ঢাকা, শুক্রবার 04 November 2016 ২০ কার্তিক ১৪২৩, ৩ সফর ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

সরানো হলো আরও ১০ আনসারকে ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি

স্টাফ রিপোর্টার : ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এক কিশোরী ধর্ষণের ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে নিরাপত্তা বাহিনী আনসারের ছয় সদস্যকে প্রত্যাহারের পর আরও ১০ জনকে দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। এ নিয়ে দু‘দফায় ১৬ জন আনসারকে প্রত্যাহার করা হলো ।

ঢাকা জেলার আনসার কমান্ড্যান্ট সাইফুল্লাহ রাফেল গতকাল বৃহস্পতিবার বলেন, “ওই ঘটনায় ছয় জনকে প্রত্যাহার করা হয়েছিল। এখন পুরোনো দশ জনকে বদলি করা হয়েছে। আরও কিছু সদস্যকে বদলি করে দেওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে।”বদলি হওয়া এই আনসার সদস্যদের কোথায় নিয়োগ করা হবে সে বিষয়ে কিছু জানাননি তিনি।

তবে এই ১০ জন ওই ঘটনায় জড়িত নয় দাবি করে তিনি বলেন, “চলমান প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে তাদের বদলি করে নতুন সদস্যদের সেখানে নিয়োগ করা হবে।”ঘটনা তদন্তে আনসার সদর দপ্তর থেকে একটি তদন্ত কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত হয়েছে বলেও কমান্ড্যান্ট সাইফুল্লাহ জানান।

দেশের কয়েকটি স্থানে শিশু ও কিশোরী ধর্ষণ নিয়ে ক্ষোভ-বিক্ষোভের মধ্যে ২৭ অক্টোবর রাতে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের রেডিওলজি বিভাগের আউটডোরে এক কিশোরী ধর্ষিত হয়।

কুমিল্লার হোমনার ওই কিশোরীর ভাই ঢাকা মেডিকেলে সাংবাদিকদের জানান, তার বোন মানসিকভাবে অসুস্থ। মাঝে-মাঝে ঘর থেকে বেরিয়ে যায়, আবার ফিরেও আসে। এবার বেরিয়ে যাওয়ার পর ঢাকা মেডিকেল থেকে ফোন পেয়ে তারা এসে ধর্ষণের ঘটনা শোনেন।

শাহবাগ থানার পরিদর্শক (অপারেশন) আবুল কালাম আজাদ বলেন, ওই কিশোরী নিজেই বাদী হয়ে গণধর্ষণের অভিযোগে মামলা করেছিল। এরা হলেন- এপিসি একরামুল, আনসার সদস্য আনিসুল, আতিকুল, সিরাজ, বাবুল ও মিনহাজ। এর মধ্যেই আতিকুলকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে তিনি জানান।

তাদের বিষয়ে সাইফুল্লাহ বুধবার বলেন, “এরা ওই দিনই (২৭ অক্টোবর) চাকরি থেকে রিজাইন দিয়ে চলে গেছে। তারা এখন কোথায় আছে, তা জানা নেই।”

ঘটনাটি তদন্ত করতে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সহকারী পরিচালক জাকির হোসেনকে প্রধান করে একটি তিন সদস্যবিশিষ্ট কমিটি করা হয়েছে বলে হাসপাতালের উপপরিচালক ডা.খাজা আবদুল গফুর জানান।

এই কমিটিকে সাত কার্যদিবসের মধ্যে রিপোর্ট প্রদান করতে বলা হয়েছে। কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন সহকারী পরিচালক ডা. মোজাম্মেল হক ও ঢামেকের প্রশাসনিক কর্মকর্তা এ কে এম মাজহারুল।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ