ঢাকা, বুধবার 09 November 2016 ২৫ কার্তিক ১৪২৩, ৮ সফর ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

হেমন্তে শীতের আগাম সবজি : দাম চড়া

মাধবদী (নরসিংদী) সংবাদদাতা : সবুজ বাংলায় যখন হেমন্তের পূর্ণ যৌবন, প্রকৃতিতে শীতের আগমনী বার্তা ছুঁই ছুঁই অবস্থা তখনই মাধবদীর সবজি বাজারগুলো আগাম শীতের সবজিতে ভরে গেছে। সব প্রকারের সবজির সরবরাহ প্রচুর থাকলেও দাম সাধারণ মানুষের নাগালের বাইরে। এখানে শীতের সবজি লাল শাক, পালং শাক, ফুল কপি, বাঁধা কপি, মুলা, শিম, বেগুন, করলা, গাজর, টমেটো, লাউ,  পেঁপেসহ সব ধরনের সবজির প্রচুর আমদানি রয়েছে। তবে শিম প্রতি কেজি ৮০ টাকা থেকে ৯০ টাকা, শাক ৫০টাকা, মুলা ৬০ টাকা, টমেটো ৭০ টাকা থেকে ১০০টাকা, গাজর ৮০টাকা, বেগুন ৭০টাকা থেকে ৭৫টাকা,  পেঁপে ৪০টাকা, বাঁধা কপি বড় সাইজের ৫০টাকা, ফুল কপি মাঝারি ৩০টাকা থেকে ৩৫টাকা, করলা ৫০টাকা, কাচা মরিচ ৮০টাকা থেকে ১০০টাকা পর্যন্ত বিক্রি হচ্ছে। চাষীরা আগাম সবজি চাষ করে ভাল দাম পেয়ে খুশি। মহিষাশুড়া ইউনিয়নের বর্দ্দের কান্দা গ্রামের একজন কৃষক রফি মিয়া জানান পাইকারী বিক্রেতারা জমি থেকেই সবজি কিনে নিচ্ছেন এবং আমাদেরকে যে দাম দিচ্ছেন তারও দ্বিগুন বিক্রি করছেন খুচরা বিক্রেতাদের কাছে। তাই খুচরা বিক্রেতারা বেশী দামে বিক্রি করতে বাধ্য হচ্ছে। মাধবদী মাছ বাজারের পাশের একজন সবজির দোকানি আনোয়ার হোসেন আনু জানান চাষীরা সবজি নিয়ে বাজারে এলেও পাইকারী ক্রেতাদের চাপের কারনে খুচরা বিক্রেতারা সরাসরি চাষীদের কাছ থেকে সবজি ক্রয় করতে পারেনা। ফলে পাইকারী বিক্রেতারা খুচরা বিক্রেতাদের কাছে ইচ্ছে মাফিক দাম নিয়ে বিক্রি করার ফলে বাজারে খুচরা দোকানে দাম বেড়ে যায়।  যে কারণে খুচরা বিক্রেতারা সামান্য লাভ করলেও সাধারণ ক্রেতাদের নাগালের বাইরে চলে যায়। এ ব্যাপারে মধ্যসত্ত্বভোগীদের দৌরাত্ম্য কমাতে সংশ্লিষ্ট প্রশাসন সবজির বাজরে তদারকি জোরদার করলে প্রচুর আমদানির পরও বিক্রেতারা তাদের ইচ্ছামাফিক দাম বাড়িয়ে সাধারণ মানুষদেরকে ভোগান্তিতে ফেলতে পারবেনা বলে অভিমত মাধবদী বাজারের খুচরা ব্যবসায়ীদের।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ