ঢাকা, বুধবার 09 November 2016 ২৫ কার্তিক ১৪২৩, ৮ সফর ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

মাশরাফিকে আরও কয়েক বছর চান বাশার

স্পোর্টস রিপোর্টার : আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে মাশরাফি বিন মুর্তজার অভিষেক হয়েছিল ২০০১ সালের ৮ নবেম্বর। ক্যারিয়ারের ১৫ বছর পূর্ণ করে এই মাশরাফি। সাবেক অধিনায়ক ও বর্তমান নির্বাচক হাবিবুল বাশার সুমন চান আগামী কয়েকটা বছর বাংলাদেশের জার্সিতে যেন খেলে যায় মাশরাফি।২০০১ সালে অভিষেক হওয়ার পর দুই পায়ে সাতবার অস্ত্রোপচার হয় নড়াইল এক্সপ্রেসের হাঁটুতে। বাশার অবাক হয়ে যান, এতগুলো বছর কীভাবে মাশরাফি খেলে বেড়াচ্ছেন, ‘সত্যিই এটা খুব আশ্চর্যজনক ব্যাপার। কীভাবে মাশরাফি ১৫ বছর পার করে ফেললো। ক্যারিয়ারে যতবার সে ইনজুরি আক্রান্ত হয়েছে। এরপর পৃথিবীর কোনও স্পোর্টসম্যানের পক্ষে এভাবে খেলে যাওয়া সম্ভব নয়। সত্যি কথা বলতে আমরা কেউই ভাবিনি সে এতটা আসতে পারবে। কেননা প্রতিনিয়ত তাকে ইনজুরির সঙ্গে লড়াই করতে হয়েছে।’ মঙ্গলবার মাশরাফির ক্যারিয়ারের ১৫ বছর পূর্তিতে সাবেক অধিনায়ক হাবিবুল বাশার বলেন, মাশরাফির এমনিতেই প্রিয় অধিনায়ক। সাবেক অধিনায়ক জানালেন, ‘মাশরাফি আমারো প্রিয়। শুভেচ্ছা জানানোর পাশাপাশি ক্রিকেটের স্বার্থে মাশরাফির কাছে একটু খানি আবদার রাখলেন বাশার, ‘আমি চাই ও(মাশরাফি) আরও কয়েক বছর খেলুক। জানি ওর কষ্ট হবে। তারপরও যদি সম্ভব হয় আরও ২-৩ বছর খেলুক। সামনে আমাদের গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি টুর্নামেন্ট আছে, সেগুলোতে ওর থাকাটা গুরুত্বপূর্ণ। ওর নেতৃত্বে আরও কয়েকটা বছর কাটাতে পারলে বাংলাদেশ ভালো একটি অবস্থানে পৌঁছে যেতে পারবে। মাশরাফির আগে বাংলাদেশ দলের সফল অধিনায়ক ছিলেন হাবিবুল বাশার সুমন। ২০১৪ সালে অধিনায়কত্ব পেয়ে সেটাকে ছাড়িয়ে গেছেন মাশরাফি। রঙিন পোষাকের অধিনায়ক মাশরাফির এমন কীর্তিতে গর্ববোধ হয় বাশারের, ‘আমি সত্যিই অনেক খুশি। আমি মাশরাফিকে নিয়ে গর্ববোধ করি। অধিনায়ক হিসেবে দায়িত্ব নেয়ার পর যেমন স্বপ্ন দেখেছিলাম, সেটা পুরোপুরি পূরণ করতে পারিনি। এটা মাশরাফি পূরণ করছে। আমি সত্যিই আনন্দিত মাশরাফির এমন কীর্তিতে।’

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ