ঢাকা, শুক্রবার 04 November 2016 ২০ কার্তিক ১৪২৩, ৩ সফর ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

কাঁচের তৈরি গম্বুজে মঙ্গলবাসী

বিডিনিউজ : মার্কিন মহাকাশ গবেষণা প্রতিষ্ঠান স্পেসএক্স প্রধান ইলন মাস্ক জানিয়েছেন, মঙ্গল গ্রহের প্রথম বাসিন্দা বিশাল আকৃতির কাঁচের গম্বুজে বসবাস করবে। আর তাদের বাড়ি বিস্তৃত করতে তারা খননকারী রোবট ব্যবহার করবে, জানিয়েছে ব্যবসা বাণিজ্য বিষয়ক প্রকাশনা বিজনেস ইনসাইডার।
মঙ্গল গ্রহে বসতি স্থাপনের প্রকল্প নিয়ে রেডিট-এর সঙ্গে কথোপকথন চলাকালে এই পরিকল্পনার কথা বলেন তিনি। সম্প্রতি মঙ্গল গ্রহে স্থায়ী বসতি স্থাপনের লক্ষ্যে সেখানে প্রথম মানুষ নেয়ার পরিকল্পনা প্রকাশ করে স্পেসএক্স।
২০২২ সাল থেকেই মঙ্গল গ্রহে মানুষ পাঠানো শুরু করার পরিকল্পনা রয়েছে প্রতিষ্ঠানটির। চলতি বছরের সেপ্টেম্বরে মঙ্গলে বসতি স্থাপনের ব্যাপারে বিস্তারিত পরিকল্পনা উন্মোচন করেন ইলন মাস্ক। এবার এই অনুষ্ঠানে সেখানে মানুষ কিভাবে বসবাস করবেন সেটি নিয়ে কথা বললেন।
মাস্ক জানান, মানুষ সম্ভবত কার্বন ফাইবার ফ্রেমের বিশাল আকৃতির কাঁচের ঘরে বসবাস করবে। আর কারখানা তৈরির জন্য রোবট দিয়ে ভূপৃষ্ঠ খনন করা হবে। মঙ্গলে এই কাঁচের গম্বুজ আকৃতির ঘরগুলোকে বলা হচ্ছে এএমএ। এই ঘরগুলো তৈরিতে সেখানে অনেকগুলো খননকারী রোবট নেয়া হবে বলেও জানানো হয়।
পরবর্তীতে আপনি কারখানা চালানোর জন্য বিশাল আকৃতির চাপ নির্ভর জায়গা তৈরি করতে পারেন এবং কাঁচের ঘর ছেড়ে সবুজ স্পেসে বসবাস করতে পারেন, বলেন মাস্ক।
মঙ্গল গ্রহে মানুষের প্রথম মিশনে তারা সেখানে একটি প্রাথমিক বেইজে কাজ করবেন এবং মহাকাশযান ছড়াবার প্ল্যান্ট প্রস্তুত করবেন। মানুষবাহী হার্ট অফ গোল্ড মহাকাশযানটি সেখান থেকে ফেরত আসার জন্য কোনো জ্বালানি পাবে না। তাই ছড়াবার প্ল্যান্টটি সঠিকভাবে তৈরি করা না হলে তারা ফেরত আসতে পারবে না।
মঙ্গলে মানুষ বসতি স্থাপনের মিশনটিকে বেশ খরুচে বলেও বিবেচনা করা হচ্ছে। এর আগে মাস্ক বলেছিলেন প্রতিজন নভোচারি পাঠাতে খরচ হবে এক হাজার কোটি মার্কিন ডলার।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ