ঢাকা, রোববার 06 November 2016 ২২ কার্তিক ১৪২৩, ৫ সফর ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

সরকারি শক্তি ব্যারাকে রেখে আ’লীগকে রাস্তায় নামার আহ্বান ড. মঈন খানের

সিলেট ব্যুরো : বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. মঈন খান সরকারি শক্তি ব্যারাকে রেখে আওয়ামী লীগকে রাস্তায় নামার আহবান জানিয়ে বলেছেন, তখন বুঝা যাবে রাজপথে আওয়ামী লীগ না বিএনপি শক্তিশালী।
গতকাল শনিবার বিকেলে সিলেট নগরীর পাঠানটুলাস্থ একটি কমিউনিটি সেন্টারে ‘খন্দকার আবদুল মালিক ফাউন্ডেশন’র আয়োজিত ‘শহীদ জিয়া স্মরণে’ আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথা বলেন তিনি।
ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান ও বেগম খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা খন্দকার আবদুল মুক্তাদিরের সভাপতিতে অনুষ্ঠিত সভায় ড. মঈন খান বলেন, ‘বিএনপি কোন শক্তির উপর নির্ভর করে রাজনীতি করে না’ ‘বিএনপির শক্তি বাংলাদেশের জনগণ। জিয়াউর রহমান জনগণকেই সকল ক্ষমতার উৎস বলে মনে করতেন।’
সাবেক মন্ত্রী আরো বলেন, ‘প্রেসিডেন্ট হওয়ার জন্য জিয়া রাজনীতি করেননি। তিনি দেশের জন্য রাজনীতি করেছেন। তার মধ্যে যে দেশপ্রেম ছিল, তা অনুকরণীয়। আওয়ামী লীগ যদি জিয়ার রাজনৈতিক দর্শন অনুসরণ করতো তবে দেশের অবস্থা আজ এমন হতো না। জিয়ার রাজনীতি ছিল উন্নয়নের রাজনীতি। সততা ও সরলতা ছিল তার জীবনের অন্যতম বৈশিষ্ট্য। যে কারণে সাধারণ মানুষ তাকে রাখাল রাজা হিসেবেই জানে।’
ড. মঈন জিয়াউর রহমানের অর্থনৈতিক উন্নয়নের নানা ফিরিস্তি তুলে ধরে বলেন, ‘বাংলাদেশের অর্থনীতি এক সময় তলাবিহীন ঝুড়ি ছিল। জিয়াই তার ক্ষমতাকালে তলাবিহীন ঝুড়িকে উদ্ধৃত্তের ঝুড়িতে পরিণত করেছিলেন। জিয়া সাড়ে তিন বছরে যে উন্নয়ন ও পরিবর্তন করেছিলেন, তা পরবর্তীতে অন্য কোন সরকার করতে পারেনি।’
অনুষ্ঠানে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের উপস্থিত থাকার কথা থাকলেও দলীয় কাজে ব্যস্ত থাকায় তিনি আসতে পারেননি। তবে টেলিকনফারেন্সে বক্তব্য রাখেন মির্জা ফখরুল। তিনি বলেন, ‘জিয়াউর রহমান বহুদলীয় গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করেছিলেন বলেই আজকে আওয়ামী লীগসহ অন্যান্য দল রাজনীতি করার সুযোগ পাচ্ছে। জিয়াই শিখিয়েছিলেন সমৃদ্ধ অর্থনীতির মাধ্যমে একটি দেশ কিভাবে এগিয়ে চলতে হয়।’
বর্তমান সরকারের সমালোচনা করে ফখরুল বলেন, ‘বাংলাদেশ এখন একটি কারাগার। দেশে এখন গণতন্ত্র অবরুদ্ধ। দেশের গণতন্ত্র ও ভোটের অধিকার প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের মাধ্যমে জগদ্দল পাথর হয়ে বসা ক্ষমতাসীন সরকারকে সরাতে হবে।’
অনুষ্ঠানে উদ্বোধনী বক্তব্য রাখেন সম্মিলতি পেশাজীবী পরিষদ-সিলেটের সভাপতি ডা. শামীমুর রহমান। ফাউন্ডেশনের উপদেষ্টা তোফায়েল আহমদ ও সাবেক ছাত্রনেতা সিদ্দিকুর রহমান পাপলুর পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বিএনপি, ছাত্রদল, যুবদলসহ অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ