ঢাকা, সোমবার 14 November 2016 ৩০ কার্তিক ১৪২৩, ১৩ সফর ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

বিদ্যালয়ের ৭০ হাজার টাকার গাছ আত্মসাতের অভিযোগ

কেশবপুর (যশোর) সংবাদদাতা : যশোরের কেশবপুরে মাগুরাডাঙ্গা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সভাপতির বিরুদ্ধে বিদ্যালয়ের ৭০ হাজার টাকা মূল্যের গাছ কেটে আত্মসাতের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ব্যাপারে প্রতিকার চেয়ে এলাকাবাসী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে একটি অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়েছে।
অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, বিগত ৫০ বছর আগে মাগুরাডাঙ্গা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দক্ষিণ পাশ দিয়ে ৪ টি রেন্ট্রি গাছ রোপণ করা হয়। প্রতিটি গাছের আনুমানিক মূল্য ৮০ থেকে ৯০ হাজার টাকা। গত দুর্গা পূজার ছুটির সুযোগে বিদ্যালয়ের সভাপতি আওয়ামী লীগ নেতা সন্তোষ দাস নিয়মবহির্ভূতভাবে গাছগুলোর ভেতর থেকে পূর্বপাশের একটি বৃহদাকার রেন্ট্রি গাছ মাত্র ৭০ হাজার টাকায় কাঠ ব্যবসায়ী রাজনগরবাকাবর্শী গ্রামের রহিম ঢালীর কাছে বিক্রি করে দেয়। অভিযোগকারী মুনছুর ফকিরসহ এলাকাবাসী অভিযোগ করে বলেন, স্কুলের যে সীমানায় ওই গাছ চারটি রোপণ করা ছিল তার পিছনে স্কুলের একমাত্র শহীদ মিনার ও টয়লেট স্থাপিত। গাছটি প্রধান শিক্ষক, সহকারী শিক্ষক শংকর দাস, পিটিএ-এর সভাপতি ও বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি যোগসাজশে বিক্রি করে সমুদয় টাকা আত্মসাত করেছেন।
এ ব্যাপারে বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক রাধারাণী গাইন জানান, ২০০৩ সাল থেকে সন্তোষ দাস এ স্কুলের সভাপতির দায়িত্ব পালন করে আসছেন। শিক্ষকদের কোনো অনুমতি ছাড়াই তিনি গাছটি নিজের দাবি করে বিক্রি করে দিয়েছেন।
সভাপতি সন্তোষ দাস বলেন, গাছটি তার নিজের জমিতে নিজের হাতেই রোপণ করা ছিল। এটি ওই স্কুলের কোনো সম্পদ নয়। বরং আমার জমির ওপর স্কুলের শহীদ মিনার ও টয়লেট নির্মাণ করা হয়েছে।
উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আকবার হোসেন বলেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অভিযোগটি তদন্তের জন্যে তার ওপর দায়িত্ব দিয়েছে। সরেজমিনে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ