ঢাকা, বৃহস্পতিবার 10 November 2016 ২৬ কার্তিক ১৪২৩, ৯ সফর ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

আফ্রিকাবাসীর দৃষ্টি কেড়েছে বাংলাদেশের ওয়ালটন

নাইজেরিয়ার লাগোস আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলায় আফ্রিকাবাসীর মন কেড়েছে বাংলাদেশী ব্র্যান্ড ওয়ালটনের পণ্য। মেলায় আগত ব্যবসায়ী, সাধারণ ক্রেতা থেকে শুরু করে গণমাধ্যমগুলোর দৃষ্টি এখন ওয়ালটন প্যাভিলিয়নে। দামে সাশ্রয়ী গুণগত উচ্চমানের ওয়ালটন পণ্যের প্রতি বেজায় আস্থাশীল আফ্রিকাবাসী। 

নাইজেরিয়ার অন্যতম বাণিজ্যিক ও শিল্পনগরী লাগোসে গত ৪ নবেম্বর শুরু হয়েছে আফ্রিকা মহাদেশের সর্ববৃহৎ এই আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা। মেলায় অংশ নিয়েছে বাংলাদেশের শীর্ষ ইলেকট্রনিক্স ও ইলেকট্রিক্যাল এ্যাপ্লায়েন্সেস প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান ওয়ালটন। বাংলাদেশী কোনো কোম্পানি হিসেবে ওয়ালটনই প্রথমবারের মতো অংশ নিয়েছে আফ্রিকা অঞ্চলের এই সর্ববৃহৎ মেলায়। ’মেইড ইন বাংলাদেশ’ খ্যাত বিশ্বমানের প্রযুক্তি পণ্য আফ্রিকার বাজারে তুলে ধরেছে দেশের ইলেকট্রনিক্স জায়ান্ট ওয়ালটন। যা ইতোমধ্যে আন্তর্জাতিক এই মেলার অন্যতম আকর্ষণে পরিণত হয়েছে। 

উল্লেখ্য, ’পজিশনিং দি নাইজেরিয়ান ইকোনমি ফর ডাইভারসিফিকেশন এন্ড সাসটেইন্যাবল গ্রোথ’ থীমে আফ্রিকার বৃহৎ অর্থনীতির দেশ নাইজেরিয়ার লাগোস শহরের তাফাওয়া বালিওয়া স্কয়ারে ৪০ হাজার বর্গমিটার জায়গা জুড়ে চলছে দশ দিনের ’৩০তম আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা-২০১৬’। দেশটির ফেডারেল এবং দি স্টেট গভার্নমেন্টস-এর সার্বিক সহযোগিতায় লাগোস চেম্বার অফ কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি ১৯৮১ সাল থেকে এই মেলার আয়োজন করে আসছে। নাইজেরিয়া তথা সমগ্র আফ্রিকার বাজার সম্প্রসারণের এক শীর্ষ ও অত্যন্ত জনপ্রিয় সেতুবন্ধন হিসেবে গণ্য হয়ে আসছে আন্তর্জাতিক এই মেলাটি।  জানা গেছে, লাগোসে আকাশ, নৌ ও স্থলে পথে সহজ যাতায়াত ব্যবস্থা থাকায় আফ্রিকা মহাদেশের উন্নয়নশীল দেশগুলোর বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি বিশ্বের বিভিন্ন খাতের শীর্ষ ব্র্যান্ডগুলো এই মেলায় অংশ নিচ্ছে। আফ্রিকা মহাদেশসহ বিশ্বের অন্যান্য দেশ থেকে প্রতিদিন প্রায় ৫লাখ ক্রেতা-দর্শণার্থীর সমাগম হয় এই মেলায়। বাংলাদেশ থেকে একমাত্র অংশগ্রহণকারী প্রতিষ্ঠান ওয়ালটন।  মেলায় ১০০ বর্গমিটার জায়গা জুড়ে স্থাপন করা হয়েছে সুদৃশ্য ওয়ালটন প্যাভিলিয়ন। যেখানে বিশ্বের সর্বাধুনিক প্রযুক্তিতে তৈরি ওয়ালটন ব্র্যান্ডের রেফ্রিজারেটর, এলইডি টিভি, ল্যাপটপ, ব্লেন্ডার, ইনডাকসন কুকার, এলইডি বাল্ব, মোবাইল ফোনসহ অন্যান্য হোম ও ইলেকট্রিক্যাল এ্যাপ্লায়েন্সেস প্রদর্শন করা হচ্ছে।  উদ্বোধনের দিন থেকেই সকলের দৃষ্টি কেড়েছে সুদৃশ্য ওয়ালটন প্যাভিলিয়ন। আর প্যাভিলিয়নে এসে ওয়ালটন পণ্যের উচ্চ প্রযুক্তি ও গুণগতমান দেখে সকলেই মুগ্ধ হচ্ছেন। বিশেষ করে, ওয়ালটন ব্র্যান্ডের ইন্টেলিজেন্ট ইনভার্টার প্রযুক্তির নন-ফ্রস্ট ফ্রিজের নিঁখুত ফিনিশিং এবং অন্যান্য গ্লোবাল ব্র্যান্ডের তুলনায় সাশ্রয়ী মূল্যের কারণে বিশ্বের অন্যান্য ব্র্যান্ডের তুলনায় সহজেই ক্রেতা আকর্ষণে সক্ষম হয়েছে।  মেলা উপলক্ষে এখন নাইজেরিয়াতে রয়েছেন ওয়ালটন গ্রুপের পরিচালক এসএম মাহবুবুল আলম খালিদসহ আন্তর্জাতিক বিপণন বিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। এছাড়াও, রয়েছেন নাইজেরিয়াতে ওয়ালটন পণ্যের আমদানিকারক নুনে ডেভিড, জনসন ওগবু, নুদুবুইসি আনাছুসি এবং মাদাম এনগোজি এজেনওয়া।  মেলায় অংশগ্রহণ প্রসঙ্গে এসএম মাহবুবুল আলম খালিদ বলেন, বাংলাদেশের বাজারে গ্রাহকপ্রিয়তার শীর্ষে ওয়ালটন। ওয়ালটনের বর্তমান লক্ষ্য আন্তর্জাতিক বাজারেও অন্যতম শীর্ষস্থান অর্জন। লক্ষ্য পূরণে ওয়ালটন ইতোমধ্যে সফলতা অর্জন করেছে। বাজার সম্প্রসারণ কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে। প্রেসবিজ্ঞপ্তি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ