ায় অংশ নিন।

এ বিষয়ে বুথের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ও ‘কর তথ্য ব্যবস্থাপনা ও সেবা’ বিষয়ক সদস্য কালিপদ হালদার বলেন, অনলাইনে কীভাবে আয়কর রিটার্ন দাখিল করতে হয় সেই বিষয়ে সেখানে জানতে করতাদাতাদের ব্যাপক আগ্রহ।

তিনি জানান, করদাতারা অনলাইনের মাধ্যমে আয়কর রিটার্ন দাখিল করতে চাইলে প্রথমে একটি ই-ফাইল খুলতে হবে। এই ওয়েবসাইট থেকে এই ই-ফাইল খুলতে ফাইলের ইউজার আইডি ও পাসওয়ার্ড নিতে হবে। তারপর যথাযথ নিয়মে এই সেবা গ্রহণ করা যায়।

এই কর্মকর্তা বলেন, মেলা শুরু হওয়ার পর থেকে গত দুই দিনে এই বুথ থেকে প্রায় দুই হাজার ব্যক্তি সেবা নিয়েছেন। এ পর্যন্ত মেলায় পাঁচ শতাধিক ব্যক্তি ই-ফাইল খুলেছেন। ই-ফাইলিংয়ের মাধ্যমে আয়কর রিটার্ন দাখিলে করদাতাদের মূল্যবান সময় ও শ্রম সাশ্রয়ের পাশাপাশি স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত হবে বলেও করদাতারা মনে করেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ