ঢাকা, সোমবার 14 November 2016 ৩০ কার্তিক ১৪২৩, ১৩ সফর ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

বাংলাদেশ এখন যেকোন সময়ের চেয়ে বেশি বিদেশী বিনিয়োগকারী আকৃষ্ট করছে

চট্টগ্রাম অফিস : বাংলাদেশ এখন যে কোন সময়ের চেয়ে বেশি বিদেশী বিনিয়োগকারীকে আকৃষ্ট করতে সক্ষম হচ্ছে বলে অভিমত ব্যক্ত করেছেন বেপজিয়ার চেয়ারম্যান ও  কোরিয়ান বিনিয়োগকারী ইয়াংওয়ান গ্রুপের চেয়ারম্যান কিহাক চং। ১৩ নবেম্বর রোববার বাংলাদেশ ইনভেস্টার এসোসিয়েশান (বেপজিয়ার) বার্ষিক সাধারণ সভায় তিনি এ অভিমত ব্যক্ত করেন।
চট্টগ্রাম মহানগরীর রেডিসন ব্লু হোটেলে সাধারণ সভায় সভাপতির বক্তব্যে কিহাক চং বলেন, বাংলাদেশ অর্থনৈতিকভাবে এখন অনেক শক্তিশালী। দেশের রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক পরিবেশও বেশ ভালো। বিনিয়োগকারীরা বাংলাদেশে বিনিয়োগে যথেষ্ট আগ্রহী হয়ে উঠছে। বিনিয়োগের এমন অনুকূল পরিবেশ বিরাজমান থাকলে ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত হবে। তিনি আরও বলেন, সরকারের গৃহীত পদক্ষেপের ফলে যেকোন সমস্যা দ্রুত সমাধান হচ্ছে। কিহাক চং বলেন, শুধু বাংলাদেশী পাসপোর্ট ছাড়া আমার সব কিছুই বাংলাদেশে। ঢাকা, চট্টগ্রাম, কর্ণফুলী ও কোরিয়ান ইপিজেডে সিংহভাগ বিনিয়োগ আমি করেছি।
সভায় কিহাক চং বাংলাদেশ এক্সপোর্ট প্রসেসিং জোন অথরিটির প্রশংসা করেন এবং বাংলাদেশের স্থিতিশীল অবস্থার কথা উল্লেখ করে বলেন, আগামী ৫ বছরের মধ্যে বাংলাদেশ শিল্পপণ্য উৎপাদনে যে কোন ধনী দেশের সাথে প্রতিযোগিতা করতে পারবে। সাধারণ সভায় ঢাকা, চট্টগ্রাম, কুমিল্লা, কর্ণফুলী, কোরিয়ান, ইশ্বরদী, মংলা ইপিজেডের অর্ধশত দেশি-বিদেশী বিনিয়োগকারী উপস্থিত ছিলেন।
 সভায় আগামী মেয়াদে কিহাক চং কে চেয়ারম্যান, নাসির উদ্দিনকে সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান, জারাফ কাদেরকে ট্রেজারার করে ১২ সদস্যের বেপজিয়ার সেন্ট্রাল কমিটি গঠন করা হয়। খাজা মাঈনুদ্দিন ফরহাদকে প্রেসিডেন্ট, জিন্নাহ চৌধুরীকে জেনারেল সেক্রেটারি, মো. তানভিরকে সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট ও আবু সুফিয়ানকে ট্রেজারার করে বেপজিয়ার চট্টগ্রাম জোন গঠন করা হয়। বেপজিয়ার সেন্ট্রাল অফিস সচিব ফাউজুল মতিনের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বার্ষিক আর্থিক প্রতিবেদন পেশ করেন জারাফ কাদের, অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মো. তানভির, এম. এ. সালাম, এম.এ. মতিন, মি. গোরা, এস.এম. ফেরদৌস, মাহমুদ আলী প্রমুখ।
চা বোর্ডের ১শ’ কাঠার অধিক সম্পত্তি উদ্ধার
চট্টগ্রামে অবৈধ বসতি উচ্ছেদ করে চা বোর্ডের ১শ’ কাঠার অধিক সম্পত্তি উদ্ধার করছে জেলা প্রশাসন। রোববার সকাল সাড়ে ১০টা থেকে জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের উপস্থিতিতে উচ্ছেদ কার্যক্রম শুরু হয়।
নগর পুলিশের পাঁচলাইশ জোনের সহকারী কমিশনার (এসি) মো.জাহাঙ্গীর আলম বলেন, চা বোর্ডের প্রায় ১০০ কাঠারও বেশি জায়গায় কয়েক’শ অস্থায়ী টিনের ঘর তুলে সেগুলো দীর্ঘদিন ধরে দখল করে রাখা হয়েছে।  আদালতের নির্দেশনা পাওয়ার পর জেলা প্রশাসন সেগুলো উচ্ছেদের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।  তিনি বলেন, আমরা আশংকা করেছিলাম উচ্ছেদ কার্যক্রমে বাধা আসতে পারে। সেজন্য ১২০ জন ফোর্স আমরা মোতায়েন করেছি।  র‌্যাবও প্রায় সমপরিমাণ আছে।  তবে এখন পর্যন্ত কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি।
আমিন জুট মিলের অস্থায়ী শ্রমিক এবং স্থানীয় রাজনৈতিক প্রভাবশালী লোকজন দীর্ঘদিন ধরে সেখানে দখল করে রেখেছে বলে জানিয়েছে পুলিশ সূত্র।
অগ্নিকাণ্ডে ৩০টি বসতঘর ভস্মিভূত
রোববার সকালে নগরীর কোতোয়ালী থানার ঘাটফরহাদবেগ এলাকার হাজি কলোনিতে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে সেমিপাকা ও কাঁচা মিলে ৩০টি বসতঘর আগুনে পুড়ে গেছে। এতে প্রায় ৬ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। ফায়ার সার্ভিসের আগ্রাবাদ নিয়ন্ত্রণ কক্ষের টেলিফোন অপারেটর রূপন কান্তি বিশ্বাস জানান, রোববার সকাল আটটার দিকে ঘাটফরহাদবেগ এলাকার হাজি কলোনিতে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে আগ্রাবাদ, চন্দনপুরা ও নন্দনকানন ইউনিটের আটটি গাড়ি প্রায় দেড় ঘণ্টা চেষ্টার চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। আগুনে পুড়েগেছে সেমিপাকা ও কাঁচা মিলে ৩০টি বসতঘর। বাসার বিভিন্ন আসবাবপত্র পুড়ে ৬ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। আগুন লাগার কারণ জানা যায়নি। তবে কিভাবে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়েছে তা তদন্ত করে দেখছে ফায়ার সার্ভিস কর্তৃপক্ষ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ